সভায় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে সরাসরি বড়সড় অভিযোগ মহিলা দলীয় কর্মীর, দুঃখপ্রকাশ সুপারস্টার মিঠুনের: Complaints against the bjp leadership, regret by Mithun chakraborty | Indian Express Bangla

সভায় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে সরাসরি বড়সড় অভিযোগ মহিলা দলীয় কর্মীর, দুঃখপ্রকাশ সুপারস্টার মিঠুনের

পঞ্চায়েত ভোটের আগে জেলায়-জেলায় ঘুরে প্রচারে বিজেপির তারকা নেতা মিঠুন চক্রবর্তী।

সভায় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে সরাসরি বড়সড় অভিযোগ মহিলা দলীয় কর্মীর, দুঃখপ্রকাশ সুপারস্টার মিঠুনের
বিজেপির তারকা নেতা মিঠুন চক্রবর্তী।

পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে বাংলা চষে বেড়াচ্ছেন বিজেপি নেতা অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। করছেন সাংগঠনিক বৈঠক, সভা-সমাবেশ। আসানসোলের ঝাঝোরিয়ার জনসভায় হাজির বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে সরাসরি কথা বললেন সুপারস্টার। সভাতেই মিঠুন বলতে থাকেন, ‘আর কে বলবেন বলুন। একটু এগিয়ে আসুন বলুন….।’ তখনই বিজেপি কর্মীর অভিযোগ-অনুযোগ শুনে দুঃখপ্রকাশ করেন মিঠুন। কীভাবে দল এগিয়ে চলবে মঞ্চ থেকেই সেই নিদানও দেন অভিনেতা।

জনসভায় হাজির বিজেপি কর্মী সুপারস্টারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘নমস্কার। আমি বারাবনি বিধানসভা থেকে বলছি। ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের পরে আমাদের কর্মীরা প্রচণ্ড আত্যাচারিত হয়েছেন। সেখানে ওপর থেকে সেভাবে কোনও হেল্প পাইনি। তাঁদেরকে ফোনে পাওয়া যায়নি। অনেকরকম অসুবিধা হয়েছে।’ সেখানেই থামেননি ওই মহিলা দলীয় কর্মী। তিনি বলেন, ‘দ্বিতীয়ত এখন সাধারণ মানুষ বলছে তাঁরা সঙ্গে আছে। কিন্তু আমরা কাউকে সামনে আনতে পারছি না। দু’একজন কর্মী ভয় পেয়ে যাচ্ছে। বারাবনি বিধানসভায় কর্মীরা ভীষণভাবে ভীত-সন্ত্রস্ত। তাঁদের যদি কোনওরকম ভাবে গাইড না দেন। ওপর নেতৃত্ব যদি বলে দেন তাঁদের কীভাবে সামনে আনতে পারি। বিরোধী দলনেতা বুথে বুথে ৫০ জন কর্মীর কথা বলছেন আমাদের বিধানসভায় বুথে বুথে ৫ জন কর্মীকে এক করতে পারছি না।’ ওই মহিলা কর্মীর অভাব-অভিযোগ শোনার পর পাশের আরেক বিজেপি কর্মী বলে ওঠেন, ‘ঠিক বলেছেন।’

আরও পড়ুন- পঞ্চায়েত ভোটের আগে সামাজিক প্রকল্পের ওপর ভর করেই এগোতে চাইছে কেজরিওয়ালের আপ

এবার জবাব দিতে শুরু করেন বিজেপি নেতা মিঠুন। এক-এক করে প্রতিটি বিষয়ের জবাব দিতে থাকেন তিনি। সুপারস্টার বলেন, ‘হিংসা হয়েছে। প্রথমে দেখতে হবে হিংসার কারণ কি। যখন কারও কাছে কিছু দেওয়ার থাকে না তখন হিংসা করে গায়ের জোর দেখায়। তৃণমূলের কাছে দেওয়ার আর কিছু নেই। কাউকে ফোনে পাননি, দেখা করতে পারেননি এটা শুনে কষ্ট পাচ্ছি। দুঃখ পাচ্ছি। সবাই আসতে চেয়েছে আসতে পারেনি। বিধায়কদের আসতে দেয়নি। সব কিছুর পরেও বলছি একটা লোক আছে। সেই লোকটা একা ওপরে বসে আছে। ওই লোকটার নাম হল ভোলেদানি। তার ওপর ভরসা করুন। ওই দানি সব খতম করে দেবে।’

আরও পড়ুন- লক্ষ্য স্থির, হেঁটেই সুদূর লাদাখের পথে বাংলার যুবক

দলে লোক আসা নিয়ে মিঠুন বলেন, ‘মানুষকে নিয়ে আসার জন্য সবসময় চেষ্টা করতে হবে। পাহাড় না এলে পাহাড়ের কাছে পৌঁছাতে হবে। আমাকে কেউ সুপারস্টার করেনি। না মিডিয়া করেছে, মানুষ করেছে সুপারস্টার। ওদের ভালবাসাতে আমি আজ মিঠুন চক্রবর্তী। আমি ওদের কাছে পোঁছেছি। আপনাকে পাহাড়ের কাছে পৌঁছাতে হবে। পাহাড় তো আসবে না। ক্রমাগত চেষ্টা করুন। তারপর যদি না হয় আপনি কার সঙ্গে দেখা করতে চান আপনি নাম বলুন।’ জেলা সভাপতির সঙ্গে দেখা করার কথা বলেন ওই কর্মী। মিঠুন তাঁর পাশে ডেকে নেন জেলা সভাপতি দিলীপ দে-কে। অভিনেতা বলেন, ‘আমি কথা দিচ্ছি দিলীপদা আপনার সঙ্গে দেখা করবেন। যদি উনি ব্যস্ত থাকেন আপনি দিলীপদার সঙ্গে করবেন। আমিও খবর রাখব আপনি গেছেন কিনা। এটা আমার প্রমিস।’

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Westbengal news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Complaints against the bjp leadership regret by mithun chakraborty517960

Next Story
পঞ্চায়েত ভোটের আগে সামাজিক প্রকল্পের ওপর ভর করেই এগোতে চাইছে কেজরিওয়ালের আপ