scorecardresearch

বড় খবর

‘সংস্কৃত-ই দেশের রাষ্ট্রভাষা হওয়া উচিত’, বিতর্কে এবার ঘি ঢাললেন কঙ্গনা

অজয় দেবগণ ও কিচ্চা সুদীপের টুইট-যুদ্ধের মাঝেই বোমা ফাটালেন ‘বলিউড ক্যুইন’। কী বললেন আর?

‘সংস্কৃত-ই দেশের রাষ্ট্রভাষা হওয়া উচিত’, বিতর্কে এবার ঘি ঢাললেন কঙ্গনা
কঙ্গনা রানাউত

ভাষা-বিতর্ক নিয়েই এমনিতেই দেশে শোরগোলের অন্ত নেই। অজয় দেবগণ ও কিচ্চা সুদীপের টুইট-যুদ্ধ নিয়ে ইতিমধ্যেই সরগরম বিনোদুনিয়া। রাজনৈতিক মোড় নিয়েছে বললেও অত্যুক্তি হয় না! এবার সেই ভাষা বিতর্কের আগুনে ঘি ঢাললেন কঙ্গনা রানাউত। তাঁর মন্তব্য, “দেশের রাষ্ট্রভাষা হওয়া উচিত সংস্কৃত।”

কঙ্গনার মন্তব্য, “প্রতিটা মানুষের জন্মগত অধিকার রয়েছে তাঁদের মাতৃভাষা ও সংস্কৃতি নিয়ে গর্ববোধ করার। যেমন আমি পাহাড়ের মেয়ে। সেটা নিয়ে গর্ববোধ করি। তবে আমাকে যদি জিজ্ঞেস করাই হয় যে, দেশের রাষ্ট্রভাষা কী হওয়া উচিত? তাহলে আমি বলব- সংস্কৃত। কান্নাড়া, তামিল, গুজরাতি কিংবা হিন্দি- সবভাষার থেকে পুরনো সংস্কৃত। আর এই প্রত্যেকটা ভাষারই জন্ম হয়েছে সংস্কৃত থেকেই। তাহলে সংস্কৃত আমাদের দেশের রাষ্ট্রভাষা না হয়ে হিন্দি কেন হবে? এটার উত্তর আমি পাইনি আজও। আসলে দেশের সংবিধান লেখার সময়-ই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।”

এখানেই অবশ্য থামেননি অভিনেত্রী। তাঁর মত, “কেউ যদি হিন্দিভাষাকে অস্বীকার করেন, তাহলে তিনি দিল্লির সরকারকেও মানছেন না। কিংবা দিল্লিকে রাজধানী হিসেবে মানতেও অস্বীকার করছেন। সংবিধান অনুযায়ী হিন্দি জাতীয় ভাষা। তো অজয়জি যদি বলে থাকেন যে, হিন্দি দেশের রাষ্ট্রভাষা, উনি তো ভুল কিছু বলেননি। তবে আমার মতে সেই জায়গা সংস্কৃতকেই দেওয়া ভাল। কেন প্রতিটা স্কুলে সংস্কৃত পড়ানো হয় না?”

[আরও পড়ুন: ‘ধাকড়’-এর ট্রেলারে তুখড় অ্যাকশন সিকোয়েন্সে নজর কাড়লেন কঙ্গনা, দেখুন]

প্রসঙ্গত, হিন্দিকে রাষ্ট্রভাষা করতে আগেই সোচ্চার হয়েছিল বিজেপি। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ‘এক দেশ-এক ভাষা’র পক্ষে সওয়াল করেছিলেন। যা নিয়ে দক্ষিণী রাজ্যগুলোতে সমালোচনা-প্রতিবাদের ঝড় উঠেছিল। সম্প্রতি সেই বিতর্কের পালে নতুন করে হাওয়া দিয়েছে অজয় দেবগণের টুইট। দক্ষিণী-স্টার ‘KGF 2’ খ্যাত কিচ্চা সুদীপ সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে প্যান ইন্ডিয়া সিনেমা নিয়ে কথা বলছিলেন। সেখানেই বলে বসেন- “হিন্দি আর এখন আমাদের জাতীয় ভাষা নয়…।” নজর এড়ায়নি অজয় দেবগণের। পাল্টা টুইটে দক্ষিণী অভিনেতাকে একহাত নেন তিনি। বলেন, “কিচ্চা সুদীপ ভাই, আপনার কথা অনুযায়ী হিন্দি আমাদের রাষ্ট্রভাষা যদি না হয়, তাহলে আপনারা নিজেদের মাতৃভাষার ছবিগুলোকে কেন হিন্দিতে ডাবিং করে রিলিজ করেন? হিন্দি আমাদের মাতৃভাষা আর রাষ্ট্রভাষা ছিল, আছে, থাকবে।”

আসলে অতিমারী উত্তর পর্বে বলিউড ছবির তুলনায় RRR, ‘পুষ্পা দ্য রাইস’, ‘কেজিএফ চ্যাপ্টার ২’-এর মতো দক্ষিণী সিনেমাগুলো বক্স অফিস কাঁপানো ব্যবসা করেছে। এপ্রসঙ্গে উল্লেখ্য, এই প্রতিটা দক্ষিণী সিনেমার হিন্দি ভার্সনের আয়ও নজরকাড়া। যা কিনা রাতারাতি বলিউডি পরিচালক-প্রযোজকদের উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। যা নিয়ে মনোজ বাজপেয়ী, নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকিদের মতো তারকারাও মুখ খুলেছেন। মনোজের মন্তব্য, “বলিউডের পরিচালকরা দক্ষিণী সিনেমার সাফল্যে ভয় পাচ্ছে।” এর মাঝেই অজয়-কিচ্চা সুদীপের ভাষা টুইট বেজায় প্রাসঙ্গিক। বলিউড ও দক্ষিণী সিনে ইন্ডাস্ট্রির চরম প্রতিযোগিতা একেবারে প্রকাশ্যে। সেই প্রেক্ষিতেই এবার মুখ খুলেছিলেন কঙ্গনা রানাউত। তবে অভিনেত্রী কিন্তু দক্ষিণী বনাম বলিউড ইন্ডাস্ট্রির এই যুদ্ধকে মোটেই সুনজরে দেখছেন না।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Entertainment news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Kangana ranaut says not hindi sanskrit should be our national language