scorecardresearch

বড় খবর

বেনামি আবেদন মামলা: কার নির্দেশে অতিরিক্ত শূন্যপদ? এ যেন হাটে হাঁড়ি ভাঙলেন শিক্ষাসচিব!

‘বেনামি আবেদন’ মামলায় হাইকোর্টে হাজিরা দিয়ে কার্যত বোমা ফাটালেন শিক্ষাসচিব।

বেনামি আবেদন মামলা: কার নির্দেশে অতিরিক্ত শূন্যপদ? এ যেন হাটে হাঁড়ি ভাঙলেন শিক্ষাসচিব!
কলকাতা হাইকোর্ট।

ভরা আদালতে বিস্ফোরক রাজ্যের শিক্ষাসচিব মণীশ জৈন। ‘বেনামি আবেদন’ মামলায় কলকাতা হাইকোর্টে হাজিরা দিয়ে কার্যত বোমা ফাটালেন মণীশ জৈন। ‘শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর নির্দেশেই অতিরিক্ত শূন্যপদ তৈরি করা হয়েছিল’, বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাসে দাঁড়িয়ে সাফ জানালেন রাজ্যের শিক্ষাসচিব। মণীশ জৈনের কথায় ভরা আদালতে চূড়ান্ত বিস্ময় প্রকাশ করেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ও। প্রয়োজনে গোটা ক্যাবিনেটকেই পার্টি করে দেওয়ার হুঁশিয়ারি বিচারপতির।

‘বেনামি আবেদন’ মামলায় নাটকীয় মোড় কলকাতা হাইকোর্টে। কার নির্দেশে অতিরিক্ত শূন্যপদ তৈরি করা হয়েছিল? কার নির্দেশে ১৯ মে রাজ্য সরকার বিজ্ঞপ্তি দিয়ে অতিরিক্ত শূন্যপদের ঘোষণা করেছিল? সেই প্রশ্নের জবাবেই আদালতে শিক্ষাসচিব মণীশ জৈন অকপট উত্তর দিয়েছেন। এদিন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাসে দাঁড়িয়ে শিক্ষাসচিব মণীশ জৈন বলেন ”অতিরিক্ত শূন্যপদ তৈরি হয় শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর নির্দেশে।”

শিক্ষাসচিবের জবাব শুনে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ”আইনে সংস্থান নেই, তবু কীভাবে অতিরিক্ত শূন্যপদ তৈরির সিদ্ধান্ত? রাাজ্য মন্ত্রিসভার অতিরিক্ত শূন্যপদ তৈরির সিদ্ধান্তে আমি বিস্মিত। আপনি কী জানেন কমিশনের আইন অনুযায়ী বেআইনি নিয়োগ করা যায় না? তারপরেও কেন তৈরি হল বেআইনি শূন্যপদ?” ‘বেনামি আবেদন’ মামলায় শিক্ষাসচিব মণীশ জৈনকে প্রশ্ন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের।

আরও পড়ুন- অযোগ্যদের নিয়োগে ‘বেনামি’ আবেদন: SSC-রাজ্যের সুপ্রিম স্বস্তি, ডিভিশন বেঞ্চের নির্দেশে স্থগিতাদেশ

এরপরেই বিচারপতির উদ্দেশ্যে শিক্ষাসচিব ফের বলেন, ‘উপযুক্ত স্তর থেকেই নির্দেশ এসেছিল। শিক্ষামন্ত্রীর নির্দেশ এসেছিল। শিক্ষামন্ত্রী আইনি পরামর্শ নেওয়ার কথাও বলেছিলেন। আইন দফতরের সঙ্গে কথা হয়েছে। এজি-র সঙ্গেও কথা হয়েছে। এমনকী এসএসসির চেয়ারম্যানের সঙ্গেও কথা হয়। মুখ্যসচিকে জানিয়ে ক্যাবিনেটে নোট পাঠানো হয়।’

শিক্ষাসচিবের এই জবাবের পরেও এদিন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় তাঁকে কড়া ভাষায় ভর্ৎসনা করেছেন। তিনি বলেন, ”অবৈধদের নিয়োগ নিয়ে পরামর্শ দিয়েছেন আইনজীবীরা? আপনার কী মনে হয় না অবৈধদের বাঁচাতেই এই অতিরিক্ত শূন্যপদ? অবৈধদের সরানোর কোনও সিদ্ধান্ত হয়েছিল?”

আরও পড়ুন- যেতেই হচ্ছে দিল্লি? ইডি-র বিরুদ্ধে কেষ্টর আবেদন নিয়ে কী জানাল আদালত?

বেনামি আবেদন মামলায় এরপরেই চূড়ান্ত হুঁশিয়ারি দেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। রাজ্যকে অতিরিক্ত শূন্যপদ বিজ্ঞপ্তি প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি। তিনি বলেন, ”আমি বিষ্মিত! কীভাবে ক্যাবিনেটে এই ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হল? ক্যাবিনেটকে বলতে হবে যে তারা অযোগ্যদের পাশে নেই। ১৯ মে-র বিজ্ঞপ্তি প্রত্যাহার করতে হবে। না হলে এমন পদক্ষেপ করব যা গোটা দেশে কখনও হয়নি। হয় গণতন্ত্র সঠিক হাতে নেই, নয় গণতন্ত্র বিকশিত হয়নি। আমি ক্যাবিনেটকে পার্টি করে দেব, সবাইকে এসে উত্তর দিতে হবে।”

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Westbengal news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Bratya basu ordered to set more vacant seat manish jain told hc