scorecardresearch

বড় খবর

নয়া ত্রাসের নাম মাঙ্কিপক্স! চুলচেড়া বিশ্লেষণে জরুরি বৈঠক WHO এর

ইতিমধ্যেই এই সংখ্যাটা ১০০ ছাড়িয়েছে।

নয়া ত্রাসের নাম মাঙ্কিপক্স! চুলচেড়া বিশ্লেষণে জরুরি বৈঠক WHO এর

বিশ্বজুড়ে নয়া ত্রাসের নাম মাঙ্কিপক্স। ক্রমশ চিন্তা বাড়াচ্ছে মাঙ্কিপক্স। ইউরোপের একাধিক দেশে ঝড়ের গতিতে ছড়িয়ে পড়েছে মাঙ্কিপক্স ভাইরাসের সংক্রমণ। ইতিমধ্যেই এই সংখ্যাটা ১০০ ছাড়িয়েছে। এবার মাঙ্কিপক্স নিয়ে তড়িঘড়ি জরুরি আলোচনা সভার ডাক বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার।

জানা যাচ্ছে, সমকামী পুরুষদের মধ্যে এই মাঙ্কিপক্স ভাইরাস (Monkey Pox Virus) দ্রুতহারে ছড়িয়ে পড়ছে। এর কারণ যাচাই করতেই হু-এর (WHO) এই বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। ইতিমধ্যেই মাঙ্কিপক্স নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আমেরিকাও।

যুক্তরাজ্য, স্পেন পর্তুগাল, জার্মানি এবং ইতালি পাঁচটি দেশের পাশাপাশি মাঙ্কিপক্স থাবা বসিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা এবং অস্ট্রেলিয়াতেও। বাঁদরের থেকে এই ভাইরাসের সংক্রমণ এমনটাই জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। তবে কোভিড ১৯ এর মত ভয়াবহ ভাবে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে এমনটা অবশ্য মনে করছেন না বিজ্ঞানীরা। জার্মানিতেও সন্ধান মিলেছে মাঙ্কিপক্স আক্রান্ত ব্যক্তির।

মাঙ্কিপক্সের জন্য এখনও নির্দিষ্ট কোন টিকা নেই তবে গবেষণায় দেখা গিয়েছে স্মলপক্সের টিকা এই রোগ আটকাতে ৮৫ শতাংশ পর্যন্ত কার্যকারী। ১৮ মে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস বিভাগের জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা (Public Health Expert) প্রথম একজন ব্যক্তির শরীরে এই মাঙ্কিপক্সের সন্ধান পান।

যিনি সম্প্রতি কানাডা থেকে ফিরেছেন। শুধু এই একটি ঘটনা নয়, ইউ এস সেন্টার ফর ডিসিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন আরও মাঙ্কি পক্সের ঘটনা সামনে আসার সম্ভাবনা একেবারে উড়িয়ে দিচ্ছে না। যাঁরা মাঙ্কি পক্সে আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছেন তাঁদের চিহ্নিত করার চেষ্টা হচ্ছে। তবে এখনই সাধারণ মানুষের আতঙ্কিত হওয়ার কতটা কারণ রয়েছে, তা নিয়েই কাটাছেঁড়া করছে বিশ্বের চিকিৎসকমহল। 

আরও পড়ুন: ওমিক্রনের নয়া প্রজাতিতে দু’ই আক্রান্তের হদিশ, উদ্বেগ বাড়ছে দেশে

মাঙ্কিপক্স, বেশিরভাগ পশ্চিম এবং মধ্য আফ্রিকায় দেখা যায়, এটি মানুষের শ্রীরে গুটিবসন্তের মতো একটি বিরল ভাইরাল সংক্রমণ সৃষ্টি করা। ১৯৭০ এর দশকে গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র কঙ্গোতে রেকর্ড করা হয়েছিল।

পশ্চিম আফ্রিকায় গত এক দশকে মাঙ্কিপক্সে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে লাফিয়ে। উপসর্গ সম্পর্কে সিডিএসের তরফে বলা হয়েছে মাঙ্কিপক্স আক্রান্তদের মধ্যে জ্বর, মাথাব্যথা এবং ফুসকুড়ি, র্যাশের মত উপসর্গ দেখতে পাওয়া গিয়েছে।মুখ থেকে শুরু হয়ে শরীরের বাকি অংশে ছড়িয়ে পড়ছে এই র্যাশ।

ম্যাসাচুসেটস স্বাস্থ্য দফতর এক বিবৃতিতে বলেছে সহজে মানুষের মধ্যে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা খুবই বিরল। এই বছর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এর আগে কোনও মাঙ্কিপক্সের ঘটনা ঘটেনি বলেও বিবৃতিতে বলা হয়েছে। সিডিসি আরও বলেছে যে এটি গত দুই সপ্তাহের মধ্যে পর্তুগাল, স্পেন এবং যুক্তরাজ্য সহ বেশ কয়েকটি দেশে রিপোর্ট করা মাঙ্কিপক্সের একাধিক ঘটনার ওপর কড়া নজর রাখছে।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest World news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Who emergency monkeypox cases europe