scorecardresearch

বড় খবর

‘রোজ সকালে ঘুম থেকে উঠে লতাদিদির ছবি দেখে রেকর্ডিংয়ে যেতাম…’, গলা বুজে এল রহমানের

কীভাবে লতা মঙ্গেশকর রহমানের জীবনের মোড় ঘুরিয়েছেন? সেকথাও শেয়ার করলেন অস্কারজয়ী এ আর রহমান।

‘রোজ সকালে ঘুম থেকে উঠে লতাদিদির ছবি দেখে রেকর্ডিংয়ে যেতাম…’, গলা বুজে এল রহমানের
লতা মঙ্গেশকরের সঙ্গে এআর রহমান

লতা মঙ্গেশকরের (Lata Mangeshka) প্রয়াণে গভীরভাবে শোকাহত এ আর রহমান (A. R. Rahman)। কিংবদন্তী গায়িকার কথা বলতে গিয়ে অস্কারজয়ী সংগীত পরিচালকের গলাও বুজে এল! স্মৃতির সরণিতে হেঁটে জানালেন, কীভাবে লতাদিদি তাঁর জীবন বদলে দিয়েছেন।

“আজ বড় কঠিন একটা দিন। লতাজি শুধুমাত্র আইকন নন, ভারতীয় সংগীত, সাহিত্য-কবিতার একটা অংশ উনি। এই শূন্যতা চিরকালের জন্য রয়ে যাবে আমাদের মধ্যে। একটা সময় ছিল, ঘুম থেকে উঠে রোজ সকালে লতাদিদির ছবি দেখতাম আমি। আর নিজেকে অনুপ্রেরণা জোগাতাম। আমি ভাগ্যবান যে, ওঁর সঙ্গে বেশ কয়েকটা গান রেকর্ড করার সৌভাগ্য হয়েছে আমার…” মন্তব্য এ আর রহমানের।

পাশাপাশি এও যোগ করলেন যে, “হিন্দুস্তানি মিউজিক, উর্দু-বাংলা কবিতা, আরও অনেক ভাষাতেই সাবলীল ছিলেন লতা মঙ্গেশকর। বাবার কথা মনে পড়ছে খুব। উনি আমার ঘরে লতাদিদির একটি ছবি রেখেছিলেন। যখন রোজ সকালে ঘুম থেকে উঠে, ওঁর মুখ দেখেই আমি রেকর্ডিংয়ে যেতাম। বহুবার ওঁর শোয়েও অংশগ্রহণ করেছি।”

কীভাবে লতাদিদি রহমানের কেরিয়ারের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছেন? সেকথা জানালেন। ধরা গলাতেই বললেন, “মিউজিক কম্পোজার হিসেবে আমি কখনওই আমার গায়ক সত্ত্বাকে গভীরভাবে নিতাম না। কিন্তু একটা ঘটনা আমার জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়। একবার আমি লতাজির জন্য বেশ কয়েকটা গান কম্পোজ করেছিলাম। ভোর ৪টের সময় দেখলাম, উনি নিজের ঘরে সেই গান প্র্যাকটিস করছেন। অত ভোরে! আর সেদিনের সেই একটা ঘটনাই আমার জীবন পুরো বদলে দিয়েছে। তারপর থেকে যতগুলো শো করেছি, আমি তার আগে তানপুরা-সহ বিভিন্ন বাদ্যযন্ত্র নিয়ে গলা সাধতে বসে যেতাম। এখনও সেই রেওয়াজ আছে।”

[আরও পড়ুন: ‘অ্যায় মেরে ওয়াতন কে লোগোঁ..’ লতার গান শুনে কেঁদে ফেলেছিলেন নেহেরু]

“একবার লতাজি আমাকে ফোন করে বলছিলেন, জানো রহমান, আগে নওসাদ সাহেব একটা গান রেকর্ড করার আগে ১১ দিন ধরে প্র্যাকটিস করাতেন। তোমরা এখন কতটা সময় নাও প্রাক-রেকর্ডিং প্রস্তুতি সারতে? তখন আমি বুঝতে পারি যে, একটা গান রেকর্ড করার নেপথ্যে কতটা ভালবাসা, আধ্যাত্মিকতা, প্যাশনের প্রয়োজন হয়। লতা মঙ্গেশকর-ই আমাকে শিখিয়েছেন, সঙ্গীতসাধনা হোক বা যে কোনও সৃষ্টি, নিজেকে পুরোপুরি সেখানে উৎসর্গ করে দাও। কর্ম করে যাও, ফলের আশা কোরো না। ওঁর মৃত্যুতে যে গভীর শূন্যতার সৃষ্টি হল, কোনওদিন তা পূরণ হবে না”, বলছিলেন শোকাবিহ্বল রহমান।

মহম্মদ রফি, মান্না দে, সলিল চৌধুরি, শচীন দেববর্মন, রাহুল দেব বর্মন, লতাজি ভারতীয় সঙ্গীতের যে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করে গিয়েছেন, আজীবন তাঁদের সেই অবদান যে অস্কারজয়ী সংগীত পরিচালক রহমানের কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে থাকবে, সেকথাও জানালেন তিনি।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Entertainment news download Indian Express Bengali App.

Web Title: A r rahman on lata mangeshkars demise