scorecardresearch

দু’টি ডোজেই একমাত্র মৃত্যু প্রতিরোধ সম্ভব, দাবি ICMR-র

সমীক্ষায় টিকার দু’টি ডোজের কার্যকারিতার প্রমাণ পেশ করা হয়েছে।

দু’টি ডোজেই একমাত্র মৃত্যু প্রতিরোধ সম্ভব, দাবি ICMR-র
আগামী ৩ জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে ১৫-১৮ বছর বয়সীদের টিকাকরণ অভিযান।

ফের চোখ রাঙাচ্ছে করোনাভাইরাস। তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আতঙ্কে প্রমাদ গুনছে দেশ। মারণ ভাইরাসেপ প্রকোপ রুখতে টিকাকরণ ও সতর্কতাই একমাত্র পথ বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। কেন্দ্রের তরফে দেশবাসীকে বিনামূল্যে টিকাদানের কাজ চলছে। এই অবস্থায় আইসিএমআর রিপোর্টে প্রকাশ, ডেল্টা ভেরিয়েন্ট-চালিত কোভিডের দ্বিতীয় তরঙ্গের সময় উচ্চ-ঝুঁকিপূর্ণ পুলিশকর্মীদের ৯৫ শতাংশকেই মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচিয়েছে ভ্যাকসিনের দু’টি ডোজ। সোমবার নীতি আয়োগের সদস্য ডাঃ ভি কে পাল আইসিএআর-এর এই রিপোর্ট প্রকাশ্যে আনেন।

তামিলনাড়ু পুলিশে টিকাকরণ ও কোভিড আক্রান্ত-মৃত্যুর পরিসংখ্যান তুলে ধরা হয়েছে আইসিএমআর রিপোর্টে। ওই সমীক্ষায় তামিলনাড়ুতে ১ লক্ষ ১৭ হাজার ৫৪৪ জন পুলিশ কর্মীর মধ্যে ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা মূল্যায়ন করা হয়েছে। নীতি আয়োগের সদস্য ডাঃ ভি কে পাল জানিয়েছেন, যে ১ লক্ষ ১৭ হাজার ৫৪৪ জন পুলিশ কর্মীর উপর এই সমীক্ষা করা হয়েছে তার মধ্যে ৬৭ হাজার ৬৭৩ জন টিকার দু’টি ডোজই নিয়েছিলেন। ৩২ হাজার ৭৯২ জন একটি ডোজ নিয়েছেন। সমীক্ষা পর্যন্ত টিকা নেননি ১৭ হাজার ০৫৯ জন পুলিশকর্মী।

আরও পড়ুন- অদূর ভবিষ্যতেই ১২-১৮ বয়সীদের টিকা, দিল্লি হাইকোর্টে জানাল কেন্দ্র

সমীক্ষায় প্রকাশ, দ্বিতীয় ঢেউ-য়ের সময় টিকা না নেওয়া ১৭ হাজার ০৫৯ পুলিশকর্মীর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২০ জনের। এছাড়া যাঁরা টিকার একটি ডোজ নিয়েছিলেন (৩২ হাজার ৭৯২ জন) তাঁদের মধ্যে মারণ ভাইরাসে প্রাণ গিয়েছে ৭ জনের।

কিন্তু যেসব পুলিশ কর্মীর টিকার দু’টি ডোজই নেওয়া ছিল (৬৭ হাজার ৬৭৩ জন) তাঁদের মধ্যে মৃত্যুর হার অনেকটাই কম। এক্ষেত্রে করোনা সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের। শতাংশের বিচারে এই হার প্রতি হাজারে মাত্রা ০.০৬ শতাংশ। টিকা না নেওয়া পুলিশ কর্মীদের মৃত্যুর হার প্রতিহাজারে ১.১৭ শতাংশ। একটি টিকা নেওয়া পুলিশ কর্মীদের ক্ষেত্রে মৃত্যু হার ০.২১ শতাংশ।

Read in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: 2 doses highly successful in preventing deaths during second wave icmr