বড় খবর

বিশ্বব্যাপী অ্যাস্ট্রাজেনেকা টিকা সরবরাহের ছাড়পত্র WHO’র, মুকুটে নয়া পালক সেরামের

রাষ্ট্রসংঘের কোভ্যাক্স কর্মসূচিতে লক্ষ লক্ষ করোনা টিকার ডোজ বিশ্বব্যাপী দেশে পাঠানো হবে।

Express photo by Partha Paul

ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের মুকুটে নয়া পালক। বিশ্বব্যাপী করোনা টিকা সরবরাহের জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা WHO’র ছাড়পত্র পেল পুণের সেরাম ইনস্টিটিউট। রাষ্ট্রসংঘের করোনা মোকাবিলা কর্মসূচিতে যৌথভাবে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিশিল্ড টিকার ডোজের ছাড়পত্র দিয়েছে WHO। ভারতে কোভিশিল্ডের প্রস্তুতকারক সংস্থা সেরাম। বিশ্বের আর্থিক ভাবে পিছিয়ে পড়া দেশগুলিতে টিকা সরবরাহ করবে সেরাম। দক্ষিণ কোরিয়ার অ্যাস্ট্রাজেনেকা-এসকেবায়োকেও ছাড়পত্র দিয়েছে WHO।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সবুজ সংকেত দেওয়ায় ফাইজারের পর অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন হল দ্বিতীয় টিকা যাকে ছাড়পত্র দেওয়া হল। সোমবারই এই ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। রাষ্ট্রসংঘের কোভ্যাক্স কর্মসূচিতে লক্ষ লক্ষ করোনা টিকার ডোজ বিশ্বব্যাপী দেশে পাঠানো হবে। WHO’র সহকারী ডিরেক্টর জেনারেল (মেডিসিন) ডা. মারিয়াঞ্জেলা সিমাও জানিয়েছেন, যে সমস্ত দেশগুলির টিকা তৈরি করার কাঠামো নেই তারা এবার এই কর্মসূচিতে স্বাস্থ্যকর্মী ও সাধারণ মানুষকে টিকা দিতে পারবে।

বস্তুত, করোনার জেরে বিশ্বে প্রায় ১১ কোটি মানুষ সংক্রমিত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে প্রায় ২৪ লক্ষ মানুষের। কিন্তু এখনও অনেকে দেশই গণ টিকাকরণ কর্মসূচি শুরু করতে পারেনি। এমনকী ধনী দেশগুলিও ভ্যাকসিনের স্বল্পতা নিয়ে ভুগছে। তবে অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন বিশ্বের ৫০টিরও বেশি দেশে অনুমোদিত হয়েছে। তার মধ্যে ব্রিটেন, ভারত, আর্জেন্টিনা, মেক্সিকো রয়েছে। ফাইজার টিকার তুলনায় এটির দাম কম এবং ব্যবহারেও সহজ।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Who authorizes astrazenecas covid 19 vaccine for emergency use

Next Story
জনকল্যাণে জোর, বাইডেন প্রশাসনের গুরুদায়িত্বে দুই ভারতীয় বংশোদ্ভূত
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com