বড় খবর


ক্ষমা চাইতেই হবে, রাতভর ঘেরাও থাকার পরেও অটল প্রেসিডেন্সির উপাচার্য

“‘আমরা ভুল করেছি’, শুধু এই বিবৃতিটুকু দিতে বলা হয়েছে। তাতেও ওরা রাজি নয়। ওরা যদি ভুল স্বীকার না করে, অনশন না প্রত্যাহার করে, তাহলে আমাদেরও কিছু করার নেই।”

অচসাবস্থা কাটল প্রেসিডেন্সির (ছবি- শশী ঘোষ)

প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের অচলাবস্থা কাটার নাম নেই। রাতভর উপাচার্যকে ঘেরাও করে রাখলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা। কিন্তু ঘেরাও থাকার পরও নিজেদের অবস্থানে অনড় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। কর্তৃপক্ষের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, আগে অনশন প্রত্যাহার করতে হবে, তারপর অন্য কথা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনের সময়ে গেট আটকে রাখার অভিযোগে যে তিন ছাত্রের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তা প্রত্যাহারের দাবিতে অনশন করছেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রছাত্রীদের একাংশ। কিন্তু উপাচার্য অনুরাধা লোহিয়া স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, আগে ক্ষমা চাইতে হবে দোষী ছাত্রদের। তিনি বলেন, “সমাবর্তনের সময়ে গেট আটকানো ভুল কাজ ছিল। প্রেসিডেন্সির ছাত্রছাত্রীরা বহু সময়ে এমন বহু কাজ করেন, যা ঠিক নয়। কিন্তু আমরা সেগুলো ক্ষমা করেদিই। কিন্তু সমাবর্তনের দিন যা হয়েছে, তা মারাত্মক ভুল। হয়তো অনেকে সে ঘটনায় দোষী কিন্তু আমাদের কাছে নির্দিষ্ট প্রমাণ যাদের বিরুদ্ধে রয়েছে, তাদেরকেই আমরা চিহ্নিত করেছি।”

অনুরাধা লোহিয়া বলেছেন, “‘আমরা ভুল করেছি’, শুধু এই বিবৃতিটুকু দিতে বলা হয়েছে। তাতেও ওরা রাজি নয়। ওরা একবার ভুল স্বীকার করলে আমরা ওদের ক্ষমা করে দেব। প্রথমে ঠিক হয়েছিল ওদের ২ বছর সাসপেন্ড করা হবে, পরে তা কমিয়ে আমরা ৬ মাস করেছি। কিন্তু ওরা যদি ভুল স্বীকার না করে, অনশন না প্রত্যাহার করে, তাহলে আমাদেরও কিছু করার নেই।”

এদিকে ছাত্রছাত্রীরা বৃহস্পতিবার প্রেসিডেন্সির গেটের সামনে গণ জমায়েতের ডাক দিয়েছে।

Web Title: Presidency university vc gherao three students suspension withdrawal movement

Next Story
রেলের ‘ভুলে’ দাশনগরে মাঝের লাইনে ট্রেন! অভিযুক্ত কেবিন ম্যানrail roko, রেল অবরোধ
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com