scorecardresearch

বড় খবর

ইঁদুরের জ্বালায় অতিষ্ট, থানায় জোড়া বিড়াল পুষছে পুলিশ

জরুরি ফাইল, কাগজপত্র ছিঁড়ে কুটিকুটি করছে ইঁদুর।

ইঁদুরের জ্বালায় অতিষ্ট, থানায় জোড়া বিড়াল পুষছে পুলিশ
ইঁদুর তাড়াতে বিড়াল রাখল পুলিশ।

থানায় ভয়ঙ্কর উৎপাত ইঁদুরের। মুষিকের জ্বালায় অতিষ্ট থানার পুলিশ। এমনই অবস্থা যে ইঁদুর তাড়াতে বিড়াল রাখল পুলিশ। যা চাউর হতেই শোরগোল পড়ে গিয়েছে। ইঁদুরের জ্বালায় শেষপর্যন্ত বিড়াল নিয়োগ করছে পুলিশ।

আজব ঘটনা কর্ণাটকের রাজধানী বেঙ্গালুরু থেকে ৮০ কিমি দূরে গৌরীবিড়ানুর গ্রামীণ থানার। এই থানাটি তৈরি হয় ২০১৪ সালে। কিন্তু স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ইঁদুরের জ্বালায় অতিষ্ট থানার আধিকারিকরা। জরুরি ফাইল, কাগজপত্র ছিঁড়ে কুটিকুটি করছে ইঁদুর।

দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস-কে থানার এসআই বিজয় কুমার বলেছেন, থানার পাশেই একটা ঝিল আছে। মনে হচ্ছে, সেখান থেকেই আসছে ইঁদুরের দল। যবে থেকে বিড়াল পোষা হচ্ছে, তবে থেকে ইঁদুরের উৎপাত কিছুটা কমেছে। সম্প্রতি আরেকটা বিড়াল রাখা হয়েছে। এখনও পর্যন্ত তিনটি ইঁদুর মেরেছে ওরা।

আরও পড়ুন মাথায় টোপর, গলায় গাঁদার মালা! হাসি মুখে কুকুরকে বিয়ে যুবকের

তিনি আরও বলেছেন, ইঁদুরগুলো গোটা থানায় ছুটে বেড়ায়। তার পর লকআপে, আলমারিতে ঢুকে জরুরি কাগজপত্র নষ্ট করছে। বিড়াল দুটোকে দুধ আর খাবার দেওয়া হয়। ওরা এখন থানার ভিতর থেকে পরিবারের সদস্যের মতো হয়ে গেছে।

আরও পড়ুন এক’শো কেজি’র কেকে জন্মদিন পালন প্রিয় পোষ্যের, ভিডিও ভাইরাল

প্রসঙ্গত, কর্ণাটকের বিভিন্ন দফতর প্রচুর টাকা খরচ করে ইঁদুর-মশার উপদ্রব দূর করতে। আরটিআই-এর মাধ্যমে জানা গিয়েছে, কর্ণাটকের এগজামিনেশন অথরিটি ৫০ হাজার টাকা বার্ষিক খরচ করে ইঁদুর-মশার উপদ্রব বন্ধ করতে। ২০১০ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত পাঁচ বছরে সরকার সাড়ে ১৯ লক্ষ টাকা খরচ করেছে ইঁদুর ধরতে।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Viral news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Unable to catch rats karnataka police deploy cats