বড় খবর

করোনা মুছে দিল তুর্কমেনিস্তান

মধ্য এশিয়ার অধিকাংশ দেশেই থাবা বসিয়েছে করোনা। ব্যতিক্রম মধ্য তুর্কমেনিস্তান। সেদেশে করোনাভাইরাসের কোনো অস্তিত্ব নেই বলে দাবি করেছে তুর্ক প্রশাসন।

করোনা রুখতে এদৃশ্য আর দেখা যাবে না তুর্কমেনিস্তানে

করোনা মহামারিতে জেরবার ইরান। মধ্য এশিয়ার অধিকাংশ দেশেই থাবা বসিয়েছে করোনা। ব্যতিক্রম মধ্য তুর্কমেনিস্তান। সেদেশে করোনাভাইরাসের কোনো অস্তিত্ব নেই বলে দাবি করেছে তুর্ক প্রশাসন। তাই ভয়ানক ভাইরাস ‘করোনা’র নাম ব্যবহারেও জারি হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। সংবাদপত্রে প্রকাশিত রিপোর্ট অনুশারে, স্বাস্থ্য সমন্ধীয় বিভিন্ন নথি, স্কুল, হাসাপাতাল ও কাজের জায়গায় ‘করোনাভাইরাস’ শব্দের প্রয়োগ করা যাবে না। কেউ যদি প্রকাশ্য স্থানে করোনাভাইরাস শব্দের উচ্চারণ করে, তাহলে তাকে গ্রেফতার করার হুমকিও দেওয়া হয়েছে।

ওয়ার্ল্ড প্রেস ফ্রিডম ইনডেক্স ২০১৯ তালিকা অনুশারে তুর্কমেনিস্তানের স্থান সবার নিচে। গ্যাস সমৃদ্ধ তুর্কমেনিস্তানে কার্যত স্বৈরতান্ত্রিক পথেই শাসন ব্যবস্থা পরিচালনা করা হয়ে থাকে। প্রসঙ্গত, এই দেশের পাশেই রয়েছে ইরান। যেখানে করোনা প্রকোপ মহামারির আকার ধারণ করেছে। আক্রান্তের সংখ্যা চুয়াল্লিশ হাজারেও বেশি।

আরও পড়ুন- ভারত ও বিশ্বে কোভিড ১৯ সংক্রমণের বৃদ্ধির হার

প্যারিসে বসবাসকারী তুর্ক সাংবাদিকরা জানাচ্ছেন করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে যারা মাস্ক ব্যবহার করছেন তাদেরই পুলিশ গ্রেফতার করবে। একই শাস্তি জুটবে করোনা শব্দের ব্যবহারেও। ফলে, জ্বর, সর্দি-কাশি হলেও প্রশাসনের ভয়ে আপাতত কাঁটা ভূতপূর্ব সোভিয়েত ইউনিয়নের অন্তর্গত এই দেশের বাসিন্দারা।

তুর্ক প্রেসিডেন্ট গুরবাঙ্গুলি বেরদিমুখামেদভ ২০০৬ সাল থেকে দেশ শাসন করছেন। নিজের মত করেই শাসন ব্যবস্থা প্রচোলন করেছেন তিনি। সেদেশে প্রেসিডেন্টকে ‘আরকাদক’ বলেই মনে করা হয়। বাংলায় যার অর্থ রক্ষক।

Read the full story in English

Web Title: Turkmenistan bans use of the word coronavirus in any work

Next Story
করোনা চিকিৎসায় এইডসের ওষুধ খারিজ, নজরে ম্যালেরিয়ার প্রতিষেধক-অ্যান্টিবায়োটিক যুগলবন্দিhydroxychloroquine coronavirus
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com