scorecardresearch

বড় খবর

Explained: ইউক্রেনের পরমাণু চুল্লিতে অগ্নিকাণ্ড এবং তার বিপদ

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও ওই পরমাণু কেন্দ্রের নিরাপত্তা রক্ষার জন্য রাশিয়ার কাছে আবেদন করেছে।

explain

ইউরোপের বৃহত্তম পরমাণু কেন্দ্র এনারহোদারের জাপোরিঝঝিয়ায়। খারকিভের কাছে এবং কিয়েভের ৫৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে এই এলাকা। ইউক্রেন এবং রুশ সেনার যুদ্ধ চলাকালীন এই পরমাণু চুল্লিতে আগুন লেগে যায়। চুল্লি-সংলগ্ন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রেই আগুন লাগে। তবে, পরমাণু চুল্লি পর্যন্ত আগুন ছড়ায়নি। যার ফলে তেজস্ক্রিয়তা ছড়ানোর কোনও খবর নেই।

জাপোরিঝঝিয়া ইউক্রেনের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের এক শহর। ইউক্রেনের এক পঞ্চমাংশ বিদ্যুত্ এই পরমাণু কেন্দ্র থেকেই সরবরাহ হয়। এখানে ছ’টি নিউক্লিয়ার রিঅ্যাক্টর আছে। যার প্রতিটির উত্পাদন ক্ষমতা ৯৫০ মেগাওয়াট। সবমিলিয়ে পরমাণু চুল্লিগুলোর মোট বিদ্যুত্ উত্পাদন ক্ষমতা ৫,৭০০ মেগাওয়াট। আয়তনে ইউক্রেনের এই পরমাণু কেন্দ্র কুড়ানকুলান পরমাণু কেন্দ্রের তিন গুণ।

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে, ইউক্রেনের এই পরমাণু কেন্দ্রের ওপর ক্ষেপণাস্ত্র আছড়ে পড়েছে। তারপর এই পরমাণু কেন্দ্রের কাছে এক বাড়ি থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখা গিয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, রুশ সেনা এই পরমাণু কেন্দ্রকে ঘিরে ধরে চারপাশ থেকে গুলি চালাচ্ছে।

এই প্রসঙ্গে ইউক্রেনের বিদেশমন্ত্রী দিমিত্র কুলেবা বলেন, ‘এই পরমাণু কেন্দ্রে বিস্ফোরণ ঘটলে, তা চোরনোবিলের চেয়ে ১০ গুণ বেশি ক্ষতি করবে। সেই কারণে রাশিয়ানদের অবিলম্বে গুলিচালানো থামানো উচিত। দমকল কর্মীদের ওই এলাকায় প্রবেশ করতে দেওয়া উচিত। বাড়ানো উচিত নিরাপত্তা।’

আরও পড়ুন- শাঁখের করাত, নিষিদ্ধ রাশিয়া, মস্কো থেকে অস্ত্র নেবে না দিল্লি

রাষ্ট্রসংঘের পরমাণু নজরদারি সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল অ্যাটমিক এনার্জি এজেন্সি জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত জাপোরিঝঝিয়া পরমাণু কেন্দ্রের যন্ত্রপাতির কোনও ক্ষতি হয়নি। ওই পরমাণু কেন্দ্রে কর্মরত শ্রমিকরা দ্রুত ব্যবস্থা নিয়েছেন। যার ফলে পরমাণু কেন্দ্রের তেজস্ক্রিয়তারও খুব একটা হেরফের হয়নি। তবে, ওই পরমাণু কেন্দ্রের পরিস্থিতির যাতে অবনতি না-ঘটে, সেই ব্যাপারে চিন্তিত গোটা বিশ্ব। মার্কিন বিদ্যুত্ সচিব জেনিফার গ্র্যানহোম জানিয়েছেন, তেজস্ক্রিয়তা বৃদ্ধির খবর নেই।

গোটা ঘটনায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও চিন্তিত। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন নিজে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির জেলেনস্কির সঙ্গে পরমাণু কেন্দ্রে অগ্নিকাণ্ডের ব্যাপারে কথা বলেছেন। জেলেনস্কির সুরেই বাইডেনও রাশিয়াকে ওই পরমাণু কেন্দ্রে সামরিক কার্যকলাপ বন্ধ রাখার আবেদন জানিয়েছেন। একইসঙ্গে দমকল কর্মীদের এবং জরুরি বিভাগের কর্মীদের ওই পরমাণু কেন্দ্রে প্রবেশের অনুমতি দেওয়ার আবেদনও করেছেন বাইডেন।

Read story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Explained news download Indian Express Bengali App.

Web Title: The fire at ukraines nuclear power plant