বিষধর গোখরো হাতে পেঁচিয়ে সটান হাসপাতালে, সাহসের জোরে প্রাণে বাঁচলেন মহিলা

হাসপাতালে সাপটিকে একটি পাত্রে ভরে ফেলা হয়। পরে সাপটি বনদফতরের কর্মীদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

Woman came at malda medical college by capturing snake, quickly treatment have save her life
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বলসাতিয়া মাহাতো। ছবি: মধুমিতা দে

বিষধর গোখরোর কামড় খেয়েও দমেননি বধূ। সেই সাপ হাতে পেঁচিয়ে সটান হাজির হাসপাতালে। রবিবার বিকেলে এমন দৃশ্য সামনে দেখে হতচকিত হয়ে পড়েন মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক থেকে শুরু করে অন্য স্বাস্থ্যকর্মীরা। ততক্ষণে চোখ কপালে ওঠার জোগাড় হাসপাতাল চত্বরে থাকা রোগী ও তাঁদের আত্মীয়দেরও। শেষমেশ হাত থেকে সাপ ছাড়িয়ে তড়িঘড়ি মহিলার চিকিৎসার ব্যবস্থা শুরু হয়। দ্রুত চিকিৎসা শুরুর জেরে এখন সুস্থ মহিলা। স্বস্তির নিঃশ্বাস তাঁর পরিবারেও।

রবিবার বিকেলে মালদহের ভূতনি থানার গদাইচর এলাকায় স্থানীয় এক মহিলাকে বাড়িতেই গোখরো সাপ কামড়ায়। মোবাইল ফোনে চার্জ দিতে গেলে মহিলার হাতে কামড় বসায় গোখরো। সাপ হাতে পড়তেই পেঁচিয়ে ধরেন ওই মহিলা। ততক্ষণে বিষধর গোখরোর কামড়ে অসুস্থ হতে শুরু করেছেন গৃহবধূ বলসাতিয়া মাহাতো। তবে তাতে এতটুকুও দমে যাননি তিনি। পরিবারের বাকিদেরও তিনিই আশ্বস্ত করেন। মহিলাকে হাসাতালে নিয়ে যাওয়ার তোড়জোড় শুরু হয়। তখনও সাপটি হাতে পেঁচিয়েই ধরেছিলেন মহিলা। তড়িঘড়ি একটি গাড়িতে করে পরিবারের বাকিদের সঙ্গে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রওনা দেন মহিলা।

হাসপাতালেই একটি পাত্রে ভরে ফেলা হয়েছে বিষধর ওই গোখরো সাপটিকে।

গাড়ি থেকে নেমে মহিলা হাসপাতালে ঢুকতেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। হাসপাতালে থাকা অন্য রোগী ও তাঁদের পরিজনেরা হাতে সাপ পেঁচানো অবস্থায় এক মহিলাকে ঢুকতে দেখে হতভম্ব হয়ে পড়েন। এমন দৃশ্য দেখে হতচকিত হয়ে পড়েন হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক থেকে শুরু করে অন্য স্বাস্থ্যকর্মীরাও।

শেষমেশ মহিলার হাত থেকে সাপ ছাড়িয়ে শুরু হয় চিকিৎসা। মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, দ্রুত চিকিৎসা শুরু হওয়ায় বড়সড় বিপদ এড়ানো গিয়েছে। মহিলা সাপটি সঙ্গে আনায় তা শনাক্ত করতে চিকিৎসকদের বেগ পেতে হয়নি। দ্রুত প্রয়োজনীয় চিকিৎসা শুরু হওয়ায় মহিলা প্রাণে বেঁচেছেন।

আরও পড়ুন- ‘করোনার মতো বিজেপিও ভাইরাস, ৩০-এ দিন প্রথম ডোজ, ২৪-এ দ্বিতীয়’, বললেন অভিষেক

এদিকে মালদহ মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ চিকিৎসক পার্থপ্রতিম মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘ঘটনাটি বিস্ময়কর। সাহসের পরিচয় দিয়েছেন ওই গৃহবধূ। তবে মেডিকেল কলেজে সাপে কামড়ানোর পর্যাপ্ত প্রতিষেধক মজুত রয়েছে। যেহেতু ওই গৃহবধূ সাপটি ধরে এনেছিলেন, তাই দ্রুত সেটি শনাক্ত করে প্রয়োজনীয় প্রতিষেধক দিতে চিকিৎসকদের সুবিধা হয়েছে। আপাতত ওই গৃহবধূ মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।’ এদিকে হাসপাতালে সাপটিকে একটি পাত্রে ভরে ফেলা হয়। পরে সেটিকে বনদফতরের কর্মীদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

ইন্ডিয়ানএক্সপ্রেসবাংলাএখন টেলিগ্রামে, পড়তেথাকুন

Get the latest Bengali news and Westbengal news here. You can also read all the Westbengal news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Woman came at malda medical college by capturing snake quickly treatment have save her life

Next Story
১৬ নভেম্বর খুলছে রাজ্যের স্কুল-কলেজ, আপাতত নবম-দ্বাদশ পর্যন্ত, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর
Show comments