scorecardresearch

বড় খবর

ভারতের বারণ সত্ত্বেও চিনের জাহাজকে নোঙরের অনুমতি শ্রীলঙ্কার

বৃহস্পতিবারই জাহাজটির পৌঁছনোর কথা ছিল শ্রীলঙ্কায়। তার বদলে মঙ্গলবার ১৬ আগস্ট পৌঁছবে। আগে কথা ছিল জাহাজটি শ্রীলঙ্কার বন্দরে থাকবে ১৭ আগস্ট পর্যন্ত। এবার ঠিক হয়েছে ২২ আগস্ট পর্যন্ত জাহাজটি হাম্বানটোটা বন্দরে থাকবে।

ভারতের বারণ সত্ত্বেও চিনের জাহাজকে নোঙরের অনুমতি শ্রীলঙ্কার
হাম্বানটোটা আন্তর্জাতিক বন্দর।

ভারতের আপত্তি সত্ত্বেও চিনের জাহাজকে সেদেশে নোঙরের অনুমতি দিল শ্রীলঙ্কা। ১৬ আগস্ট শ্রীলঙ্কার হাম্বানটোটা বন্দরে চিনের জাহাজ নোঙর করার অনুমতি পেয়েছে। এই জাহাজ গবেষণার কাজে ব্যবহার হচ্ছে বলেই চিনের দাবি। উচ্চপ্রযুক্তিসম্পন্ন এই জাহাজ ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র এবং উপগ্রহ চিহ্নিত করতে পারে। নাম ‘ইউয়ান ওয়াং 5’।

বৃহস্পতিবারই জাহাজটির পৌঁছনোর কথা ছিল শ্রীলঙ্কায়। তার বদলে মঙ্গলবার ১৬ আগস্ট পৌঁছবে। আগে কথা ছিল জাহাজটি শ্রীলঙ্কার বন্দরে থাকবে ১৭ আগস্ট পর্যন্ত। এবার ঠিক হয়েছে ২২ আগস্ট পর্যন্ত জাহাজটি হাম্বানটোটা বন্দরে থাকবে। শ্রীলঙ্কার বিদেশ দফতর গত সপ্তাহে নিরাপত্তা নিয়ে ভারতের উদ্বেগের কারণে ওই জাহাজের সফর স্থগিত রাখার জন্য চিনকে অনুরোধ করেছিল। তারপর, পূর্ব পরিকল্পনামতো বৃহস্পতিবার জাহাজটি হাম্বানটোটা বন্দরে নোঙর করেনি। কিন্তু, ১৬ আগস্ট জাহাজটিকে ওই বন্দরে নোঙর করার অনুমতি দিয়েছে শ্রীলঙ্কা।

ছাড়পত্র পাওয়ার আগে জাহাজটি হাম্বানটোটা থেকে ৬০০ নটিক্যাল মাইল পূর্বে অপেক্ষায় ছিল। ওই জাহাজকে চিন নোঙর করার ছাড়পত্র দেওয়ায় শ্রীলঙ্কায় রীতিমতো বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। বিরোধীরা অভিযোগ করেছে, সরকার বিষয়টি ঠিকমতো সামলাতে পারেনি। হাম্বানটোটা শ্রীলঙ্কার দক্ষিণের গভীর সমুদ্র বন্দর। তার অবস্থানের জন্যই বন্দরটি কৌশলগতভাবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই বন্দরটি মূলত চিনের ঋণে গড়ে উঠেছে।

আরও পড়ুন- ‘হর ঘর তিরঙ্গা’ যাত্রায় তেড়ে এল গরু! শিংয়ের গুঁতোয় কুপোকাত বিজেপি নেতা

এই পরিস্থিতিতে ভারত জানিয়েছে, নিরাপত্তা ও অর্থনৈতিক স্বার্থের ওপর প্রভাব ফেলে এমন যে কোন ব্যাপারে নয়াদিল্লি সতর্ক। চিনের জাহাজের সফর প্রসঙ্গে বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি নয়াদিল্লিতে বলেন, ‘আমরা আগস্টে চিনের জাহাজের হাম্বানটোটা সফরের ব্যাপারে অবগত। সরকার সতর্কতার সঙ্গে ভারতের নিরাপত্তা এবং অর্থনৈতিক স্বার্থের ওপর প্রভাব ফেলে এমন যে কোনও ঘটনা পর্যবেক্ষণ করে। সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও নেয়।’

নয়াদিল্লি এর আগেও ভারত মহাসাগরে চিনের যুদ্ধজাহাজের ঘোরাঘুরির বিরোধিতা করেছে। পাশাপাশি, চিনের যুদ্ধজাহাজের শ্রীলঙ্কায় যাতায়াতেরও বিরোধিতা করেছে। অতীতে এনিয়ে ভারত এবং শ্রীলঙ্কার মধ্যে সম্পর্কও তিক্ততায় পৌঁছেছিল। ২০১৪ সালে চিনের পরমাণু অস্ত্রবাহী ডুবোজাহাজকে নোঙর করার অনুমতি দিয়েছিল চিন। তার পর দ্বীপরাষ্ট্রের সঙ্গে ভারতের সম্পর্কে টানাপোড়েন তৈরি হয়।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Sri lanka gives nod for docking of chinese research ship