scorecardresearch

বড় খবর

ভরা শহরে দিনদুপুরে বাস ছিনতাইয়ের চেষ্টা, পাকড়াও দুষ্কৃতী

চালক ও অন্যান্য পরিবহণ কর্মীরা বাসের জানালা দিয়ে চিত্কার শুরু করেন। এই সময় এক ট্রাফিক সিগনালে বাসটি আটকে যায়।

ভরা শহরে দিনদুপুরে বাস ছিনতাইয়ের চেষ্টা, পাকড়াও দুষ্কৃতী
সিগনালে আটকে পড়ায় বাসটি বেশিদূর যেতে পারেনি। ছবি- মধুমিতা দে।

সাইকেল বা বাইক চুরি না। একেবারে বাস ছিনতাইয়ের চেষ্টা। তা-ও আবার প্রকাশ্যে দিবালোকে। বৃহস্পতিবার এই ঘটনায় রীতিমতো তাজ্জব হয়ে গিয়েছেন মালদাবাসী। ঘটনার সময় পার্কিংয়ে রাখা ছিল দূরপাল্লার স্লিপার ক্লাসের ওই বাস। মালদা শহরের রবীন্দ্রভবন। তারই সংলগ্ন এক পেট্রোল পাম্পের পাশে বাসটি রাখা ছিল। বাসেই ঘুমোচ্ছিলেন চালক ও অন্যান্য পরিবহণ কর্মীরা। কথা ছিল রাতেই বাসটি সপ্তাহের আরও কয়েকদিনের মতো কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা দেবে।

চালক ও অন্য পরিবহণ কর্মীদের অভিযোগ, তাঁরা বাসের দরজা ভিতর থেকে লক করেননি। সেই সুযোগে দুপুরে দরজা খুলে ওই বাসে উঠে পড়ে এক দুষ্কৃতী। বাসটি চালাতেও শুরু করে দেয়। আচমকা দুলুনিতে ঘুম ভেঙে যায় সিটে শুয়ে থাকা চালকের। তিনি ঘুম চোখে প্রথমে ব্যাপারটি বুঝতে পারেননি। কিন্তু, এরপরই চালকের কেবিনের কাছে গিয়ে দেখতে পান, এক অজ্ঞাতপরিচয় যুবক স্টিয়ারিং হাতে বাসটি চালাচ্ছে। চালক বাধা দিতে চেষ্টা করলে, ওই যুবক তাঁকে প্রাণে মারারও হুমকি দেন।

এরপরই চালক ও অন্যান্য পরিবহণ কর্মীরা বাসের জানালা দিয়ে চিত্কার শুরু করেন। এই সময় মালদা শহরের এক ট্রাফিক সিগনালে বাসটি আটকে যায়। চালক ও পরিবহণ কর্মীদের চিত্কার শুনে কর্তব্যরত পুলিশকর্মীরা বাসটিকে রাস্তার পাশে দাঁড় করান। ছুটে আসেন রাস্তার আশপাশের দোকানের কর্মচারীরাও। বাসের চাকার সামনে একের পর এক ব্যারিকেড দিয়ে দেয় পুলিশ। অভিযুক্ত যুবককে বাস থেকে নেমে আসার নির্দেশ দেন পুলিশকর্মীরা। বাসের চালক ও কর্মীরা ভিতর থেকে এই সময় দরজা খুলে দিতে পারায় স্থানীয় বিভিন্ন দোকানের কর্মচারীদের কয়েকজন বাসে উঠে পড়েন। তাঁরা অভিযুক্ত যুবককে বাস থেকে নামতে বাধ্য করেন।

পুলিশ বাসটিকে নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে।

ঘটনাস্থলে চলে আসে ইংরেজবাজার থানার পুলিশও। গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্ত যুবককে। মালদা ট্রাফিক পুলিশের এসআই প্রীতম সরকার জানিয়েছেন, ধৃতের নাম সুমন সাহা। বাড়ি কোচবিহারের দিনহাটায়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জানতে পেরেছে, বাসটিকে ওই দুষ্কৃতী কালিয়াচকের দিকে নিয়ে যাচ্ছিল। সেখান থেকে ভিনরাজ্যে পাচার করার ছক ছিল তার। পুলিশ বাসটি নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে। অভিযুক্ত যুবক কোনও দুষ্কৃতীদলের সদস্য ছিল, পুলিশ তদন্ত চালিয়ে দেখছে।

এর আগে রাজ্যের সীমান্তবর্তী একাধিক জেলা থেকে রাতের অন্ধকারে লরি ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠেছে। চালককে বেহুঁশ করে লরি নিয়ে পালিয়ে গিয়েছে দুষ্কৃতীরা। এমন বেশ কয়েকটি অভিযোগ পুলিশের কাছে জমা পড়েছে। সেই জন্য বিভিন্ন হাইওয়েতে টহলদারিও বাড়ানো হয়েছে। কিন্তু, খোদ মালদা শহরের মধ্যে এভাবে বাস ছিনতাইয়ের চেষ্টা এই প্রথম বলেই পুলিশকর্মীরা জানিয়েছেন।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Westbengal news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Bus theft in malda