scorecardresearch

বড় খবর

বিদিশার ঝুলন্ত দেহের পাশেই সুইসাইড নোট! অবসাদ-আত্মহত্যার কথা আগেই জানান বন্ধুদের

সম্পর্ক নিয়েও অবসাদে ভুগছিলেন মডেল-অভিনেত্রী!

Model Actress Bidisha Dey Majumdar, Bidisha Dey Majumdar's death, বিদিশা দে মজুমদার, মডেল-অভিনেত্রী বিদিশা দে মজুমদারের রহস্যমৃত্যু, বিদিশার সুইসাইট নোট, bengali news today
বিদিশা দে মজুমদার

গ্ল্যামারের হাতছানি। ফের ঝকঝকে, চাকচিক্য জীবনযাপনের আড়ালে লুকিয়ে থাকা অন্ধকার মনোজগতের উদাহরণ। পল্লবী দে’র পর এবার কলকাতার উঠতি মডেল-অভিনেত্রী বিদিশা দে মজুমদারের রহস্যমুত্যু। একইভাবেই ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার ঝুলন্ত দেহ। বৃহস্পতিবার রাতে বিদিশার মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। আত্মহত্যা নাকি এর নেপথ্যে রয়েছে অন্য কোনও ষড়যন্ত্র? ইতিমধ্যেই তদন্তে নেমে পুলিশের হাতে এসেছে এক সুইসাইড নোট।

দমদমের নাগেরবাজার এলাকার রামগড় কলোনিতে ফ্ল্যাট নিয়ে ভাড়া থাকতেন বিদিশা দে মজুমদার। প্রসঙ্গত, তাঁর বান্ধবী একাধিকবার ফোন করেও পাচ্ছিলেন না। এরপর বাড়িওয়ালাকে জানাতেই, তিনিই গিয়ে বিদিশার ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান। পুলিশ সেই ফ্ল্যাট থেকেই উদ্ধারকরে তাঁর সুইসাইড নোট। যেখানে স্পষ্ট লেখা- “এই মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়। দুরারোগ্য রোগে ভুগছিলাম।” যদিও সেই দাবি উড়িয়ে দিয়েছে মডেল-অভিনেত্রীর বান্ধবীরা। তাঁদের কথায়, বিদিশার যো কোনও দুরারোগ্য অসুখ ছিল, সেটা কখনোই জানাননি।

বিদিশার খাটের তলা থেকে উদ্ধার হয়েছে ২টি মোবাইল ফোন। যা পুলিশ বাজেয়াপ্ত করেছে। খতিয়ে দেখা হচ্ছে কললিস্ট। ইতিমধ্যেই নাগেরবাজার থানার পুলিশ মডেল-অভিনেত্রীর তিন বন্ধুকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। তাঁদের জেরা করতেই বেরিয়ে আসে নতুন তথ্য। সংবাদমাধ্যমের কাছে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বন্ধুরা জানান, বিদিশা তাঁদেরকে আগেই জানিয়েছিলেন যে তিনি অবসাদে ভুগছিলেন। আরও বেশি করে কাজ চাইছিলেন। এক অভিনয় প্রশিক্ষণ কেন্দ্রেও যেতেন। কিন্তু মে মাসের গোড়ার দিক থেকে সেখানেও অনিয়মিত যাচ্ছিলেন।

[আরও পড়ুন: পল্লবীর মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ ফেসবুকে! সপ্তাহ ঘুরতেই ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার মডেল বিদিশার]

কেরিয়ার নাকি অন্য কোনও মানসিক টানাপোড়েন চলছিল বিদিশা দে মজুমদারের? প্রশ্ন উঠছে। সেই প্রেক্ষিতেই বন্ধুদের জেরার মাধ্যমে জানা গিয়েছে, বিদিশা নাকি এক জিম ট্রেনারের প্রেমে পড়েছিলেন। যার জন্য বাড়িতেও ঝামেলা হয়েছিল মা-বাবার সঙ্গে। তবে সেই প্রেম ছিল একতরফাই। কারণ ওই শরীরচর্চা প্রশিক্ষক মন দেননি বিদিশাকে। আর তা নিয়েই নাকি বন্ধুদের কাছে মাঝেমধ্যেই দুঃখপ্রকাশ করতেন বিদিশা। তাঁর ভয় ছিল- যে সম্পর্ক তিনি চাইছেন, সেটা আদৌ পরিণতি পাবে তো? মনের মানুষকে নিজের কাছে পাবেন তো? কান্নাকাটিও করতেন। বলতেন, আত্মহত্যার কথাও।

গত ১৫ মে পল্লবী দের মৃত্যুর খবর পেয়েই বিদিশা ফেসবুকে শোকপ্রকাশ করে লিখেছিলেন- “মানে কী এসব, মেনে নিতে পারলাম না।” যিনি কিনা সেই অভিনেত্রীর অস্বাভাবিক মৃত্যু মেনে নিতে পারেননি, সেই মডেল-অভিনেত্রীর-ই ওই ঘটনার দিন দশেকের মাথায় ঝুলন্ত দেহ মিলল ফ্ল্যাটে। অনেকেই মেনে নিতে পারছেন না বিদিশা দে মজুমদারের অস্বাভাবিক মৃত্যুর খবর।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Entertainment news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Emerging model actress bidisha dey majumdars death update