scorecardresearch

বড় খবর

কলকাতার খুব কাছেই এতল্লাট, ইংরেজদের নজর এড়িয়ে এখানেই বহু গুপ্তসভা করেছেন নেতাজি

নেতাজির জন্মদিনে ঘুরে আসুন তাঁর পৈতৃকভিটে থেকে। সামনে থেকে দেখুন সোনালী ইতিহাস!

কলকাতার খুব কাছেই এতল্লাট, ইংরেজদের নজর এড়িয়ে এখানেই বহু গুপ্তসভা করেছেন নেতাজি
নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর পৈতৃকবাড়ি।

কলকাতার ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে দক্ষিণ ২৪ পরগনার সুভাষগ্রামের কোদালিয়ায় রয়েছে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর পৈতৃক বাড়ি। এই বাড়ির সঙ্গে সুভাষচন্দ্র বসুর নানা স্মৃতি জড়িয়ে রয়েছে। তিনি একাধিকবার এই বাড়িতে এসেছেন। ইংরেজদের নজর এড়িয়ে এই বাড়ির পুকুরপাড়ে ও বাগানবাড়িতে বসে গুপ্ত সমিতির সভাও করেছেন। আগামিকাল অর্থাৎ ২৩ জানুযারি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিন। তাঁর জন্মদিনে ঘুরে আসুন তাঁরই পৈতৃক ভিটেয়। কীভাবে যাবেন এবং সেখানে কী দেখবেন? বিস্তারিত হদিশ রইল।

সুভাষগ্রামের কোদালিয়া গ্রামে নেতাজির পৈতৃকবাড়ির ছবি।

আগামিকাল সোমবার দেশজুড়ে নোজির সুভাষচন্দ্র বসুর ১২৭তম জন্মদিন পালিত হবে। কলকাতার এলগিন রোডের বাড়ি ছাড়াও দক্ষিণ ২৪ পরগনার সুভাষগ্রামের কোদালিয়ায় রয়েছে সুভাষচন্দ্র বসুর পৈতৃক বাড়ি। নেতাজির বাবা জানকীনাথ বসু এই বাড়ি তৈরি করেছিলেন। আগে বাড়িটি সংস্কারের অভাবে ধুঁকছিল। তবে রাজ্যের বর্তমান সরকার বাড়িটির আমূল সংস্কার ঘটিয়েছে। ঢেলে সাজানো হয়েছে বাড়িটিকে, তবে আগের আদল রয়েছে অক্ষুন্ন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই বাড়িটিকে হেরিটেজ হিসেবে ঘোষণা করেছিলেন। তারপর থেকেই হেরটেজ কমিশন ও পূর্ত দফতর বাড়িটির সংস্কারে হাত লাগায়।

পৈতৃকবাড়িতে এলে এই আসবাবগুলিও ব্যবহার করতেন নেতাজি।

প্রতি বছর ধুমধাম করে রাজ্য সরকারের উদ্যোগে সুভাষগ্রামের কোদালিয়া নেতাজির পৈৃতক ভিটেয় তাঁর জন্মদিন পালন করা হয। আগামিকালও সাড়ম্বরে পালিত হবে নেতাজির জন্মজয়ন্তী। নেতাজি অবশ্য একটানা বেশিদিন এই বাড়িতে থাকেননি। তবে মাঝেমধ্যেই তিনি এখানে আসতেন এবং খুব কাছের কয়েকজন মানুষের সঙ্গে দেখাও করতেন।

কী দেখবেন কোদালিয়ায় নেতাজির পৈতৃক বাড়িতে?

রাজ্য সরকারের উদ্যোগে কোদালিয়ায় সুভাষচন্দ্র বসুর পৈতৃক বাড়িটির আমূল সংস্কার করা হয়েছে। এখানেই গড়ে তোলা হয়েছে নেতাজির স্মৃতি বিজড়িত সংগ্রহশালা। সেই সংগ্রহশালায় নেতাজির ব্যবহৃত নানা জিনিস সংরক্ষিত রয়েছে। নেতাজি এখানে এলে যে যে জিনিসগুলি ব্যবহার করতেন সেগুলি যত্ন সহকারে সংরক্ষণ করা হয়েছে এই বাড়িতেই। এছাড়াও তাঁর বাবা-মায়ের ব্যবহৃত নানা সামগ্রীও সংরক্ষিত রয়েছে। চাইলে ইতিহাসের গুরূত্বপূর্ণ এই নিরদর্শনগুলি নিজের চোখে একবার দেখে আসতেই পারেন।

বাঁদিকে নেতাজি ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের ব্যবহৃত সামগ্রী। ডানদিকে নেতাজির ব্যবহৃত খাটের ছবি।

কীভাবে পৌঁছবেন সুভাষগ্রামে নেতাজির পৈতৃকভিটেয়?

কলকাতা থেকে মাত্র ২৮ কিলোমিটার দূরে রয়েছে সুভাষগ্রাম। রেলপথে গেলে শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখায় ক্যানিং ও বজবজ লোকাল বাদ দিয়ে যে কোনও ট্রেন ধরুন। সুভাষগ্রাম স্টেশনে নেমে রিক্সা বা অটোয় কোদালিয়ায় সুভাষচন্দ্র বসুর পৈতৃক বাড়িতে পৌঁছে যেতে পারেন। সুভাষগ্রাম স্টেশন থেকে কোদালিয়ায় নেতাজির বাড়ির দূরত্ব মেরেকেটে মিনিট ১৫। কলকাতার দিক থেকে সড়কপথে গেলে বারুইপুরের রাস্তা ধরুন। চৌহাটির মোড় পেরোলে পড়বে কোদালিয়া মোড়। মেইন রাস্তা থেকে বাঁদিকে ঢুকে পড়ুন। কিছুটা গেলেই পৌঁছে যেতে পারবেন সুভাষচন্দ্র বসুর পৈতৃক বাড়িতে।

আরও পড়ুন- বাড়ছে ফলন, চাহিদাও তুঙ্গে, রঙিন ফুলকপির চাষে আয়ের নতুন দিশা

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Westbengal news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Subhash chandra boses ancestral home at kodalia in subhashgram537008