বড় খবর

শুভেন্দুর সভায় সভাধিপতি, নিরাপত্তারক্ষী কাড়ল প্রশাসন

শুভেন্দু যোগ ও দলের প্রতি অবমাণনাকর কার্যকলাপের জন্য জেলা পরিষদের তৃণমূল সভাধিপতি মোশারফের বিরুদ্ধে শাসক দল ও সরকারের এই পদক্ষেপ বলে মনে করা হচ্ছে।

তৃণমূলের সঙ্গে ‘দূরত্ব’ তৈরি হওয়া শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে দলীয় নেতার স্মরণ সভায় হাজির ছিলেন মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদের সভাধিপতি মোশারফ হোসেনের মধু। দলকে কার্যত চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিতেই সভাধিপতির এহেন আচরণ বলে জানা গিয়েছিল। এরপরই সোমবার গভীর রাতে মুর্শিদাবাদের সভাধিপতির নিরাপত্তারক্ষী প্রত্যাহার করা হয়। কোনও কিছু না জানিয়েই এই প্রত্যাহার বলে দাবি করেছেন মোশারফ হোসেন। শুভেন্দু যোগ ও দলের প্রতি অবমাণনাকর কার্যকলাপের জন্য জেলা পরিষদের তৃণমূল সভাধিপতি মোশারফের বিরুদ্ধে শাসক দল ও সরকারের এই পদক্ষেপ বলে মনে করা হচ্ছে।

কেন তাঁর নিরাপত্তা রক্ষী ফিরিয়ে নিল পুলিশ? এ সম্পর্কে অবশ্য পুলিশ প্রশাসনের উপরই দায় ঠেলেছেন মুর্শিদাবাদের সভাধিপতি। মোশারফের কথায়, ‘গভীর রাতে নিরাপত্তা রক্ষীকে ডেকে সাড়া পাইনি। সকালে পুলিশ সুপারকে ফোন করে জানতে পারি আমার নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা দু’জন নিরাপত্তা রক্ষীকে ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে। কেন হয়েছে সে বিষয়ে আমাকে কিছু ব্যাখ্যা দেওযা হয়নি। পুলিশ সুপারই এর উত্তর দিতে পারবেন।’ রাজনীতির কারবারিদের মতে, মোশারফ হোসেনের বিরুদ্ধে দল বিরোধী কার্যকলাপের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণের ইঙ্গিত দিয়েছিল জেলা তৃণমূল। সেই মতো পদক্ষেপ করার শুরু করে দিল জোড়া-ফুল শিবির।

নিরাপত্তা রক্ষী প্রত্যাহারের বিষয়টি যদিও মেইলে রাজ্যপাল ও মুখ্যমন্ত্রীকে জানিয়েছেন মুর্শিদাবাদের জেলা সভাধিপতি। রাজ্যপাল ধনকড় এক্ষেত্রে মোশারফের পাশে থাকলেও মুখ্যমন্ত্রী বা রাজ্য প্রশাসনের তরফে এখনও কোনও জবাব আসেনি বলে দাবি করেছেন সভাধিপতি। এ প্রসঙ্গে রাজ্যপাল টুইটে রাজ্য পুলিশ এবং স্বরাষ্ট্র দফতরকে আক্রমণ করে বলেছেন, এদের রাজনীতিকরণ হয়েছে। যা অসংবিধানিক বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। গণতন্ত্রের স্বার্থে প্রশাসন এবং পুলিশকে অবশ্যই রাজনৈতিকভাবে নিরপেক্ষ থাকতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

পতাকাহীন দলীয় সভায় শুভেন্দু আধিকারীর সঙ্গে থাকার কারণেই কী এই পরিণতি হল? নিজের অপমানের কথা তুলে ধরে মোশারফ জানিয়েছেন, ‘শুভেন্দু অধিকারী দলের নেতা ও রাজ্যের মন্ত্রী। দলেই রয়েছেন তিনি। তাহলে তাঁর উপস্থিতি নিয়ে কেন সমস্যা তৈরি হবে?’ মোশারফের কথায়, ‘আমি নিরাপত্তা নিয়ে রাজনীতিতে আসিনি, সভাধিপতি হইনি, জেলার মানুষের প্রতি আমার আস্থা রয়েছে।’

গত কয়েকমাস ধরেই শুভেন্দু-তৃণমূল দূরত্ব বাড়ছে। সোমবার নন্দীগ্রামে তৃণমূলে তিনটি সভায় তা প্রকাশ্যে। নন্দীগ্রামে শুভেন্দু আধিকারির অরাজনৈতিক সভার পর মন্ত্রী ঘনিষ্ট ঘনিষ্ট আরও দুই তৃণমূল নেতা আবু তাহের ও মেঘনাথ পালের নিরাপত্তারক্ষী প্রত্যাহার করা হয়েছে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Suvendu adhikary mosharraf hossain murshidabad security withdrawn mamata baneerjee

Next Story
নতুন তিনটি পুলিশ ব্যাটেলিয়ন পাচ্ছে রাজ্য
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com