scorecardresearch

বড় খবর

Explained: বিশ্বকাপ দেখতে কাতার যাচ্ছেন ভালো, কিন্তু এই নিয়মগুলো জানেন তো? নাহলে বিপদ

কাতার এক ক্ষুদ্র, রক্ষণশীল আরব মুসলিম দেশ। এর আইনকানুন অনেকটাই মধ্যযুগীয়।

Explained: বিশ্বকাপ দেখতে কাতার যাচ্ছেন ভালো, কিন্তু এই নিয়মগুলো জানেন তো? নাহলে বিপদ

আসন্ন ফুটবল বিশ্বকাপ উপলক্ষে সেজে উঠেছে আরব দেশ কাতার। দশ লক্ষাধিক দর্শক হবে বলেই মনে করছেন আয়োজকরা। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এই সব দর্শকরা আসবেন। তাঁদের রীতিনীতি, পোশাক, পরিচ্ছদ, খাদ্যাভাস- সবকিছুই হবে আলাদারকম। যার জেরে আয়োজক দেশটি এক ননস্টপ পার্টিস্থলে পরিণত হবে। অন্তত এমনটাই হওয়ার কথা। তবে, এবারের বিশ্বকাপের পরিবেশটা ভিন্নরকম হতেও পারে। কারণ, আয়োজন দেশটির নাম কাতার। যা এক ক্ষুদ, রক্ষণশীল আরব মুসলিম দেশ।

বিধি অত্যন্ত কড়া

আর, এই সব কারণেই কাতার মদ, ধূমপান, ফুটবল গুন্ডামিকে কতটা প্রশ্রয় দেবে, তা নিয়ে রীতিমতো সন্দেহ রয়েছে সব মহলেই। অতীতে বিভিন্ন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় দেখা গিয়েছে, কাতার অত্যন্ত শক্ত হাতে এই ধরনের বিষয়গুলো নিয়ন্ত্রণ করেছে। এমনিতে তারা বিদেশিদের স্বাগত জানাতে তৈরি। কিন্তু, সেটা ঐতিহ্যগত মুসলিম মূল্যবোধ এবং পরম্পরার ওপর ভিত্তি করে। বংশগতভাবে শক্তিশালী আমিরিয়তের শাসনের ওপর নির্ভর করে।

শরিয়ত আইন চলে

কাতারের বিচার ব্যবস্থা অত্যন্ত কঠোর। যা চলে সবটাই ইসলামি আইন এবং শরিয়তের ওপর নির্ভর করে। আইনি ক্ষেত্রে আইনজীবী এবং পুলিশের প্রতি পক্ষপাতিত্ব করা হয়। যে প্রবণতার জন্য পশ্চিমের দেশগুলো বারবার কাতারের সমালোচনা করেছে। কিন্তু, অন্যান্য আরব ইসলামিক দেশগুলোর মতই কাতারও সেসব সমালোচনা বিশেষ একটা গায়ে মাখেনি। এমনিতে তারা বলেছে যে পর্যটকদের জন্য কিছু আইন শিথিল হবে। কিন্তু বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী ফুটবল ভক্তদের কাছে কাতারের সেই শিথিল আইন ও সাংস্কৃতিক রীতিনীতিও বেশ কঠোর হতে চলেছে। বিশেষ করে মদ, মাদক, যৌনতা এবং পোশাকবিধির ক্ষেত্রে তো বটেই।

আরও পড়ুন- গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনে বিরাট চমক বিজেপির, গেরুয়া প্রার্থী রবীন্দ্র জাদেজার স্ত্রী

নির্দেশিকায় সামান্য ভুলচুকেই বড় সমস্যা

শুধুমাত্র ন্যূনতম মদ্যপানের ক্ষেত্রেই যদি ধরা যায়, তাহলেই ব্যাপারটা সহজে অনুমান করা যেতে পারে। যেমন, কাতারে লাইসেন্স আছে এমন হোটেল, রেস্তোরাঁ এবং বারে অ্যালকোহল পরিবেশন করা হয়। এটি অন্য কোথাও খাওয়া বেআইনি। দোহার অমুসলিম বাসিন্দাদের মধ্যে যাঁদের মদের লাইসেন্স আছে, তাঁরা বাড়িতে মদ পান করতে পারেন। বিশ্বকাপে, ভক্তদের স্টেডিয়াম কম্পাউন্ডের মধ্যে বুডওয়েজার বিয়ার কেনার অনুমতি দেওয়া হবে। যদিও তা কনকোর্স কনসেশন স্ট্যান্ডে নয়। গেমের আগে এবং পরে। দোহা শহরের কেন্দ্রস্থলে একটি মনোনীত “ফ্যান জোনে” সন্ধ্যায় ভক্তরা তা পান করতে পারবেন। কিন্তু, এইসব ছাড়ের বাইরে কিছু করলে? সেই কঠোর আইন। যাকে অনেকটাই মধ্যযুগীয় বলা যেতে পারে।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Explained news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Keep in mind these laws and customs of qatar for the world cup