বড় খবর

অমিতাভ ছাড়াও করোনা আক্রান্ত বচ্চন পরিবারের তিন সদস্য

হাসপাতালে ভর্তি অমিতাভ। জয়া বচ্চন করোনা নেগেটিভ হলেও কোভিড ১৯ ধরা পড়ল ঐশ্বর্য রাই বচ্চন ও আরাধ্যা বচ্চনের টেস্ট রিপোর্টে। রবিবার এ খবর নিশ্চিত করেছেন অভিষেক।

মেগাস্টার অমিতাভ বচ্চন ও তাঁর ছেলে অভিনেতা অভিষেক বচ্চন করোনা আক্রান্ত হয়ে শনিবারই ভর্তি হয়েছিলেন নানাবতী হাসপাতালে। রবিবার দুপুর পর্যন্ত জানা যায়নি বচ্চন পরিবারের বাকি সদস্যের রিপোর্ট। পরবর্তীতে জানা যায়, জয়া বচ্চন করোনা পরীক্ষা নেগেটিভ আসলেও কোভিড পজিটিভ ঐশ্বর্য-আরাধ্যা। আপাতত হোম কোয়ারেন্টাইনেই রাখা হয়েছে তাঁদের।

রবিবার টুইট করে অভিষেক ঐশ্বর্য (৪৬) ও তাঁদের আট বছরের সন্তান আরাধ্যার করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর দেন। তবে তিনি জানান, জয়া বচ্চন ও বোন শ্বেতা নন্দা ও তাঁর দুই সন্তান কোভিড নেগেটিভ।

টুইটে জুনিয়র বচ্চন লেখেন, ”ঐশ্বর্য ও আরাধ্যাও কোভিড ১৯ পজিটিভ। তাদের বাড়িতেই কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। বিএমসি সমস্ত পরিস্থিতি বুঝে সেই মতো ব্যবস্থা নিয়েছে। মা-সহ বাড়ির বাকি সদস্যদের প্রত্যেকের রিপোর্ট নেগেটিভ। আপনাদের শুভেচ্ছা ও প্রার্থনার জন্য ধন্যবাদ।”

আরও পড়ুন, জয়া বচ্চন নেগেটিভ তবে করোনা আক্রান্ত আরাধ্যা বচ্চন ও ঐশ্বর্য

অমিতাভ ও অভিষেক হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার একদিন পরেই বাকি সদস্যদের কথা জানা গিয়েছে। এমনকী বিগত ১০দিনে যারাই বচ্চন পরিবারের সংস্পর্শে এসেছে তাদের প্রত্যেককে টেস্ট কারনোর অনুরোধ করেছেন শাহেনশা। তিনি টুইট করে লেখেন, ”আমি কোভিড পজিটিভ…হাসাপাতালে ভর্তি…পরিবারের সদস্য ও স্টাফেদের পরীক্ষা চলছে… রিপোর্ট আসা বাকি। যারা বিগত ১০ দিনে আমাদের সংস্পর্শে এসেছেন দয়া করে পরীক্ষা করান।”

রবিবার তাঁদের বাংলো জনক, জলসা ও প্রতীক্ষা স্যানিটাইজ করার কাজ চলছে।বিএমসির তরফে পিটিআইকে জানানো হয়, ”বিএমসির একটি দল অমিতাভ বচ্চনের বাংলো জনক, জলসা ও প্রতীক্ষায় পৌঁছে গিয়েছে এবং একে একে প্রত্যেকটি স্যানিটাইজ করার কাজ চলছে।”

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and Entertainment news here. You can also read all the Entertainment news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Amitabh bachchan 3 family members test positive for coronavirus

Next Story
জয়া বচ্চন নেগেটিভ তবে করোনা আক্রান্ত ঐশ্বর্য ও ছোট্ট আরাধ্যা
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com