scorecardresearch

বড় খবর

‘বিজয় দিবসে’ কাবুলের রাস্তায় তালিবানি হুঙ্কার, ব্রাত্য মহিলারা!

কাবুলের বেশিরভাগ মহিলার দাবি, তালেবান ক্ষমতায় আসায় নারী স্বাধীনতা ক্ষুণ্ণ।

‘বিজয় দিবসে’ কাবুলের রাস্তায় তালিবানি হুঙ্কার, ব্রাত্য মহিলারা!
বিজয় দিবসে তালেবানি হুঙ্কার, ব্রাত্য মহিলারা!

কাবুল জয়ের এক বছর, তালিবান জমানায় নারীরা কী আজও ব্রাত্য? অন্তত এক বছর পূর্তিতে মহিলাদের অংশ নেওয়ার সার্বিক চিত্র সেরকমই ইঙ্গিত দিচ্ছে। কাবুল জয়ের এক বছর পর মহিলাদের স্বাধীনতা কার্যত তলানিতে। মানব অধিকার নিয়েও সরবর হয়েছেন সেদেশের সাধারণ আম-আদমি। চোখের সামনে শিল্পীর বাদ্যযন্ত্রকে পুড়িয়ে দেওয়া থেকে শুরু করে সংবাদমাধ্যমে গান-পয়েন্টের মুখে সঞ্চালকের সংবাদপাঠ এমন একাধিক ভিডিও এই এক বছরে সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে সামনে এসেছে। ফলে এক বছরের বিজয় দিবস উপলক্ষে দেশের সার্বিক পরিস্থিতি, উন্নয়ন নিয়ে স্বভাবতই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

ঠিক এক বছর আগে এই দিনেই কাবুল দখল করেছিল তালিবান। পিছু হটেছিল মার্কিন পরিচালিত বাহিনী। আর বিজয় দিবসের এক বছর পূর্তিতে কয়েকশ তালেবান যোদ্ধা সোমবার কাবুলের রাস্তায় নেমেছিল। হুড তোলা গাড়িতে স্বয়ংক্রিয় একে৪৭ হাতে সাদা-কালো পতাকা নাড়িয়ে বিজয় দিবস উদযাপনে মেতে ওঠে। কিন্তু বিজয়দিবসে মহিলাদের অংশগ্রহণ সেভাবে চোখে না পড়ায় নারী স্বাধীনতার বিষয়টি ফের আলোচনায় উঠে এসেছে। গত বছর এই দিনে দেশ জুড়ে শয়ে শয়ে মানুষ দেশ ছাড়ার হিড়িকে সামিল হয়। মার্কিন পণ্যবাহী বিমানে চড়ে দেশ থেকে পালানোর চেষ্টা করেছিলেন অনেকেই।

আরও পড়ুন: [ ‘দলিত বলেই ওকে এভাবে মরতে হল, আমরা আতঙ্কিত’! প্রশাসনকেই একহাত নিল মৃত শিশুর পরিবার ]

আর আজ এক বছরের বিজয় দিবসে মার্কিন দূতাবাসের সামনে বিজয়দিবসে মেতে উঠতে পেরে খুশি তালিবান প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের কর্তারা। তবে এক বছর ধরে তালিবান অধিগৃহীত আফগানিস্তানে নারীদের অধিকার কতটা রক্ষিত হয়েছে তা নিয়ে প্রশ্নটা থেকেই গিয়েছে। নারীদের শিক্ষার অধিকারও কার্যত কোণঠাসা করা হয়েছে। কেন কোন মহিলা অংশগ্রহণ করছেন না জানতে চাইলে এক কর্মকর্তা বলেন, “তাদের নিজেদের কাজ আছে”; অন্য একজন বলেছেন, “শরিয়াতে এটা অনুমোদিত নয়”; এবং, তৃতীয় একজন আশ্বস্ত করেছেন যে “আপনি আগামী বছর মহিলাদের দেখতে পাবেন”।

মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকা আমির খান মুত্তাকি বলেন, আফগানিস্তান সব দেশের সঙ্গে ভাল সম্পর্ক রাখতে আগ্রহী। তিনি বলেন, “আমরা কারুর সঙ্গে ঝামেলায় জড়াতে চাই না। আমরা সব দেশকে সন্তুষ্ট করেছি যে আমরা আফগানিস্তানের মাটি কারও বিরুদ্ধে ব্যবহার হতে দেব না। যদিও দিনটিকে সরকারী ছুটি ঘোষণা করা হয়েছিল, কাবুলের বেশিরভাগ বাসিন্দা বাইরে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এটিকে শুধুমাত্র তালেবানদের উদযাপনে পরিণত করেছে। যদিও কাবুলের বেশিরভাগ মহিলার দাবি, তালেবান ক্ষমতায় আসায় নারী স্বাধীনতা ক্ষুণ্ণ। বোরখার আড়ালের জীবন স্বাধীনতার একবছরে নারীদের জন্য তালেবানদের সেরা উপহার।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: In kabul taliban celebrates 1 yr in power but few civilians no women