বড় খবর

কাটমানির রেটকার্ড: বাড়ি বানাতে ২৫ হাজার, শেষকৃত্য ২০০ টাকা!

গ্রামবাসীরাই শুধু নন, কয়েকজন তৃণমূল নেতাই সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পে কাটমানি বাবদ কত টাকা নেওয়া হয়, তার হিসেব দিয়েছেন, জেনে নিন তালিকা।

cutmoney, কাটমানি
হরেকৃষ্ণ রায় ও তাঁর স্ত্রী অলকা। ছবি: পার্থ পাল, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।
গত ডিসেম্বরের কথা। কেন্দ্রের উজ্জ্বলা যোজনা প্রকল্পে এলপিজি গ্যাসের কানেকশনের জন্য স্থানীয় তৃণমূল নেতাকে ৫৫০ টাকা দিয়েছিলেন হুগলির মামনি সর্দার, এমনটাই অভিযোগ। কিন্তু, সত্যটা বুঝে গিয়ে এখন ক্ষোভের সুরে তিনি জানাচ্ছেন, ‘‘ভেবেছিলাম, কানেকশন দেওয়ার জন্য হয়তো এই টাকা নিয়েছেন। পরে বুঝলাম যে, ওঁকে এ টাকা দেওয়ার দরকার ছিল না…খুব রেগে গিয়েছিলাম। আমার টাকা ফেরত চাই’’। শুধু মামনিই নন, সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার নামে এমন আরও অনেকের থেকে কাটমানির টাকা নেওয়ার অভিযোগ সামনে এসেছে। গত কয়েকদিনে কাটমানির টাকা ফেরত ঘিরে বাংলার জেলায় জেলায় নজিরবিহীন বিক্ষোভের ছবি সামনে এসেছে।

কাটমানির টাকা ফেরতের দাবি জানিয়ে হুগলির নুনিয়াডাঙা গ্রামের আম বাগানে সেদিন জড়ো হয়েছিলেন মামনির মতো একদল মহিলা। অভিযোগ, রান্নার গ্যাসের কানেকশন দেওয়ার বিনিময়ে তাঁদের থেকে ৫০০-৬০০ টাকা করে নিয়েছেন সুভাষ বিশ্বাস ও শিখা মজুমদার নামের স্থানীয় দুই তৃণমূল নেতা। আর এই অভিযোগ সামনে আসার সঙ্গে সঙ্গেই কার্যত গা ঢাকা দিয়েছেন অভিযুক্ত ওই দুই তৃণমূল নেতা।

আরও পড়ুন: কাটমানির কিসসা: বাংলা জুড়ে বাড়ি ছাড়া তৃণমূলের বহু নেতা

হুগলি, বর্ধমান, বীরভূমের ১২টি গ্রামের বাসিন্দাদের সঙ্গে কাটমানির অভিযোগ নিয়ে কথা বলেছে দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। গ্রামবাসীদের কথায় উঠে এসেছে কাটমানি নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য। গ্রামবাসীদের দাবি, রাজ্য সরকারের ‘সমব্যথী’ প্রকল্পে মৃতের শেষকৃত্যের জন্যও কাটমানি নেওয়া হয়। নিয়ম অনুযায়ী, ‘সমব্যথী’ প্রকল্পে দেওয়া হয় ২ হাজার টাকা। কিন্তু যা জানা যাচ্ছে তাতে এই ২ হাজার টাকার মধ্যে কাটমানি বাবদ নেতাদের হাতে দিয়ে দিতে হয় ২০০ টাকা!

গ্রামবাসীরাই শুধু নন, কয়েকজন তৃণমূল নেতাও সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পে কাটমানি বাবদ কত টাকা নেওয়া হয়, তার হিসেব দিয়েছেন দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস-কে। দেখে নিন সেই ‘কাটমানির রেটকার্ড’…

* উজ্জ্বলা যোজনা- ৫০০-৬০০ টাকা
* বাংলার বাড়ি (প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা): ১০ হাজার- ২৫ হাজার টাকা
* নির্মল বাংলা- ৯০০-২০০০ টাকা
* মনরেগা- দিন পিছু ২০-৪০ টাকা

আরও পড়ুন: ‘শুদ্ধিকরণ করতে গিয়ে শ্রাদ্ধকরণ হচ্ছে’, কাটমানিকাণ্ডে তৃণমূলকে তোপ দিলীপের

বীরভূমের ছাতরা গ্রামের বাসিন্দা কলু মাল বলেন, ‘‘নির্মল বাংলা প্রকল্পে শৌচাগার নির্মাণের জন্য স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্যকে ৯০০ টাকা কমিশন দিয়েছি। তবু এখনও শৌচাগার তৈরির কাজ শেষ হয়নি’’। হুগলির কৃষক হরেকৃষ্ণ রায়ের দাবি, ‘বাংলার বাড়ি’ প্রকল্পে ঘর তৈরির জন্য তিনি স্থানীয় তৃণমূল নেতা ধনঞ্জয় বালাকে ৭ হাজার টাকা দিয়েছেন। তবে মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমোর কাটমানি বার্তার পর ইতিমধ্যেই তিনি জনৈক নেতার থেকে টাকা ফেরতের দাবি জানিয়েছেন। তবে বারবার যোগাযোগ করা হলেও এ প্রসঙ্গে তৃণমূল নেতার কোনও প্রতিক্রিয়া দিতে চাননি।

অন্যদিকে, রাজ্যে কাটমানিকাণ্ডে বিজেপিকেই দুষেছেন তৃণমূল নেতা তথা রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। তিনি বলেছেন, ‘‘আমাদের জনপ্রতিনিধি ও সৎ নেতাদের বাড়ির সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে পশ্চিমবঙ্গে অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে বিজেপি। রাজনৈতিক ভাবে আমরা লড়ব’’। এদিকে, হুগলির এক সরকারি আধিকারিক বলেন, ‘‘প্রতিটি প্রকল্পের নির্দিষ্ট দর রয়েছে। স্থানীয় নেতা ও পঞ্চায়েত সদস্যরা গোটা প্রক্রিয়ায় জড়িত’’। এ প্রসঙ্গে এক তৃণমূল নেতা বলেন, ‘‘কিছু জায়গায় পঞ্চায়েত সদস্যরাই সরাসরি টাকা নেন। আবার কোথাও স্থানীয় তৃণমূল নেতারাই টাকা সংগ্রহ করেন’’।

Read the full story in English

Get the latest Bengali news and Westbengal news here. You can also read all the Westbengal news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: West bengal tmc mens cut money rate list

Next Story
এবার ডেঙ্গির থাবা মেডিক্যাল কলেজে, আক্রান্ত চার পড়ুয়াMedical college Boys hostel Express Photo Shashi Ghosh
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com