scorecardresearch

বড় খবর

টানা ৪ দিনের ‘লড়াই’ এক ঝটকায় ‘শেষ’, ১৫ মিনিটেই করুণাময়ীর ধর্না তুলল পুলিশ

চাকরির দাবিতে একটানা ৪ দিন ধরে করুণাময়ীতে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন ২০১৪ টেট উত্তীর্ণ নন-ইনক্লুডেড প্রার্থীরা।

টানা ৪ দিনের ‘লড়াই’ এক ঝটকায় ‘শেষ’, ১৫ মিনিটেই করুণাময়ীর ধর্না তুলল পুলিশ
চারদিন ধরে চলা আন্দোলন মাত্র কয়েক মিনিটেই তুলে দিল পুলিশ।

নিয়োগ চেয়ে টানা চারদিন পথেই পড়েছিলেন ২০১৪ টেট উত্তীর্ণ নন-ইনক্লুডেড চাকরিপ্রার্থীরা। তবে নিয়োগ তো দূর অস্ত, চাকরির আশ্বাস পর্যন্ত মেলেনি। উল্টে গতরাতে হঠাৎ পুলিশি তৎপরতায় বাধ্য হয়েই আন্দোলস্থল ছেড়ে চলে যেতে হয়েছে। অনেককে পুলিশ গ্রেফতার পর্যন্ত করেছে।

গত সোমবার আন্দোলনের শুরু।

গত সোমবার দুপুর থেকে আন্দোলনের শুরু। হঠাৎ সল্টলেকের করুণাময়ী মোড় চত্বরে শ’য়ে-শ’য়ে তরুণ-তরুণীর দল ভিড় বাড়াতে শুরু করে। পুলিশ কিছু বুঝে ওঠার আগেই সেখানে জড়ো হয়ে যান হাজারখানেক বিক্ষোভকারী। মুহূর্তে জনপ্লাবন নেমে আসে করুণাময়ী মোড়ে।

ক্রমেই আন্দোলনের ঝাঁঝ বাড়তে শুরু করেছিল।
চাকরি চেয়ে বাচ্চা কোলেই পথে মা। ঠাঁয় রাস্তায় বসে মায়ের কোলেই ততক্ষণে ঘুমিয়ে পড়েছে একরত্তি।
‘দিদি প্রতিশ্রুতি রাখুন’, হাতে পোস্টার নিয়ে রাস্তায় বসেছিলেন চাকরিপ্রার্থীরা।

করুণাময়ীতেই রয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের অফিস। আন্দোলনকারীরা সেই অফিসের সামনেই রাস্তায় বসে পড়েন। শুরু হয় স্লোগানিং। ‘চাকরি চাই’, এই স্লোগানে ঝড় ওঠে করুণাময়ী মোড়ে। পুলিশ বারবার আন্দোলনকারীদের সরে যেতে অনুরোধ করে। তবে এতে কোনও ফল হয়নি। বরং সময় যত এগিয়েছে ততই পোক্ত হয়েছে আন্দোলন।

একটানা অনশন আন্দোলনের গত কয়েকদিনে অসুস্থও হয়েছেন অনেকে।
নিয়োগ না মিললে ধর্না উঠবে না, বারবার চোয়াল শক্ত রেখে এমনভাবেই হুঁশিয়ারি দিতে দেখা গিয়েছিল চাকরিপ্রার্থীদের।

এরই মধ্যে টেট আন্দোলনকারীদের সঙ্গে গিয়ে দেখা করতে শুরু করেন বেশ কিছু শিক্ষক। তাঁরাও আন্দোলকারীদের পক্ষে রয়েছেন বলে জানান। চোয়াল শক্ত করে দাঁতে দাঁত চেপে চাকরির জন্য লড়াইয়ের স্বর আরও চড়া করেন বিক্ষোভকারীরা। অনেক বিক্ষোভকারীই নিজের বাচ্চাদেরও নিয়ে যান আন্দোলনস্থলে। বাচ্চা কোলেই তাঁদের প্রতিবাদ জারি রাখতে দেখা গিয়েছে।

চার দিন পর গতরাতে হঠাৎ তুমুল তৎপরতা পুলিশের। আন্দোলনকারীদের টেনে-হিঁচড়ে সরিয়ে দিচ্ছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে করুণাময়ীতে বিপুল সংখ্যক মহিলা পুলিশকর্মীদেরও আন্দোলনকারীদের সরিয়ে নিয়ে যেতে দেখা গিয়েছে।
বৃহস্পতিবার রাতে টেট উত্তীর্ণদের বিক্ষোভ এভাবেই তুলতে দেখা যায় পুলিশকে।

গত চার দিনে বিরোধী প্রায় সব দলের নেতারাই পৌঁছে গিয়েছিলেন করুণাময়ীতে। টেট আন্দোলনকারীদের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন তাঁরা। তবে টানা এই আন্দোলনের জেরে সমস্যা বাড়ছিল। করুণাময়ীতে চাকরির জন্য চলা এই ধর্নার জেরে পাশে থাকা প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের কর্মীদের কাজে যাতে কোনও সমস্যা না হয় তা নিশ্চিত করতে ওই এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করায় পুলিশকে ছাড়পত্র দেয় কলকাতা হাইকোর্ট।

গত চারদিনের ‘লড়াই’ নিমেশেই শেষ, টানা বিক্ষোভ মাত্র ১৫ মিনিটেই তুলে দিল পুলিশ। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে বেশ কয়েকজন আন্দোলনকারীকে আটক করে প্রিজন ভ্যানে তুলে নিয়ে যায় পুলিশ।

হাইকোর্টের এই নির্দেশের পরেই বাড়ে পুলিশি তৎপরতা। বৃহস্পতিবার সন্ধে থেকে মাইকিং করে আন্দোলনকারীদের সরে যেতে বলে পুলিশ। শেষমেশ মাঝরাতে শুরু হয় পুলিশি অপারেশন। গভীর রাতে আন্দোলকারীদের টেনে হিঁচড়ে সরিয়ে দিতে শুরু করে পুলিশ। অল্প সময়ের মধ্যেই গোটা করুণাময়ীর আন্দোলস্থল ফাঁকা করে দেয় পুলিশ।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Westbengal news download Indian Express Bengali App.

Web Title: 4 days long tet protest at karunamoyee lifted by police just 15 minutes