শিলং-এ জিজ্ঞাসাবাদ: ল্যাপটপ-মোবাইল কোথায়?

শনিবার দীর্ঘ জেরার পরেও বহু প্রশ্নের উত্তর এখনও পাননি আধিকারিকরা। প্রাথমিক ভাবে তিন সেটের প্রশ্ন তৈরি করা হয়েছিল। প্রথম সেটের প্রশ্নপর্ব শেষ হওয়ার পরেও সারদা কাণ্ড নিয়ে আঁধার কাটেনি সিবিআই আধিকারিকদের।

By: Kolkata  Updated: Feb 10, 2019, 4:52:29 PM

কলকাতার নগরপাল রাজীব কুমারের দ্বিতীয় দিনের প্রথম দফার সিবিআই জিজ্ঞাসাবাদ শেষ হয়েছে। মধ্যাহ্ন ভোজনের বিরতি নিয়ে ফের সিবিআই দফতরে প্রবেশ করেছেন রাজীব। অন্যদিকে একনাগাড়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে কুণাল ঘোষের।

কাশ্মীর থেকে ২০১৩ সালে যখন গ্রেফতার করা হল সুদীপ্ত সেন এবং দেবযানী মুখোপাধ্যায়কে, সে সময় একটি ল্যাপটপ এবং পাঁচটি মোবাইল বাজেয়াপ্ত করেছিল পুলিশ। সেগুলি অভিযুক্তের পরিবারকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সারদা কাণ্ডের তদন্তের স্বার্থে তৈরি হওয়া তৎকালীন বিশেষ তদন্তকারী দল বা এসআইটি-র দায়িত্বে থাকা রাজীব কুমার। ফরেনসিক পরীক্ষা ছাড়া কীভাবে বাজেয়াপ্ত ল্যাপটপ, মোবাইল অভিযুক্তদের পরিবারকে ফিরিয়ে দেওয়া হল, শোনা যাচ্ছে এই নিয়ে সিবিআই-এর প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়েছে পুলিশ কমিশনারকে।

রবিবার ফের কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে জিজ্ঞাসাবাদ করা শুরু করেছে সিবিআই। সকাল ১০.২০ নাগাদ নাগাদ শিলং-এর সিবিআই দফতরে পৌঁছন রাজীব কুমার। সূত্রের খবর অনুযায়ী, প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ কুণাল ঘোষের সঙ্গে নগরপালকে মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার সম্ভাবনা রয়েছে। শনিবার থেকেই সিবিআই-এর ডাকে শিলং-এই রয়েছেন সারদা কাণ্ডে আপাতত জামিনে মুক্ত সাংবাদিক কুণাল ঘোষ।  ইতিমধ্যে, শনিবার সাড়ে সাত ঘণ্টা ধরে জেরা করা হয়েছে রাজীব কুমারকে। রবিবার সকাল ১১.৩০ থেকে ফের শুরু হয়েছে জিজ্ঞাসাবাদ পর্ব।

আরও পড়ুন, সাড়ে সাত ঘণ্টা জেরার পর সিবিআই দফতরের বাইরে রাজীব কুমার, রবিবার ফের জিজ্ঞাসাবাদ

শনিবার দীর্ঘ জেরার পরেও বহু প্রশ্নের উত্তর এখনও পাননি আধিকারিকরা। প্রাথমিকভাবে তিন সেটের প্রশ্ন তৈরি করা হয়েছিল। প্রথম সেটের প্রশ্নপর্ব শেষ হওয়ার পরেও সারদা কাণ্ড নিয়ে আঁধার কাটেনি সিবিআই আধিকারিকদের। তাই রবিবার ফের তলব করা হয়েছে নগরপালকে। চিট ফান্ড কেলেঙ্কারির তদন্তে যে এসআইটি গঠন করা হয়েছিল, তার দায়িত্বে ছিলেন রাজীব কুমার। সেই সময় গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রমাণ লোপাটের অভিযোগ রয়েছে নগরপালের বিরুদ্ধে। রবিবার সেই নিয়েই জিজ্ঞাসাবাদ করা শুরু করেছে সিবিআই।

উল্লেখ্য, রাজীব কুমারের সঙ্গে শিলং গিয়েছেন তিন পুলিশ আধিকারিকও। ওই আধিকারিকদের মধ্যে রয়েছেন স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের ডিসি মুরলীধর শর্মা এবং অতিরিক্ত কমিশনার জাভেদ শামিম।

রবিবার রাজীব কুমারের আইনজীবী জানিয়েছেন, সিবিআই-এর তদন্তে সাহায্য করছেন কলকাতার নগরপাল।

কলকাতা পুলিশ সূত্রে খবর, নগরপালের কথা মতোই সিবিআই এর সঙ্গে তাঁর প্রশ্নোত্তর পর্ব ভিডিওবন্দি করা হচ্ছে। রাজীব কুমারের আগেই সিবিআই দফতরে পৌঁছেছেন সারদা দুর্নীতিতে অভিযুক্ত প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ কুণাল ঘোষ। দফতরে প্রবেশের আগে তিনি জানিয়েছেন, সিবিআইকে যথাসাধ্য সাহায্য করার চেষ্টা করবেন।

শনিবার সকাল ১১.২০ নাগাদ শিলং-এ কলকাতার পুলিশ কমিশনারের বয়ান রেকর্ড করা শুরু করেন সিবিআই আধিকারিকরা। সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে, এদিন রাজীব কুমারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন সেট প্রশ্ন তৈরি করে সিবিআই। কলকাতার নগরপালকে ৩৫-৪০টি প্রশ্ন করা হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। নগরপালের বয়ান রেকর্ড করার সময় উপস্থিত থেকেছেন ডিএসপি তথাগত বর্ধন এবং এসপি পিসি কল্যাণ। ডিএসপি বর্ধনের নেতৃত্বেই পশ্চিমবঙ্গে এই মামলার তদন্ত চালাচ্ছে সিবিআই।

সারদা কেলঙ্কারির তদন্তে রাজীবের মতো দুঁদে আইপিএস-কে জিজ্ঞাসাবাদ সিবিআই-এর কাছে রীতিমতো ‘বড় পরীক্ষা’। সে পরীক্ষায় পাশ করতে তাই চেষ্টার খামতি রাখেননি তদন্তকারীরা। প্রশ্নজালে নগরপালকে বিদ্ধ করে আসল তথ্য খোঁজার চেষ্টা করেছেন তদন্তকারীরা।

রবিবার সকাল থেকেই শিলং-এর অকল্যান্ড রোড এলাকায় সিবিআই দফতর চত্বরে কড়া নিরাপত্তা জারি রয়েছে। সিবিআই সূত্রে জানা গিয়েছে শনিবারের দীর্ঘ জেরার পরেও বহু প্রশ্ন থেকে গিয়েছে আধিকারিকদের মনে। এর আগে কুণাল ঘোষকে একাধিকবার সারদা কাণ্ডে প্রশ্ন করেছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। কুণাল ঘোষের বয়ানের সঙ্গে মিলিয়ে দেখা হবে রাজীব কুমারের বয়ান।

Get all the Latest Bengali News and West Bengal News at Indian Express Bangla. You can also catch all the West-bengal News in Bangla by following us on Twitter and Facebook


Title: CBI questioning Rajeev Kumar and Kunal Ghosh: সিবিআই জেরার মুখে রাজীব-কুণাল, শিলং-এ চলছে বয়ান রেকর্ড

Advertisement