বড় খবর

সিভিক পুলিশের তৎপরতায় রক্ষা পেল খুদে, কাঁকসার চঞ্চল এখন এলাকার ‘হিরো’

ছোট্ট অঙ্কুশকে ফিরে পেয়ে খুশি বাঁধ মানেনি বাবা-মার।

সিভিক পুলিশ চঞ্চল হালদার। ছবি- অনির্বাণ কর্মকার।

কাঁকসার মুচিপাড়া ট্রাফিক গার্ডের এই সিভিক পুলিশের তৎপরতায় উদ্ধার হল সাড়ে তিন বছরের এক শিশু। শনিবার সকালে প্রতিদিনের মতো মুচিপাড়া ট্রাফিক গার্ড পয়েন্টে কাজ করছিলেন চঞ্চল হালদার, হঠাৎই মুচিপাড়া সংলগ্ন খাটপুকুরের কাছে প্রচুর মানুষের জটলা দেখে ডিউটি ছেড়ে ছুটে আসেন তিনি। সাড়ে তিন বছরের এক শিশু তখন মা-বাবাকে দেখতে না পেয়ে কাঁদছে, সঙ্গে সঙ্গে মুচিপাড়া ট্রাফিক গার্ড পয়েন্টের এই সিভিক পুলিশ কর্মী জটলা থেকে ঐ শিশুটিকে তুলে নিয়ে চলে এসে নিজের হেফাজতে নেন।

এরপর পুলিশ ওয়ারলেসে খবর পাওয়া যায়, কোকওভেন থানার অন্তর্গত সগরভাঙ্গা গ্রামের আমবাগান এলাকা থেকে নিখোঁজ হয়ে গেছে অঙ্কুশ মণ্ডল নামে এক সাড়ে তিন বছরের শিশু। সঙ্গে সঙ্গে সহকর্মীদের দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়ে বাইকে করে অঙ্কুশকে নিয়ে চলে আসেন তাঁর আমবাগানের বাড়িতে। এরপর অঙ্কুশকে তুলে দেন তার বাবা-মায়ের হাতে। ঘটনাটি ঘটে, শনিবার সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ।

জানা গিয়েছে, সাড়ে তিন বছরের অঙ্কুশ হঠাৎ করে ঘরের উঠোনে খেলতে খেলতে নিখোঁজ হয়ে যায়। খবর যায় কোকওভেন থানায়। শুরু হয় পুলিশি তৎপরতা। ঠিক সেই সময় অংকুশের এক পড়শি বলেন, অঙ্কুশকে কোলে নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে একজনকে দেখেছেন তিনি। নিখোঁজের ঘটনা তখন রাতারাতি বদলে যায় রহস্যজনক নিখোঁজের ঘটনায়। উঠে আসে অপহরণের তত্ত্ব। মাত্র সাড়ে তিন বছরের একটি শিশু কীভাবে পৌঁছে গেল প্রায় তিন কিলোমিটার দূরে এই প্রশ্নে তখন তোলপাড় গোটা আমবাগান এলাকা।

কোকওভেন থানার পুলিশ আসে। শুরু হয় ঐ লোকটি, যার কোলে অঙ্কুশকে শেষ বার দেখা গিয়েছিল তার শারীরিক বর্ণনা নেওয়ার কাজ। কেটে গেছে প্রায় ঘন্টা খানেক, যখন পুজোর আগে পুলিশের কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ ঠিক তখন এক্কেবারে ত্রাতার ভূমিকায় হাজির আসানসোল দূর্গাপুর পুলিশের কাঁকসা ট্রাফিক বিভাগের সিভিক পুলিশ কর্মী চঞ্চল হালদার। আর কোলে তখন ছোট্ট অঙ্কুশ। তখন হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন সবাই। সন্তানকে ফিরে পেয়ে তখন আর আবেগ চেপে রাখতে পারলেন না অংকুশের বাবা মা। আর আসানসোল দূর্গাপুর পুলিশের সিভিক পুলিশ কর্মী চঞ্চলকে নিয়ে তখন হই হুল্লোড় শুরু করল অংকুশের পাড়া পড়শিরা।

এক শিশুকে উদ্ধার করে এখন বাস্তবেই হিরো চঞ্চল হালদার। স্থানীয়দের বক্তব্য, যদি চঞ্চল আর পুলিশ না থাকত তাহলে অঙ্কুশকে আর ফিরে পেত না পরিবার। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, মুচিপাড়া উড়ালপুল সংস্কারের কাজ চলছে, রয়েছে যানজট, আর এতেই হয়ত আর বাড়তি ঝুঁকি নিতে চায়নি যে বা যারা অঙ্কুশকে নিয়ে গিয়েছিল। না হলে এতো টুকু শিশুর পক্ষে এত দূরে চলে যাওয়া সম্ভব ছিল না। তবে ঘটনা যাই ঘটে থাকুক না কেন কাঁকসার ট্রাফিক সিভিক পুলিশকর্মী চঞ্চল আজ রিয়েল হিরো। পুলিশ হাজারো বিতর্কের মাঝে আসে, সমালোচনা আলোচনা সব কিছুরই শিরোনামে থাকে পুলিশ। তবে আজ পুলিশ আর সিভিক পুলিশ চঞ্চল হালদার সাড়ে তিন বছরের শিশুটিকে উদ্ধার করে আজ যে দৃষ্টান্ত তৈরি করলেন তাতে কুর্নিশ জানিয়েছেন সবাই।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and Westbengal news here. You can also read all the Westbengal news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Burdwan civic volunteer saves toddler from kidnapping gets praises as hero

Next Story
চার কেন্দ্রের ভোটে নিরাপত্তায় জোর, বাংলায় আসছে ২৭ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনীCentral Force
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com