scorecardresearch

বড় খবর

সিঙ্গল ইউজ প্লাস্টিক আনলেই পেট্রোল-ডিজেলে বড় ছাড়, অভিনব ঘোষণা পাম্প মালিকের

দুধের পাউচ অথবা ব্যবহার করা প্লাস্টিকের জলের বোতল নিয়ে পাম্পে আসলেই লিটার প্রতি পেট্রোল-ডিজেলে পান বড় ছাড়।

সিঙ্গল ইউজ প্লাস্টিক আনলেই পেট্রোল-ডিজেলে বড় ছাড়, অভিনব ঘোষণা পাম্প মালিকের
সিঙ্গল ইউজ প্লাস্টিক আনলেই পেট্রোল-ডিজেলে বড় ছাড়, অভিনব ঘোষণা পাম্প মালিকের

দুধের প্যাকেটের বদলে মিলবে পেট্রোলে ১ টাকা ও ডিজেলে ৫০ পয়সার ছাড়। অভিনব ঘোষণা পাম্প মালিকের। গত ১লা জুলাই থেকেই দেশে নিষিদ্ধ হয়েছে ৭৫ মাইক্রনের নীচে প্লাস্টিকের ব্যাগ ব্যবহার । এই মর্মে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এক বিজ্ঞপ্তিও জারি করা হয় সেখানে বলা হয়েছে সিঙ্গল ইউজ প্লাস্টিকের ব্যবহার বন্ধের কথা।

এবার সেই পথে হেঁটেই পরিবেশ রক্ষায় এগিয়ে এলেন রাজস্থানের এক পাম্প মালিক। তিনি তার পাম্পে আসা সকলের উদ্দেশ্যে এক বার্তায় জানিয়েছেন দুধের পাউচ অথবা ব্যবহার করা প্লাস্টিকের জলের বোতল নিয়ে পাম্পে আসলেই লিটার প্রতি পেট্রোলে ১ টাকা এবং ডিজেলে ৫০ পয়সার ছাড় পাওয়া যাবে।

তার এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন ভিলওয়ারা জেলা প্রশাসন।  দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের কাছ থেকেও মিলেছে  সমর্থন। ভিলওয়ারার জেলাশাসক আশিস মোদী বলেছেন, ‘সিঙ্গল ইউজ প্লাস্টিকের ব্যবহার বন্ধ করতে অভিনব এক উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন জেলার এক পাম্প মালিক। এর মধ্যেই প্রচুর মানুষ পেট্রোল পাম্পে খালি দুধের পাউচ এবং প্লাটিকের জলের বোতল নিয়ে পাম্পে আসছেন সেই সঙ্গে পেয়ে যাচ্ছেন বড় ছাড়ও’।

আরও পড়ুন: [ ‘মন খারাপে আমিই ভরসা’! যুবকের মাথায় হাত রেখে বিশেষ বার্তা বাঁদরের]

পাম্পের মালিক অশোক কুমার মুন্দ্রা সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন, “ হাফ লিটার অথবা এক লিটার দুধের পাউচে আমি পেট্রোলে ১ টাকা এবং ডিজেলে ৫০ পয়সার ছাড় দিচ্ছি”।

কেন এমন ভাবনা সে প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পরিবেশ রক্ষায় সিঙ্গেল ইউজড প্লাস্টিকের ব্যবহার বন্ধ করার জন্য সরকারের তরফে ঘোষণা করা হয়েছে পরিবেশ যাতে সুস্থ থাকে আমরা সবাই যাতে সুস্থ থাকি ভাল থাকি তাই আমি এই ধরণের পদক্ষেপ নিয়েছি”। তার আশা মাসখানেকের মধ্যে ১০ হাজারের বেশি সিঙ্গল ইউজ প্লাস্টিক সংগ্রহ করে সেগুলিকে নষ্ট করা হবে।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Viral news download Indian Express Bengali App.

Web Title: This petrol pump owner offers discount on fuel in exchange of empty milk pouches