scorecardresearch

বড় খবর

‘বকেয়া পুরভোট করানো আপনাদের কর্তব্য নয়’, হাইকোর্টের কড়া প্রশ্নে বিব্রত কমিশন

Calcutta High Court: আগামি সোমবার এই মামলার পরবর্তী শুনানি এবং সম্ভবত সেদিন মামলার রায় ঘোষণা। এদিন এমন ইঙ্গিত দিয়েছে হাইকোর্ট।

‘বকেয়া পুরভোট করানো আপনাদের কর্তব্য নয়’, হাইকোর্টের কড়া প্রশ্নে বিব্রত কমিশন
কলকাতা হাইকোর্ট।

Calcutta High Court: বকেয়া পুরভোটের দিনক্ষণ জানতে চেয়ে বুধবার নির্বাচন কমিশনকে প্রশ্ন কলকাতা হাইকোর্টের। প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং রাজর্ষি ভরদ্বাজের এজলাসে এই মামলার শুনানি চলছে। ডিভিশন বেঞ্চের কড়া প্রশ্নের সামনে বেজায় বিপাকে পড়েন কমিশনের আইনজীবী। আগামি সোমবার এই মামলার পরবর্তী শুনানি এবং সম্ভবত সেদিন মামলার রায় ঘোষণা। এদিন এমন ইঙ্গিত দিয়েছে হাইকোর্ট। সোমবার লিখিত আকারে ঝুলে থাকা পুরসভার ভোট নিয়ে রাজ্য এবং কমিশনের পরিকল্পনা জানাতে বলেছে হাইকোর্ট। কত দফায়, কবে এবং কীভাবে বাকি পুরভোট সম্ভব? সোমবার হলফনামা আকারে জমা করতে হবে রাজ্য এবং কমিশনকে।

এদিনের শুনানিতে খানিকটা রুষ্ট হয়েই ডিভিশনের বেঞ্চের নির্বাচন কমিশনকে প্রশ্ন, ‘ঝুলে থাকা পুরসভা গুলোর ভোট আয়োজন কী আপনাদের সাংবিধানিক দায়িত্ব নয়? আপনারা বলে দিয়েছেন হাতে ক’টি ইভিএম রয়েছে। তাহলে ক’দফায় এবং কবে বাকি পুরসভার ভোটগ্রহণ সম্ভব। বলতে পারছেন না কেন? কলকাতা পুরসভার ভোটগ্রহণের দিন ঘোষণা হয়েছে। বাকি পুরসভায় ভোট কবে?’  

আদালতের যুক্তি, ‘সব পুরসভায় ভোট করতে বলেছেন ৩০ হাজার ইভিএম দরকার। আর আপনাদের হাতে রয়েছে ১৫ হাজার ইভিএম। তাহলে দুই দফার বকেয়া পুরভোট নিষ্পত্তিতে সমস্যা কোথায়?’      

এই প্রশ্নের উত্তরে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের আইনজীবী বলেন, ‘পুরভোটের দিনক্ষণ রাজ্যের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে তৈরি হয়। সেই মোতাবেক কমিশনের সঙ্গে কথা বলে সব প্রশ্নের উত্তর দেব।‘তবে কলকাতা পুরভোট নিয়ে হস্তক্ষেপ করতে চায় না কলকাতা হাইকোর্ট। এদিন স্পষ্ট করে দিয়েছে ডিভিশন বেঞ্চ। এদিকে, কলকাতা হাইকোর্টে ইন্টারনেট বিভ্রাটের জেরে পিছোল এসএসসি গ্রুপ ডি নিয়োগ দুর্নীতি মামলার শুনানি। আগামী সোমবার পর্যন্ত পিছিয়ে গেল মামলার শুনানি। সোমবার হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে SSC-র গ্রুপ ডি কর্মী নিয়োগ-দুর্নীতি মামলার শুনানি ছিল।

এসএসসি গ্রুপ ‘ডি’ কর্মী নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের সিঙ্গল বেঞ্চের রায়ের উপর তিন সপ্তাহের অন্তর্বর্তীকালীন স্থগিতাদেশ জারি করেছিল ডিভিশন বেঞ্চ। ২৯ নভেম্বর থেকে সেই মামলার পূর্ণাঙ্গ শুনানি শুরুর কথা ছিল। একইসঙ্গে SSC-র গ্রুপ ডি কর্মী নিয়োগে অস্বচ্ছতায় ৫৪২ জনের হদিশ মেলে।

এঁদের নিয়োগেও অস্বচ্ছতার প্রমাণ মিলেছে। উচ্চ আদালত এই ৫৪২ জনের বেতন বন্ধের নির্দেশ দেয়। তাঁদের একাংশও হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। সোমবার থেকে সেই মামলারও শুনানি শুরুর কথা ছিল।

ইন্টারনেট বিভ্রাটের জেরে বিপত্তি কলকাতা হাইকোর্টে। পিছোল SSC মামলার শুনানি। জানা গিয়েছে, আগামী সোমবার পর্যন্ত এই মামলার শুনানি পিছিয়ে গিয়েছে। অনলাইনে শুনানিতে সমস্যার জেরেই পিছিয়েছে শুনানি-পর্ব।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Westbengal news download Indian Express Bengali App.

Web Title: When pending civic polls will be conducted calcutta hc asks to sec state