বড় খবর

মালদহ মেডিক্যালে রাজ্যের প্রথম ওমিক্রন আক্রান্তের চিকিৎসা, জেলাজুড়ে আতঙ্ক

বাংলার প্রথম ওমিক্রন আক্রান্ত রয়েছেন মালদহে।

housewife cut the genitals of the young neighbor in ratua malda
মালদহ মেডিক্যালেই ভর্তি আক্রান্ত যুবক।

বাংলার প্রথম ওমিক্রন আক্রান্ত রয়েছেন মালদহে। আর এতেই গোটা জেলাজুড়ে আতঙ্ক। ইতিমধ্যেই আক্রান্ত শিশুসহ তার পরিবারের চার সদস্যকে মালদা মেডিক্যাল কলেজের করোনা বিভাগে ভর্তির ব্যবস্থা করেছে স্বাস্থ্য দফতর। এছাড়া, কালিয়াচক ১ নম্বর ব্লকের ঘোলাকান্দি এলাকায় চলছে তদারকি। সংক্রমণ আর কারোর মধ্যে ছড়িয়েছে কিনা তা দেখা হচ্ছে।

স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, কয়েকদিন আগেই মুর্শিদাবাদের ওই পরিবারটি আবুধাবি থেকে বিমানে হায়দ্রাবাদে নামেন। হায়দ্রাবাদে তাদের করোনার পরীক্ষা হয়েছিল। কিন্তু সঙ্গে সঙ্গে রিপোর্ট মেলে নি। এরপর ওই পরিবারটি কলকাতায় চলে আসে। সেখান থেকেই তাদের ট্রেনে বাড়ি মুর্শিদাবাদে চলে যান। এরপর ওই পরিবার গত চার দিন আগে মালদহের কালিয়াচক থানার ঘোলাকান্দি এলাকায় আত্মীয়ের বাড়িতে ঘুরতে যান।

আরও পড়ুন- বাংলায় প্রথম ওমিক্রন আক্রান্তের হদিশ, সংক্রমিত ৭ বছরের শিশু

এরই মধ্যে তেলেঙ্গানা স্বাস্থ্য দফতর ওই শিশুর শরীরে ওমিক্রমের উৎসের কথা এ রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরকে জানায়। বিষয়টি জানাজানি হয়। খোঁজ নিয়ে জানা যায় ওই পরিবারটির প্রকৃত বাড়ি মুর্শিদাবাদ জেলায়। তাঁরা কালিয়াচকের এক আত্মীয়র বাড়িতে কয়েকদিন ধরে ঘুরতে এসে রয়েছেন । এরপরই বুধবার বিকালে তড়িঘড়ি ওই পরিবারটির খোঁজ নেই স্বাস্থ্য দফতর। ওই এলাকায় গিয়ে গোটা পরিবারের শারীরিক পরীক্ষা করার পর তাদের মেডিকেল কলেজে ভর্তির ব্যবস্থা করা হয়েছে।

জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক পাপড়ি নায়েক জানিয়েছেন, দুবাই ফেরত সাত বছরের এক শিশুর দেহে ওমিক্রন ভাইরাসের রয়েছে বলে জানতে পেরেছি। ওই শিশু সহ তার মা, বাবা, দিদি সমেত মোট ৬ জনের লালার নমুনা সংগ্রহ করা হয় । আপাতত চারজনকে মালদা মেডিক্যাল কলেজের করোনা বিভাগে ভর্তির ব্যবস্থা করা হয়েছে। ওই শিশু ও তার পরিবারের লালার নমুনা সংগ্রহ করেছে মেডিকেল টিম। 

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and Westbengal news here. You can also read all the Westbengal news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Malda medical will be the first hospital in bengal to treat omicron

The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com