বড় খবর

কব্জায় আফগান-মুলুক, কয়েক সপ্তাহেই সরকার গড়বে তালিবান

মুখে হিংসা বন্ধের কথা বললেও স্বভাবে বদল নেই তালিবানিদের৷ নির্বিচারে হত্যা, অত্যাচার চলছে আফগান-মুলুকে৷

আফগানিস্তানের পতাকা

আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই আফগানিস্তানে তালিবানের সরকার তৈরি হবে৷ শনিবার তালিবানের মুখপাত্র সংবাদসংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, তালিবানরা আফগানিস্তানের জন্য একটি নতুন শাসন পরিকাঠামো তৈরি করবে৷ ওই তালিবান নেতা আরও বলেন, ‘‘আইনি, ধর্মীয় এবং বিদেশ-নীতি সম্পর্কে জ্ঞান থাকা বিশেষজ্ঞদের নিয়ে আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে নতুন শাসন ব্যবস্থা কায়েম করবে তালিবান৷’’ গোটা আফগানিস্তান দখলে নেওয়ার পর থেকে তালিবান নেতারা তাদের ভাবমূর্তি স্বচ্ছ করার চেষ্টা চালাচ্ছেন৷ যদিও তালিবান সর্বোচ্চ নেতৃত্বের এই ভাবনায় কান দিচ্ছে না যোদ্ধারা৷ এখনও রাজধানী-কাবুল-সহ দশের বিস্তীর্ণ এলাকায় তালিবানি অত্যাচার চলছে৷

আরও পড়ুন- ১১ বছর নাগপুরে ঘাপটি মেরেছিলেন, সেই নূর মহম্মদই কি না তালিবান জঙ্গি!

এদিকে, আফগানিস্তান থেকে মার্কিন নাগরিকদের উদ্ধারকাজ জারি রয়েছে৷ মার্কিন নাগরিকদের পাশাপাশি যে আফগানরা মার্কিন সেনাকে সাহায্য করেছেন তাঁদেরও উদ্ধার করছে মার্কিন প্রশাসন৷ তবে বিমানে এই উদ্ধারকাজ রীতিমতো কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে করতে হচ্ছে বলে শুক্রবারই জানিয়েছেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন৷ গত কুড়ি বছর ধরে আফগানিস্তানে ছিল মার্কিন সেনা৷ আফগান সেনাকে প্রশিক্ষণ দিয়ে তালিবান বাহিনীকে কব্জায় রেখেছিল ন্যাটোবাহিনী৷ তবে মার্কিন সেনা আফগানিস্তান ছাড়তেই ফের সক্রিয় হয়ে ওঠে তালিবান৷ কয়েক সপ্তাহের মধ্যে গোটা আফগান মুলুক দখল করে নেয় তালিবান জঙ্গিরা৷

আফগানিস্তান থেকে নাগরিকদের উদ্ধারে কোনও বাধা এলে আমেরিকা তার যোগ্য জবাব দিতে তৈরি, ইতিমধ্যেই তালিবানকে এই হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন৷ এপ্রসঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘‘আমেরিকার সেনাবাহিনীর উপর কোনও হামলা হলে জোরালো জবাব দেওয়া হবে৷ কাবুল বিমানবন্দরে বা তার আশেপাশে আইএসআইএস-এর গোষ্ঠীর হুমকির ওপর কড়া নজর রাখা হচ্ছে। আফগানিস্তানের পরিস্থিতির দিকে কড়া নজর রাখছে আমেরিকা৷’’

অন্যদিকে, আফগানিস্তান ইস্যুতে আবারও আমেরিকার কড়া সমালোচনা করেছে রাশিয়া৷ প্রেসিডেন্ট পুতিন মনে করেন, দ্রুত তালিবান দখলে গোটা আফগানিস্তান চলে যাওয়াটা মার্কিন প্রশাসনের বড়সড় ব্যর্থতা৷ পুতিন এপ্রসঙ্গে আরও বলেন, ‘‘জাতিগত, ধর্মীয়, সামাজিক কোনও দিক বিবেচনা না করে অন্যদের উপর নিজেদের ইচ্ছার প্রয়োগ করা হয়েছিল৷ অন্য একটি দেশের ঐতিহ্যকে গুরুত্ব না দিয়ে বাইরের মডেলের ভিত্তিতে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার ব্যর্থ চেষ্টা হয়েছিল৷’’

Read full story in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and World news here. You can also read all the World news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: New governing framework for afghanistan within the next few weeks

Next Story
তালিবানদের থেকে শিশুদের বাঁচাতে মায়েরা তাদের ছুঁড়ে দিচ্ছেন, ভিডিও ভাইরাল নেটদুনিয়ায়, নিন্দায় নেটিজেনরা
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com