scorecardresearch

“পরিস্থিতি গুরুতর, রাজনৈতিক স্তরে গভীর আলোচনার প্রয়োজন”

প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় সোমবার রাতের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিদেশমন্ত্রী। তিনি বলেন, “বর্তমান পরিস্থিতি খুবই সঙ্কটপূর্ণ।”

“পরিস্থিতি গুরুতর, রাজনৈতিক স্তরে গভীর আলোচনার প্রয়োজন”
বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকর। এক্সপ্রেস ফোটো

দু’দিন পরই মস্কো যাওয়ার কথা বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকরের। ভারত-চিন সীমান্ত সমস্যা নিয়ে চিনের বিদেশমন্ত্রী ওয়াং ওয়াইইয়ের সঙ্গে বৈঠকে বসার কথা রয়েছে। কিন্তু এরই মাঝে সোমবার গভীর রাতে ফের অশান্ত হল প্যাংগং সীমান্ত। জানা গিয়েছে “দুই দেশের সম্পর্ক থেকে সীমান্ত সমস্যাকে আলাদা করা যাবে না” এই বিষয়ই বৈঠকে প্রাধান্য পাবে।

প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় সোমবার রাতের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিদেশমন্ত্রী। তিনি বলেন, “বর্তমান পরিস্থিতি খুবই সঙ্কটপূর্ণ। অনেকটা গভীরে গিয়ে কথা বলা প্রয়োজন। দুই দেশের রাজনৈতিক স্তরে আলোচনার দরকার রয়েছে।”

আরও পড়ুন, ফের অশান্ত প্যাংগং, সতর্ক করতে গুলি ছুঁড়েছে ভারত, দাবি চিনের

সাংহাই কোঅপারেশন অর্গানাইজেশন ফরেন মিনিস্ট্রার্সদের যে বৈঠক রয়েছে মস্কোতে সেখানেই উপস্থিত থাকবেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকর। দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের ই-আড্ডায় বিদেশমন্ত্রী বলেন, “ভারত ও চিনের মধ্যে জটিল সম্পর্ক রয়েছে এবং আমার দায়িত্ব এটাকে সঠিক পথে নিয়ে যাওয়া। বাস্তব ইস্যু হল সেনা সরানো ও সেনা কমানো। শান্তি ও স্থিতাবস্থাই চিনের সঙ্গে সম্পর্কের ভিত্তি হওয়া উচিত’ ।

গত মে মাসের শুরু থেকে পূর্ব লাদাখ সীমান্তে একে অপরের চোখে চোখ রেখে অবস্থান করছে দু’দেশের সেনা। সীমান্ত সংঘাত পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছোয়, যে তা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে পরিণত হয় গত ১৫ জুন। এরপর থেকে সামরিক, কূটনৈতিক স্তরে একাধিক আলোচনা হলেও সীমান্ত জট কাটেনি। সোমবার নতুন করে প্যাংগংয়ে সমস্যা গভীর চিন্তা বৃদ্ধি করল বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

Read the full story in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Serious situation need deep conversations at political level s jaishankar