scorecardresearch

বড় খবর

‘বড়লোকেদের তালিকায় নাম থাকায় গর্বিত’, সম্পত্তি বৃদ্ধি মামলায় সরব অনুপম

সম্পত্তি বৃদ্ধির উৎস নিয়ে ১৭ বিরোধী নেতার বিরুদ্ধে হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে।

‘বড়লোকেদের তালিকায় নাম থাকায় গর্বিত’, সম্পত্তি বৃদ্ধি মামলায় সরব অনুপম
সম্পত্তি বৃদ্ধি নিয়ে ১৭ বিরোধী নেতার বিরুদ্ধে হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে।

‘বড়লোকেদের তালিকায় নিজের নাম দেখে বেশ গর্ব বোধ করলাম’, সম্পত্তি বৃদ্ধি নিয়ে দায়ের হওয়া জনস্বার্থ মামলার প্রেক্ষিতে এই মন্তব্য বিজেপি নেতা অনুপম হাজরার। ‘আমার নিজের বেতন যদি রাখতে পারতাম তাহলে আমার অনেক টাকা হতো তাই চ্যলেঞ্জ রইল।’ সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব তালিকায় নাম থাকা আরও এক বিজেপি নেতা তথা সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। উল্লেখ্য, সম্প্রতি আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন সম্পত্তি-বৃদ্ধির অভিযোগ করে ১৭ বিরোধী নেতার বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে।

এসএসসি, গরু, কয়লা পাচার মামলার তদন্তে ল্যাজেগোবরে অবস্থা রাজ্যের শাসকদল তৃণমূলের। একের পর এক নেতা-মন্ত্রীর নাম জড়াচ্ছে দুর্নীতিতে। ইতিমধ্যেই এসএসসি দুর্নীতির অভিযোগে জেলে প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। গরু পাচারের অভিযোগে সিবিআইয়ের হেফাজতে তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডল। দু’জনেরই পাহাড়-প্রমাণ সম্পত্তির হদিশ মিলেছে। বিরোধীদের দাবি, শাসকদলের একাধিক নেতা-মন্ত্রীর আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন সম্পত্তি রয়েছে।

বিজেপি নেতা অনুপম হাজরার ফেসবুক পোস্ট।

এবার এই একই অভিযোগ এনে বিরোধী ১৭ নেতার বিরুদ্ধে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে। বিজেপি নেতাদের পাশাপাশি তালিকায় নাম রয়েছে সিপিএম, কংগ্রেস নেতাদেরও। তালিকার শীর্ষে রয়েছে বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীর নাম। ঠিক তার পরেই রয়েছে সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারীর নাম। একে একে তালিকায় নাম রয়েছে লকেট চট্টোপাধ্যায়, অগ্নিমিত্রা পাল, সৌমিত্র খাঁ, অনুপম হাজরা, দিলীপ ঘোষ, জিতেন্দ্র তিওয়ারি, শীলভদ্র দত্ত, মহম্মদ সেলিম, আবদুল মান্নান, শিশির অধিকারী, শমীক ভট্টাচার্য-সহ মোট ১৭ বিরোধী নেতার।

ফেসবুকে সরব বিজেপি নেতা সৌমিত্র খাঁও।

হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করে এক আইনজীবী কত শতাংশ হারে এঁদের সম্পত্তি বেড়েছে তারও একটি তথ্য দিয়েছেন। দেখা গিয়েছে, মূলত তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে আসা নেতাদের সংখ্যাই বেশি এই তালিকায়। তালিকায় নাম রয়েছে অনুপম হাজরার। বোলপুরের প্রাক্তন এই সাংসদ তৃণমূলের টিকিটেই লোকসভায় গিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন- শক্তি বেড়েছে নিম্নচাপের, ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা একাধিক জেলায়

বেশ কিছুদিন তৃণমূলের সঙ্গে ঘর করার পর তিনি যোগ দেন বিজেপিতে। অন্যদিকে, সৌমিত্র খাঁও এক সময় তৃণমূলের সঙ্গেই ছিলেন। তিনিও পরে গেরুয়া দলে নাম লিখিয়েছিলেন। শেষবার বিষ্ণুপুর কেন্দ্র থেকে দাঁড়ানোর সময় মামলার গেরোয় ঠিকঠাক প্রচার পর্যন্ত করতে পারেননি। নিজের লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে একমাত্র খণ্ডঘোষে যাওয়ার অনুমতি পেয়েছিলেন তিনি। তবে উনিশের লোকসভা ভোটেও জয়লাভ করেন সৌমিত্র।

আরও পড়ুন- এত সম্পত্তির উৎস কী? শুভেন্দু-দিলীপ-সেলিম-সহ ১৭ বিরোধী নেতার বিরুদ্ধে মামলা

আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন সম্পত্তি বৃদ্ধি নিয়ে তাঁর নামে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হওয়ায় সরব হয়েছেন বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা। ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, ”তৃণমূলের সম্পত্তি বৃদ্ধির তালিকায় নিজের নাম দেখিয়া যারপরনাই পুলকিত হাইলাম। বড়লোকেদের তালিকায় নিজের নাম দেখে বেশ গর্বও বোধ করলাম।” অন্যদিকে, বিজেপি নেতা সৌমিত্র খাঁ ফেসবুকে লিখেছেন, ”আমার এমএলএ এবং দু’বারের সাংসদ পদের বেতনের ৫০ % টাকা পর্যন্ত সঞ্চয় রাখতে পারিনি। আমার নিজের বেতন যদি রাখতে পারতাম তাহলে আমার অনেক টাকা হতো। তাই চ্যলেঞ্জ রইল।”

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Westbengal news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Anupam hazra proud of being named in the rich men list