scorecardresearch

বড় খবর

জম্মু-শ্রীনগর হাইওয়েতে নির্মীয়মাণ সুড়ঙ্গে ধস, নিখোঁজ বঙ্গের পাঁচ শ্রমিক

ঘটনার জেরে জম্মু-শ্রীনগর জাতীয় সড়ক বন্ধ রাখা হয়েছে।

under-construction tunnel on Jammu-Srinagar highway
ঘটনার জেরে জম্মু-শ্রীনগর জাতীয় সড়ক বন্ধ রাখা হয়েছে।

জম্মু ও কাশ্মীরের রামবান জেলার মাকেরকোট অঞ্চলে দুর্ঘটনা। পরীক্ষা চলাকালীন নির্মীয়মাণ টানেলের একটি অংশ ধসে বেশ কয়েকজনের আটকে পড়ার আশঙ্কা। ঘটনার পর এলাকায় উদ্ধারকাজ শুরু হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে খবর, দুর্ঘটনার জেরে ৬ থেকে ৭ জনের আটকে থাকা সম্ভাবনা রয়েছে। ইতিমধ্যেই আহত অবস্থায় একজনকে উদ্ধার করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং এক টুইট বার্তায় লেখেন, ‘উদ্ধারকাজ চলছে পুরোদমে। প্রশাসন ও পুলিশের তরফে পরিস্থিতির ওপর নজর রাখা হচ্ছে।   

জম্মু ও কাশ্মীরের রামবান জেলায় রামবান এবং রামসুর অঞ্চলের মধ্যে জাতীর সড়ক সম্প্রসারণের কাজ চলছে। কাজ চলাকালীন একটি নির্মীয়মাণ টানেল ধসে পড়ায় এই ঘটনা ঘটে। মাটির নীচে ১০ জনের আটকে থাকার খবর মিলেছে। আহত অবস্থায় ২ জন কে উদ্ধার করা হয়েছে তাদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে’।

নিখোঁজ শ্রমিকরা হলেন, যাদব রায় (২৩), গৌতম রায় (২২), সুধীর রায় (৩১), দীপক রায় (৩৩), পরিমল রায় (৩৮), শিব চৌহান (২৬), নবরাজ চৌধুরী (২৬), কুশি। রাম (২৫), মুজাফফর (৩৮), ইসরাত (৩০), বিষ্ণু গোলা (৩৩) এবং আমীন (২৬)। এঁদের মধ্যে পাঁচজন পশ্চিমবঙ্গের, দু’জন নেপালের, একজন আসামের এবং বাকি দু’জন স্থানীয়।

আরও পড়ুন: প্রবল বর্ষণে জনজীবন বিপর্যস্ত কেরালায়, ১২ জেলায় জারি কমলা সতর্কতা

সূত্রের খবর অনুসারে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাতে হটাতই নির্মীয়মাণ টানেলের একটি অংশ ধসে পড়ে। ঘটনার পরই পুলিশ এবং সেনা যৌথ ভাবে উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে। দুর্ঘটনা প্রসঙ্গে রামবান পুলিশের ডেপুটি কমিশনর বলেন, “রামবানের মাকেরকোট এলাকায় জম্মু-শ্রীনগর জাতীয় সড়কের কাজ চলাকালীন নির্মীয়মাণ টানেলের একটি অংশ ধসে পড়েছে। ৬ থেকে ৭ জন আটকে পড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। একজনকে উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার অভিযান চলছে। ঘটনার জেরে জম্মু-শ্রীনগর জাতীয় সড়ক বন্ধ রাখা হয়েছে।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: India several trapped as tunnel on jammu srinagar highway collapses