scorecardresearch

বড় খবর

বিজেপি বিধায়কের বিরুদ্ধে পদক্ষেপের পালটা? আপ বিধায়কের বাড়ি-সংস্থায় অভিযান সিবিআইয়ের

এই ব্যাপারে সিবিআই একটি বিবৃতি দিয়েছে। সেই বিবৃতিতে জানিয়েছে, প্রায় ১৬.৫৭ লক্ষ টাকা, প্রায় ৮৮টি বিদেশি মুদ্রা, সম্পত্তির নথি, বিভিন্ন ব্যাংকের পাসবইয়ের মতো বিভিন্ন নথি উদ্ধার হয়েছে।

CBI_Office

বিজেপি নেতা তেজিন্দর পাল সিং বাগ্গাকে গ্রেফতারি নিয়ে দিল্লি পুলিশ ও পঞ্জাব পুলিশের সংঘর্ষের একদিন পরই শনিবার পঞ্জাবের আপ বিধায়ক যশবন্ত সিংয়ের ঘনিষ্ঠদের বাড়িতে অভিযান চালাল সিবিআই। এমনকী, মালেরকোটলা এলাকাতেও পর্যন্ত অভিযান চালানো হয়েছে। ৪০.৯২ কোটি টাকার ঋণ প্রতারণা-কাণ্ডে চালানো হয়েছে এই অভিযান। এই অভিযোগ এমন এক কোম্পানির বিরুদ্ধে যার অন্যতম ডিরেক্টর হিসেবে নাম রয়েছে যশবন্ত সিংয়ের।

এই ব্যাপারে সিবিআই একটি বিবৃতি দিয়েছে। সেই বিবৃতিতে জানিয়েছে, প্রায় ১৬.৫৭ লক্ষ টাকা, প্রায় ৮৮টি বিদেশি মুদ্রা, সম্পত্তির নথি, বিভিন্ন ব্যাংকের পাসবইয়ের মতো বিভিন্ন নথি উদ্ধার হয়েছে। এগুলো পাওয়া গিয়েছে বেসরকারি সংস্থাটির অফিস, তাদের ডিরেক্টর এবং গ্যারান্টারদের অফিস ও বাড়ি থেকে। এই ব্যাপারে সিবিআই তারা কর্পোরেশন লিমিটেডের বিরুদ্ধে একটি ব্যাংক প্রতারণার অভিযোগ দায়ের করেছে। এই তারা কর্পোরেশন লিমিটেড পরবর্তীকালে নাম বদলে হয় মলৌধ অ্যাগ্রো লিমিটেড। ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার অভিযোগের ভিত্তিতে এই অভিযান চালানো হয়েছে বলেই জানিয়েছে সিবিআই।

পঞ্জাবের মালেরকোটলা তেহসিলের গউনসপুরা এলাকার বাসিন্দা যশবন্ত সিং। সেখানেই তাঁর সংস্থারও অফিস। সংস্থার অন্য ডিরেক্টররা হলেন বলবন্ত সিং, কুলবন্ত সিং, তেজিন্দর সিং। এই মামলায় তাঁদের বিরুদ্ধেও অভিযোগ দায়ের করেছে সিবিআই। এর পাশাপাশি, এই অ্যাগ্রো সংস্থার সঙ্গে যুক্ত তারা হেলথ ফুড ও তার ডিরেক্টরদের বিরুদ্ধেও অভিযোগ দায়ের করেছে সিবিআই। তদন্তকারীরা জানতে পেরেছেন, এই সংস্থার ডিরেক্টররা প্রত্যেকে একই জায়গায় থাকেন। আর, প্রত্যেকেই পরস্পরের আত্মীয়। তদন্তে বিভিন্ন ব্যক্তির সই করা ৯৪টি বিয়ারিং ব্ল্যাংক চেক উদ্ধার হয়েছে। উদ্ধার হয়েছে বিভিন্ন ব্যক্তির বেশ কয়েকটি আধার কার্ডও।

আরও পড়ুন- আপের জোয়ার জম্মু-কাশ্মীরেও, সমর্থকদের নিয়ে যোগ তিন বারের বিধায়কের

এই প্রসঙ্গে সিবিআইয়ের এক আধিকারিক বলেন, ‘এই ঘটনায় তদন্ত চলছে। তদন্তে জানা গিয়েছে যশবন্ত, বলবন্ত এবং কুলবন্ত একে অপরের ভাই। আর, অন্যতম ডিরেক্টর তেজিন্দর হলেন কুলবন্তের ছেলে। সবাই এক বাড়িতে থাকেন। তাঁরা তারা হেলথ ফুডসেরও ডিরেক্টর। এই তারা হেলথ ফুডসই তারা কর্পোরেশনের জন্য নেওয়া ঋণের গ্যারান্টার।’ কিন্তু, আচমকা এই সিবিআই হানা কি বাগ্গাকে গ্রেফতারির জন্য পঞ্জাব পুলিশের হানার জের? পঞ্জাবে বর্তমানে আপ সরকার। এই সিবিআই হানা কি বাগ্গার ঘটনার পালটা? সেই প্রশ্ন তুলেছে আম আদমি পার্টি। ইতিমধ্যেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিরোধীরা অভিযোগ করেছে, কেন্দ্রীয় সরকার কেন্দ্রীয় তদন্ত এজেন্সিগুলোকে বিরোধীদের বিরুদ্ধে ব্যবহার করছে। শনিবারের সিবিআই অভিযানের পর এবার সেই একই অভিযোগ জোরদার করা শুরু করেছে আম আদমি পার্টিও।

Read story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Cbi raids punjab aap mla jaswant singhs premises