বড় খবর

করোনা কাঁপুনির দোসর সোয়াইন ফ্লু, রাজ্যে আক্রান্ত ২২

এইচ-ওয়ান-এন-ওয়ান জীবাণু আক্রান্তের সংখ্যা আগামী দিনে আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

রাজ্যে নতুন করে ৯ জনের শরীরে মিলেছে এইচ-ওয়ান-এন-ওয়ান জীবাণু।
করোনায় রক্ষে নেই, দোসর সোয়াইন ফ্লু। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য অনুশারে বিগত দু’দিনে বাংলায় সোয়াইন ফ্লু আক্রান্তের সংখ্যা ২২। এই সংখ্যা আগামী দিনে আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

রাজ্যে নতুন করে ৯ জনের শরীরে মিলেছে এইচ-ওয়ান-এন-ওয়ান জীবাণু। এর মধ্যে রয়েছেন মেটিয়াবুরুজের বাসিন্দা একই পরিবারের ৬ জন। বর্তমানে তাঁরা প্রত্যেকেই বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

স্বাস্থ্য দফতর জানিয়েছে যে, গত শুক্রবার দুই শিশু সহ সোয়াইন ফ্লু-তে এ রাজ্যে মোট ১৩ জন আক্রান্ত হয়েছিলেন। শনিবারই সেই সংখ্য়া এক লাফে পৌঁছে গিয়েছে ২২-এ। স্বাস্থ্য দফতরের এক শীর্ষ আধিকারিকের কথায়, ‘কোরনাভাইরাস ও সয়োয়াই ফ্লু-র উপসর্গ প্রায় একই। তাই মানুষকে অতি সচেতন থাকতে হবে। সোয়াই ফ্লু-তে আক্রান্তের সংখ্যা আগামী দিনে আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা।’

সোয়াইন ফ্লু আক্রান্তরা অধিকাংশই কলকাতা ও রাজ্যের দক্ষিণ অংশের বাসিন্দা। স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকের থেকে পাওয়া তথ্য অনুশারে, মণিপুরের এক মহিলা, হুগলির এক ১০ বছরের বালক, ওড়িশার ২৩ মাসের শিশুর শরীরে মিলেছে এইচ-ওয়ান-এন-ওয়ান জীবাণু। করোনা মোকাবিলায় ইতিমধ্যেই একাধিক পদক্ষেপ করেছে রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুন: রাজারহাটে আপৎকালীন ‘কোয়ারান্টাইন’ কেন্দ্র, জেলায় জেলায় আইসোলেশন ওয়ার্ড

নবান্ন সূত্রে খবর, এ জন্য কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের অধীন চিত্তরঞ্জন ন্যাশনাল ক্যান্সার ইনস্টিটিউটের রাজারহাটের সেকেন্ড ক্যাম্পাসটি নিতে চাইছে রাজ্য। এই ভবনটি নির্মাণের জন্য রাজ্য সরকারই জমি দিয়েছিল। এখনও চালু না হলেও নয় তলা ভবনের ৩০০ বেডের এই হাসাপাতালের কাজ সম্পূর্ণ হয়ে গিয়েছে। তাই এখানেই আপাতত ‘কোয়ারান্টাইন’ কেন্দ্র তৈরি করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে রাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ড প্রস্তুত রাখা হয়েছে করোনা ভাইরাসের আক্রান্তদের জন্য। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশ মেনে তড়িঘড়ি বহরমপুরের পুরনো মাতৃসদন হাসপাতালে মুর্শিদাবাদ জেলায় স্বাস্থ্য দফতর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট আইসোলেসন ওয়ার্ড চালু করেছে। হুগলি, বর্ধমান, জলপাইগুড়ি-সহ জেলার হাসপাতালগুলিতেও আইসোলেসন ওয়ার্ড চালু রাখা হয়েছে। বর্ধমান, কাটোয়া, কালনা, হাসপাতালে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে পূর্ব বর্ধমানের কালনা ও কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ড খোলা হয়েছে। ইতিমধ্যেই বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেও খোলা হয়েছে বিশেষ আইসোলেশন ওয়ার্ড।

সোয়াইন ফ্লু-র বাড়বাড়ন্ত রুখতেই সজাগ রাজ্য প্রশাসন। মেডিক্যাল কলেজ ও প্রতিষ্ঠানগুলির সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করছে স্বাস্থ্য দফতর।

Read the full story in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Swine flu in west bengal %e0%a7%a8%e0%a7%a8 people h1n1 test positive

Next Story
এবার ডেঙ্গির থাবা মেডিক্যাল কলেজে, আক্রান্ত চার পড়ুয়াMedical college Boys hostel Express Photo Shashi Ghosh
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com