scorecardresearch

বড় খবর

‘কলকাতা আমার ভালবাসার জায়গা…’, শহরে ‘চাকদা এক্সপ্রেস’ শুটিং শেষে আবেগঘন অনুষ্কা

কলকাতাকে নিয়ে কী বললেন অভিনেত্রী?

‘কলকাতা আমার ভালবাসার জায়গা…’, শহরে ‘চাকদা এক্সপ্রেস’ শুটিং শেষে আবেগঘন অনুষ্কা
কলকাতার প্রশংসায় অনুষ্কা

বেশ কিছুদিন হল কলকাতায় শুটিং করছেন অনুষ্কা শর্মা। এই শহরের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক বহুদিন। ‘চাকদা এক্সপ্রেস’ সিনেমার শুটিং করতেই বিরাট ঘরনীকে দেখা গেল শহরের আনাচে কানাচে। হাওড়া আন্দুল থেকে শিয়ালদহ স্টেশন – চষে বেড়ালেন অভিনেত্রী।

এর আগেও ‘পরী’ সিনেমার শুটিং করতে এসেছিলেন। কলকাতার আকাশে বাতাসে প্রেম ভালবাসা বন্ধুত্ব এবং এখানকার লোকজন সবকিছুই মুগ্ধ করে অভিনেত্রীকে। তাই তো সাক্ষাৎকারে এই শহরের প্রশংসা না করে পারলেন না। আবেগঘন সুরে বললেন, “কলকাতা আমার মনের খুব কাছের। এই শহরের প্রেম, ভালবাসা, মানুষজনের কোনও তুলনা নেই। প্রতিটা কোণায় ইতিহাস জড়িয়ে রয়েছে। এখনকার খাবার দাবার থেকে সংস্কৃতি সবকিছুই বেশ অন্যধরনের। আমার ভীষণ ভালবাসার জায়গা এটা”।

আরও পড়ুন [ ‘বিদেশী বউমা’র নতুন নাম রাখলেন ভিকির মা! শাশুড়ির আদরে গদগদ ক্যাটরিনা ]

শহর কলকাতায় এসে খালি হাতে ফিরে গিয়েছেন এমন মানুষ খুব কম। এই শহরে আবারও ফিরতে পেরে বেজায় উত্তেজিত অভিনেত্রী। শহরকে নিদারুণ ভালবাসেন তিনি। গতকাল শিয়ালদহ স্টেশনে শুটিংয়ে ব্যস্ত ছিলেন। ঝুলনের চরিত্র ফুটিয়ে তুলতে গেলে এই শহরকে যে ভালবাসতে হবেই। অনুষ্কার কথায়, “আমাদের এই শহরের নানান জায়গায় শুটিং করতে যে কী দারুণ অভিজ্ঞতা হয়েছে, সারাজীবন মনে থাকবে। ঝুলন গোস্বামী একজন আইকন। পশ্চিমবঙ্গ এবং কলকাতা থেকেই ওঁর যাত্রা শুরু। ঝুলনকে গড়ে তোলার পেছনে এই জায়গার গুরুত্ব অনেক বেশি”।

অনুষ্কার শুটিংয়ে বেশিরভাগ দিন উপস্থিত থাকতেন ঝুলন। ইডেন গার্ডেনে শুটিং চলাকালীন নিজের লুক নিয়েও চিন্তায় ছিলেন অনুষ্কা। কিন্তু ঝুলনের সহযোগিতা তাঁকে অনেকটা সাহায্য করেছে। অভিনেত্রীর কথায়, “ওঁকে শুটিং ফ্লোরে পেয়ে আমি আপ্লুত। তাঁর সঙ্গে অনেক কথা হয়েছে, অনেক কিছু জেনেছি। ভীষণ পজিটিভ একজন মানুষ”।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Entertainment news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Anushka sharma feeling love about kolkata