বড় খবর


‘স্বীকৃত শিক্ষক হওয়ার স্বপ্ন, স্বপ্নই রয়ে গেল”

“এসএসসিতে উত্তীর্ণ হয়ে বসে রইলাম দীর্ঘ কত মাস। চাকরি পেলাম না। জানতে পারি আমি একা নই, আমার মত বহু এসএসসি প্রার্থী বেকার হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।”

 

এস এস সি র জন্য খুব পড়াশুনা করেছিলাম। দিন রাত এক করে নিজের লক্ষ্যে স্থির ছিলাম। ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন ছিল, শিক্ষক হব। শিক্ষক হয়েছি, তবে স্রেফ খাতায় কলমে। জানিও না আদৌ স্বপ্ন কোনোদিন পূরণ হবে কিনা।” শিক্ষক দিবসে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলার কাছে দুঃখ প্রকাশ করলেন এসএসসি উত্তীর্ণ মহিদুল ইসলাম। “এসএসসিতে উত্তীর্ণ হয়ে বসে রইলাম দীর্ঘ কত মাস। চাকরি পেলাম না। জানতে পারি আমি একা নই, আমার মত বহু এসএসসি প্রার্থী বেকার হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।”

প্রেস ক্লাবের সামনে চাকরির দাবিতে এসএসসি কর্মপ্রার্থীদের সঙ্গে ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে অনশন-অবস্থানে বসেন মহিদুল। অনশন শুরু হওয়ার পর থেকে ডেঙ্গু, রক্ত-আমাশা, গর্ভপাতের মতো নানা ভয়াবহ ঘটনার সাক্ষী থাকে এই আন্দোলন। এমনকী অবস্থানকারীদের ত্রিপল টাঙানোর অনুমতিও দেওয়া হয়নি। ঝড়-জলে সেখানে ফুটপাথের ওপরেই থাকতে হয়।

আরও পড়ুন: রক্ত আমাশা-ডেঙ্গু-গর্ভপাত, কিন্তু এসএসসি প্রার্থীদের অনশন চলছেই

“চাকরি সমস্যার সমাধান না হলে কোনওরকম ভাবে অনশন তোলা হবে না, স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিলাম আমরা। অবশেষে মুখ্যমন্ত্রীর ভরসায় অনশন প্রত্যাহার করি সেদিন। কিন্তু আজও স্বীকৃত শিক্ষক হতে পারি নি। তাই স্কুলে থেকে ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে শিক্ষকদিবসও পালন করা হলো না। তবে শুনেছি সরকার কাজ শুরু করেছে, কাউন্সেলিংয়ের পর কয়েকজন চাকরি পেয়েছেন,” বলছেন মহিদুল।

শিক্ষক দিবসের দিন এসএসসি কর্মপ্রার্থী অর্পিতা দাস বলেন, “সব আশা ছেড়ে দিয়েছি। অনশন করেছিলাম, লাভ হয়নি এখনও, তাই সেসব থেকে আমি এখন অনেক দূরে। বাবা অসুস্থ, বাবার সামনে বড় অপারেশন, তাই সেসব নিয়েই রয়েছি। রাজ্য সরকার মনে করলে হব নাহয় একদিন স্বীকৃত শিক্ষক।”


অন্যদিকে পার্শ্বশিক্ষক ভগীরথি ঘোষ বলেন, “শিক্ষকদের মর্যাদা নেই এই রাজ্যে। আমাদের চাকরির কোনো নিরাপত্তা নেই। শিক্ষকদের অনশন মঞ্চে যেভাবে আক্রমণ করল পুলিশ, তা থেকে এটা পরিষ্কার, বাংলায় শিক্ষকদের সম্মান মাটিতে মিশে গেছে। কোনো কারণ ছাড়াই সেদিন ১১ জনকে গ্রেফতার করল পুলিশ। সুতরাং শিক্ষক দিবসের যে সম্মান, যে ঐতিহ্য, তা ক্ষতবিক্ষত হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গে।”

উল্লেখ্য, শিক্ষক দিবস উপলক্ষ্যে বৃহস্পতিবার রাজ্য সরকারের তরফে ‘শিক্ষক রত্ন’ সম্মান প্রদান করা হয় বেশ কিছু কৃতী শিক্ষককে। তার আগে এই সম্মান নিয়ে টুইট করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Web Title: Teachers day could not became a government teacher

Next Story
‘মন্ত্রপূত দই’ বন্ধে অভিযান, ওসি সহ জখম ১২murshidabad bangla news
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com