ভারতীয় ইন্টারনেটের লক্ষ্যে গবেষণা চালাচ্ছে আরএসএস নিয়ন্ত্রণাধীন সংস্থা, তথ্যকেন্দ্র নাগপুরেই

এই গোটা পরিকল্পনা কানিতকরের মস্তিষ্কপ্রসূত। তিনি বলেন, আরএফআরএফ ভারতে তৈরি ওয়ার এবং চিপসের জন্য স্টার্ট আপগুলির সঙ্গে কথা বলা শুরু করেছে। এরপর ভারতে রাউটার এবং কানেক্টর বানানোর কাজে উৎসাহ দেওয়া হবে।

By: New Delhi  September 30, 2018, 10:50:56 AM

আরএসএস-এর সংস্থা ভারতীয় শিক্ষণ মণ্ডল। তাদের গবেষণা সংস্থার নাম রিসার্চ ফর রিসার্জেন্স ফাউন্ডেশন। স্থানীয় ভাষায় ইমেল ডোমেইন তৈরি করেছে তারা। সংস্থার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে ভারত-কেন্দ্রিক প্রযুক্তিগত উৎপাদনের ব্যাপারে এটি প্রথম ধাপ। ভারতীয় সার্চ এঞ্জিন বানানোও তাদের পরিকল্পনায় রয়েছে বলে জানিয়েছে সংস্থা। এই ই মেল গুলি নাগপুরে রিসার্চ ফর রিসার্জেন্স ফাউন্ডেশন সংস্থার ডেটা সেন্টারে রক্ষিত থাকবে।

ভারতীয় শিক্ষণ মণ্ডলের সম্পাদক তথা রিসার্চ ফর রিসার্জেন্স ফাউন্ডেশন সংস্থার ট্রাস্টি মুকুল কানিতকর জানিয়েছেন, ‘‘আমরা পুরোপুরি ভারতীয় ইন্টারনেটের কথা ভাবছি। শুধু ই মেল আইডি নয়, সার্চ ইঞ্জিন, ডোমেইনের নাম, ওয়েবসাইট, কনটেন্ট, সবকিছু। এই পরিকল্পনার উপর কাজ চালানো হচ্ছে।’’

আরও পড়ুন, শিক্ষার বিকাশের জন্য প্রয়োজন উদ্ভাবনী শক্তি: নরেন্দ্র মোদী

তিনি আরও বলেন, ‘‘নিরাপত্তা ও গোপনীয়তার ব্যাপারও রয়েছে। সেটা বড় হয়ে দেখা দিচ্ছে কারণ আমরা বাইরের হার্ডওয়ার ব্যবহার করছি। সেই দিককার ভারতীয়করণে অনেকটা সময় লাগবে। সেটা হলে তবেই আমরা পুরোপুরি নিরাপদ হবো। যদি কেউ সিসকো রাউটার এবং চিনা কানেক্টর ব্যবহার করেন, তাহলে তাঁর তথ্য সুরক্ষিত থাকবে কি না তা নিশ্চিত করে বলা যায় না।’’

এই গোটা পরিকল্পনা কানিতকরের মস্তিষ্কপ্রসূত। তিনি বলেন, আরএফআরএফ ভারতে তৈরি ওয়ার এবং চিপসের জন্য স্টার্ট আপগুলির সঙ্গে কথা বলা শুরু করেছে। এরপর ভারতে রাউটার এবং কানেক্টর বানানোর কাজে উৎসাহ দেওয়া হবে।

শনিবার বিজ্ঞানভবনে আরএফআরএফ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তাদের নিজস্ব ই মেল পরিষেবার উদ্বোধন করা হয়। এই প্ল্যাটফর্মের প্রথম পরিষেবা গ্রহণকারী হলেন মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী প্রকাশ জাভাড়েকর।

কানিতকর বলেন, ‘‘এখন যদি কেউ উইকিপিডিয়ায় কিছু সার্চ করতে চায়, তাহলে শুরুতে সে ব্যাপারে পশ্চিমি বিষয়গুলি দেখানো হবে, পরে আমাদের নিজস্ব কনটেন্ট আসবে। আপনি যডি ছত্তিশগড়ের কোনও আদিবাসীদের সম্পর্কে জানতে চান, তাহলে প্রথমে পশ্চিমি রেফারেন্স আসবে। তাতে দোষের কিছু নেই। কিন্তু ওরা সেটা যদি গোন্ডিতে করতে পারে, তাহলে তারা নিজেদের রেফারেন্সগুলো পাবে।’’

সার্চ এঞ্জিনের ব্যাপারে সাফল্য পেতে এখনও দু-এক বছর সময় লাগবে বলে আরএফআরএফের ঘনিষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে।

কানিতকরের আশা, এর ফলে অধিকাংশ ভারতীয়র মনে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে গেলে ইংরেজি জানতে হবে বলে যে বদ্ধমূল ধারণা রয়েছে, সেই মনস্তাত্ত্বিক বাধা ভাঙবে। ভিডিও বিনোদন থেকে শিক্ষা,  ভারতীয় ইন্টারনেটে বদলের ক্ষেত্রে মূলত এই বিষয়গুলিকে লক্ষ্যের মধ্যে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

পাতা.ভারত ডোমেইনটি সাতটি ভারতীয়, হরফে ১৪টি ভারতীয় ভাষায় পাওয়া যাবে- যা সকলেই ব্যবহার করতে পারবেন। যে সাতটি হরফে এই ডোমেইন মিলবে সেগুলি হল- বাংলা, গুজরাটি, পাঞ্জাবি, তেলুগু, হিন্দি, তামিল এবং উর্দু। এছাড়া ইংরেজিতেও এই ডোমেইন ব্যবহার করা যাবে।

Get all the Latest Bengali News and West Bengal News at Indian Express Bangla. You can also catch all the General News in Bangla by following us on Twitter and Facebook

Web Title:

Indian internet rss research data centre in nagpur

The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com.
Advertisement

ট্রেন্ডিং
রণক্ষেত্র মুঙ্গের
X