scorecardresearch

বড় খবর

করোনাতঙ্ক: ভারতে আক্রান্ত ১৭৩, মৃত ৪, বাতিল আন্তর্জাতিক উড়ান

আজ রাত আটটায় জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, আগামী রবিবার, ২২ মার্চ, সারা দেশে পালিত হবে ‘জনতা কার্ফু’।

coronavirus in kolkata
৬ মাসের জেল বা জরিমানা বা উভয়ই হতে পারে। ছবি: পার্থ পাল, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস
ভারতে নভেল করোনাভাইরাসের (COVID-19) চতুর্থ বলি হলেন পাঞ্জাবের নওয়ানশহর জেলার এক ৭০ বছরের বৃদ্ধ, যিনি জার্মানি থেকে ইতালি হয়ে দেশে ফেরেন সপ্তাহ দুয়েক আগে। ডায়াবেটিস এবং হাইপারটেনশনে ভুগছিলেন ওই বৃদ্ধ, এবং বুধবার তাঁর মৃত্যুর পর স্বাস্থ্যকেন্দ্রে পরীক্ষা করা হলে তাঁর দেহে মেলে করোনার জীবাণু। তাদের শেষ আপডেটে স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে, ভারতে মোট COVID-19 আক্রান্তের সংখ্যা ১৭৩, এঁদের মধ্যে ১৯ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। ভারতে এখনও অভ্যন্তরীণ সংক্রমণের কোনও চিহ্ন পাওয়া যায় নি বলেই জানিয়েছে মন্ত্রক।

আজ রাত আটটায় জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, আগামী রবিবার, ২২ মার্চ, সারা দেশে পালিত হবে ‘জনতা কার্ফু’। পাশাপাশি তিনি দেশবাসীর কাছে আবেদন জানান, তাঁরা যাতে দিশেহারা হয়ে না পড়েন, স্বাভাবিক ভাবেই কেনাকাটা করেন, এবং ভিড়ভাট্টা এড়িয়ে চলেন, বিশেষ করে বয়স্করা।

চেন্নাইয়ের ইন্সটিটিউট অফ ম্যাথেম্যাটিক্স সায়েন্সেস-এর বিজ্ঞানীদের এক গবেষণায় প্রকাশ পেয়েছে যে ভারতে নভেল করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা অপেক্ষাকৃত মন্থরগতিতে বৃদ্ধি পাওয়ার একটা কারণ এই যে এখন পর্যন্ত প্রত্যেক আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে গড়ে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে স্রেফ ১.৭ জনের মধ্যে। এই হারে চলতে থাকলে আগামী পাঁচদিনে ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াবে আন্দাজ ২০০, বলছে গবেষণা।

শুক্রবার দুপুরে জনবিরল এসপ্ল্যানেড। ছবি: পার্থ পাল, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

২২ মার্চ থেকে বন্ধ আন্তর্জাতিক উড়ান

এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে, ২২ মার্চ থেকে এক সপ্তাহের জন্য ভারতে অবতরণ করবে না কোনও আন্তর্জাতিক উড়ান। তবে ২১ মার্চ এয়ার ইন্ডিয়ার একটি 787-Dreamliner উড়ে যাবে রোমে, সেখানে আটকে পড়া ছাত্রছাত্রী এবং অন্যান্য ভারতীয় নাগরিকদের উদ্ধার করতে।

কেন্দ্র সরকারের তরফে সমস্ত রাজ্য সরকারকে অনুরোধ করা হয়েছে যেন জরুরি/অত্যাবশ্যক ক্ষেত্রের কর্মী বাদে বেসরকারি সংস্থার কর্মীদের বাড়ি থেকে কাজ করা বাধ্যতামূলক করা হয়। এছাড়াও ভিড় কমাতে কেন্দ্রীয় সরকারের সমস্ত গ্রুপ ‘বি’ ও ‘সি’ কর্মীদের একদিন অন্তর অফিসে আসতে বলা হবে, এবং কর্মীদের হাজিরা দেওয়ার সময়ে পরিবর্তন করা হবে।

ভারতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি ডাঃ হেঙ্ক বেকেদাম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, করোনা মহামারীর মোকাবিলায় “বলিষ্ঠ এবং ব্যাপক” প্রতিক্রিয়া ভারতের। তবে তিনি এও বলেছেন, “ভারতে আরও বেশি (করোনাভাইরাস) টেস্টিংয়ের প্রয়োজন, এবং সেই পথেই হাঁটছে দেশ। গুরুত্বপূর্ণ হলো, মাঝ-ফেব্রুয়ারি থেকে নজরদারি ব্যবস্থায় যাঁদের প্রবল শ্বাসকষ্ট রয়েছে তাঁদের পরীক্ষা করার কাজ চলছে, সে তাঁরা ভ্রমণ করুন কী না করুন, সংস্পর্শে আসুন বা না আসুন। কিছু নেতিবাচক ফল এসে গিয়েছে, এ সপ্তাহের শেষে আরও ফল বেরোবে।”

ছত্তিসগড়, চণ্ডীগড়, গুজরাটে প্রথম করোনা আক্রান্তের খবর

বুধবার রাতে চণ্ডীগড়ের প্রথম করোনা আক্রান্তের খবর নিশ্চিত করল স্বাস্থ্য দফতর। আক্রান্ত এক ২৩ বছরের তরুণী, যিনি রবিবার ইংল্যান্ড থেকে ফেরেন। জ্বর এবং সর্দি দেখা দেওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে। ওদিকে ছত্তিসগড়েও আক্রান্ত হয়েছেন এক ২৪ বছরের তরুণী, রায়পুরের AIIMS-এ চিকিৎসা চলছে তাঁর। জানা যাচ্ছে, লন্ডন থেকে ইন্দোর হয়ে রায়পুর যান তিনি, কিন্তু বিমানবন্দরে পরীক্ষা করা হয় নি তাঁকে। AIIMS-এ নিয়মমাফিক চেক আপ করাতে গেলে তাঁর নমুনায় ধরা পড়ে করোনার উপসর্গ।

অন্যদিকে, গুজরাট থেকেও মিলেছে দু’জনের আক্রান্ত হওয়ার খবর। এই প্রথম সে রাজ্যে করোনা আক্রান্তের খবর পাওয়া গেল। উত্তরাখণ্ডে মোট তিনজন আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে, তিনজনেই ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিসের প্রশিক্ষণরত অফিসার।

আজ সকালে মুম্বই থেকে আরও দু’জনের আক্রান্ত হওয়ার খবর এসেছে, যার ফলে মহারাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৭। মুম্বইয়ে শহরাঞ্চলে ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। মাসের শেষ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে সমস্ত শপিং মলও। তবে মলের ভেতর নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দোকান খোলা থাকবে।

coronavirus in india
দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ নয়ডার ইস্কন মন্দির। ছবি: অভিনব সাহা, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

কর্ণাটকের কুর্গে এক আক্রান্ত সমেত সে রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ১৫। দিল্লিতে এই সংখ্যা ১২, উত্তর প্রদেশে ১৭, কেরালায় ২৭, তেলঙ্গানায় ছয়, রাজস্থানে চার, এবং হরিয়ানায় ১৭। লাদাখে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে আট, এবং জম্মু-কাশ্মীরে চার। অন্ধ্র প্রদেশ, ওড়িশা, পশ্চিমবঙ্গ, পন্ডিচেরি, চণ্ডীগড় এবং পাঞ্জাবে এখন পর্যন্ত একজন করে আক্রান্তের খবর মিলেছে।

তামিল নাড়ুতে দু’জন আক্রান্ত, কিন্তু এঁদের মধ্যে একজন “ডোমেস্টিক কেস” বলে জানিয়েছেন রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সি বিজয়ভাস্কর।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের জেরে শনিবার থেকে পাঞ্জাবে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে সরকারি ও বেসরকারি বাস এবং অটোরিকশা সমেত সমস্ত গণ পরিবহণ। এছাড়াও রাজ্যে বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে সমস্ত হোটেল এবং রেস্তোরাঁ, ছুটি বাতিল করা হয়েছে পুলিশের সব ডিসি ও এসএসপি পদমর্যাদার অফিসারদের। আপাতত স্থগিত থাকবে সমস্ত স্কুলের পরীক্ষা। আপাতত বন্ধ রয়েছে স্কুল, জিম, এবং পানশালা। বন্ধ ৫০ জনের বেশি মানুষের জমায়েতও।

coronavirus mumbai
জনশূন্য মুম্বইয়ের গেটওয়ে অফ ইন্ডিয়া। মহারাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৯। ছবি: প্রদীপ দাস, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

বাতিল আরও ৮৪, ৩১ মার্চ পর্যন্ত বাতিল ট্রেনের সংখ্যা ১৫৫

২০ এবং ৩১ মার্চের মধ্যে আরও ৮৪টি ট্রেন বাতিলের কথা ঘোষণা করেছে ভারতীয় রেল। এই নিয়ে মোট বাতিল ট্রেনের সংখ্যা দাঁড়াল ১৫৫। এগুলির মধ্যে রয়েছে IRCTC পরিচালিত দুটি তেজস এক্সপ্রেস এবং একটি হামসফর এক্সপ্রেস।

রেলের এক আধিকারিক সংবাদ সংস্থা পিটিআই-কে জানিয়েছেন, “এই ১৫৫টি ট্রেনের প্রত্যেক যাত্রীকে আলাদা করে জানানো হচ্ছে। বাতিল ট্রেনগুলির জন্য কোনও ক্যান্সেলেশন ফি নেওয়া হবে না। ১০০ শতাংশ রিফান্ড পাবেন যাত্রীরা।”

পর্যটনের জন্য বিশেষ ট্রেন, যেমন মহারাজা, বুদ্ধিস্ট, ভারত দর্শন, এবং বিভিন্ন রাজ্যের স্পেশাল ট্রেন ইতিমধ্যেই বাতিল হয়েছে।

coronavirus in india
নিস্তব্ধ আহমেদাবাদ রেল স্টেশন। ছবি: জাভেদ রাজা, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

এছাড়াও ২০ মার্চ মধ্যরাত থেকে রোগী, ছাত্রছাত্রী, এবং বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন যাত্রী বাদে আর কেউ আপাতত ট্রেনের টিকিটের ওপর কোনোরকম ছাড় পাবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছে ভারতীয় রেল। করোনাভাইরাসের জেরে অনাবশ্যক ট্রেন সফর রুখতেই এই পদক্ষেপ। এর অর্থ হলো, সিনিয়র সিটিজেন, কৃষক, যুদ্ধে নিহত সৈনিকের স্ত্রী, ভিআইপি, ইত্যাদি আওতায় বর্তমানে ছাড় পাওয়া যাবে না।

মঙ্গলবার তাদের প্রত্যেক আঞ্চলিক বিভাগকে একটি নির্দেশিকা জারি করে ভারতীয় রেল, যাতে বলা হয় যে কোনও কর্মীর যদি জ্বর, কাশি, সর্দি, বা শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়, তবে তাঁকে যেন খাবার পরিবেশনার দায়িত্ব না দেওয়া হয়। প্রতিষেধক পদক্ষেপ হিসেবে স্টেশনে ভিড় কমাতে প্ল্যাটফর্ম টিকিটের দামও বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

বাতিল সমস্ত বোর্ড পরীক্ষা

আইসিএসই ও আইএসসি (দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণী)-র পরীক্ষা, যা শেষ হওয়ার কথা ছিল ৩১ মার্চের মধ্যে, সেগুলি আপাতত স্থগিত করা হয়েছে। এছাড়াও ১৯ থেকে ৩১ মার্চের মধ্যে বাতিল হয়েছে সিবিএসই বোর্ডের সমস্ত পরীক্ষাও। নির্ধারিত সময়সীমার পর অবস্থা পুনর্বিবেচনা করে ফের ঘোষিত হবে নতুন সময়সূচী।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Covid coronavirus india updates march 19