scorecardresearch

বড় খবর

অস্ত্রোপচারের পর চোখের উন্নতি, কালীপুজোর আগেই বাড়ি ফিরছেন অভিষেক

আমেরিকার হাসপাতালে চোখের অস্ত্রোপচার হয়েছে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

অস্ত্রোপচারের পর চোখের উন্নতি, কালীপুজোর আগেই বাড়ি ফিরছেন অভিষেক
অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি)

কালীপুজোর আগেই বাড়ি ফিরছেন অভিষেক বন্দ্যেপাাধ্যায়। আমেরিকায় তাঁর চোখের জটিল অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে। হাসপাতাল থেকে দিন কয়েক আগেই ছুটি পেয়েছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক। এবার তিনি বাড়ি ফিরছেন।

গাড়ি দুর্ঘটনায় ডায়মন্ড হারবারের তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যেপাাধ্যায়ের একটি চোখের ভীষণ ক্ষতি হয়েছিল। সম্প্রতি দুবাইয়ে চোখের চিকিৎসা করাতে গিয়েছিলেন তৃণমূল নেতা। যদিও সেখানকার হাসপাতালের চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনে দুবাই থেকেই তিনি উড়ে যান আমেরিকায়। সেখানকার হাসপাতালে চোখের চিকিৎসা শুরু হয় অভিষেকের।

আমেরিকায় এক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক তাঁর চোখের জটিল অস্ত্রোপচার করেছেন। অস্ত্রোপচারের পর তৃণমূল নেতাকে বেশ কয়েকদিন হাসপাতালে পর্যবেক্ষণে রেখে দেওয়া হয়েছিল। অস্ত্রোপচারের পর ক্রমশই তৃণমূল নেতার চোখের উন্নতি নজরে আসে। কয়েকদিন হাসপাতালে থাকার পর তাঁকে ছুটি দিয়ে দেওয়া হয়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে প্রতি বারই ধুমধাম করে কালীপুজো হয়। মুখ্যমন্ত্রী নিজে এই পুজোয় সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। বাড়ির কালীপুজোর আগেই ঘরের ছেলে ফিরছেন ঘরে।

আরও পড়ুন- আরও বিস্ফোরক তথ্যের খোঁজে ED, আজই সায়গলকে দিল্লিতে জেরা শুরু

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে দুর্গাপুর এক্সপ্রেসওয়েতে ভয়াবহ গাড়ি দুর্ঘটনার কবলে পড়েছিলেন ডায়মন্ড হারবারের তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যেপাাধ্যায়। ওই দুর্ঘটনার পর থেকে বেশ কয়েকবার তাঁর চোখের অস্ত্রোপচার হয়েছিল। যদিও সমস্যা পুরোপুরি না মেটায় বিদেশের হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা করানোর সিদ্ধান্ত নেন তৃণমূল নেতা। সেই মতো তিনি গিয়েছিলেন দুবাইয়ে। সেখানকার হাসপাতালের চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনে তিনি যান আমেরিকায়। বিশেষজ্ঞ এক চিকিৎসক তাঁর চোখের অস্ত্রোপচার করেছেন। সুস্থ হয়ে এবার বাড়ির পথে তৃণমূলের যুবরাজ।

আরও পড়ুন- ‘বিরোধিতাটাই ভালো করে বামেরা, সরকার চালাতে পারে না’, কটাক্ষ দিলীপের

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Westbengal news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Abhisek banerjee will reach his home before kalipuja