scorecardresearch

বড় খবর

ধ্বংসস্তূপে বসেই পিয়ানোয় সুর তুলছেন ইউক্রেনীয় তরুণী, ভাইরাল ভিডিওয় চোখে জল নেটিজেনদের

২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে একের পর এক হামলার মুখে পড়েছে ইউক্রেনের একাধিক শহর। সাধারণ মানুষের ওপর নির্বিচারে চালানো হয়েছে হামলা।

ধ্বংসস্তুপের মধ্যেই তরুণীর পিয়ানো বাজানোর ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

বড্ড ভালোবাসেন পিয়ানো বাজাতে। নিজের প্রিয় বাড়ির ড্রয়িং রুমে বসে মায়ের সঙ্গে কত সন্ধ্যে একসঙ্গে পিয়ানো বাজিয়েছেন তিনি। আজ সেই বাড়িটি পরিনত হয়েছে একটা ধ্বংসস্তূপে। রুশ আগ্রাসনের মুখে পড়ে নিজের প্রিয় বাড়ি ধুলিস্যাৎ হয়ে গিয়েছে। এর মাঝেই ধ্বংসস্তুপের মধ্যেই তরুণীর পিয়ানো বাজানোর ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। এই ভিডিও ভাইরাল হতেই তা নেটিজেনদের চোখে জল এনেছে। ভিডিওতে ফ্রেডেরিক চোপিনের রচিত একটি সুরে পিয়ানো বাজাতে দেখা গিয়েছে ওই তরুণীকে। ক্যামেরা প্যান করে দেখানো হয়েছে যেখানে বসে তিনি পিয়ানো বাজাচ্ছেন সেখানে তার চারপাশ সেন এক মৃত্যুপুরী। ভাঙ্গা জানালা, দরজা, ভাঙা আসবাবপত্র ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে রয়েছে।

আর মাঝেই এক মনে পিয়ানোতে সুর তুলেছেন এই তরুণী। পিয়ানো বাজাতে বাজাতে দীর্ঘশ্বাস ফেলতে দেখা গিয়েছে তাকে। ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে একের পর এক হামলার মুখে পড়েছে ইউক্রেনের একাধিক শহর। সাধারণ মানুষের ওপর নির্বিচারে চালানো হয়েছে হামলা। এমটাই অভিযোগ ইউক্রেনের।

সেই সঙ্গে রাস্ট্র সংঘের তথ্য অনুসারে ইতিমধ্যেই যুদ্ধের কারণে দেশ ছেড়েছেন ৩০ লক্ষ ইউক্রেনবাসী। ভাইরাল হয়েছে একের পর এক চোখে জল আনা ভিডিও। এসববের মধ্যেও নিজের সাধের বাড়িতে ধ্বংসস্তুপের মধ্যে পিয়ানো বাজানোর ভিডিও বুকে ঝড় তুলেছে বিশ্ববাসীর।

জানা গিয়েছে ওই তরুণীর নাম ইরিনা মানিউকিনা। দক্ষিণ কিয়েভে এই বাড়িতেই মার সঙ্গে থাকতেন ওই তরুণী। জানা গিয়েছে তরুণীর মাও একজন পিয়ানো বাদক। রুশ ক্ষেপনাস্ত্রের আঘাতে বাড়িটি ছিন্নভিন্ন হয়ে গিয়েছে। ডেইলি মেইমের প্রতিবেদন ​​অনুসারে পরিবারটি এখন পোলিশ সীমান্তের কাছাকাছি লভিভে পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছে, যেখানে কারিনা বলেছিলেন যে এটি একটি “খুব শান্ত এবং শান্তিপূর্ণ জায়গা” তার নিজের শহর থেকে একেবারেই ভিন্ন। তাও বাড়ি ফেরার জন্য তার মন ছটফট করছে’।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Viral news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Ukrainian pianist plays chopin one last time sitting at home ruined by russian shelling