গর্ভবতীকে ভুল রক্ত, অভিযুক্ত কলম্বিয়া এশিয়া হাসপাতাল

এ পজিটিভের বদলে এবি পজিটিভ রক্ত দেওয়া হল গর্ভবতী মহিলাকে। ভেন্টিলেশনে রোগিনী, বিধাননগর দক্ষিণ থানায় অভিযোগ দায়ের কলম্বিয়া এশিয়া হাসপাতালের বিরুদ্ধে।

By : IE Bangla Web Desk | kolkata Published: Jun 13, 2018, 18:01:22 PM

সুইটি শর্মা

নামি নার্সিংহোমে ভুল চিকিৎসার জন্য ভুক্তভোগী হয়েছেন অনেকেই। এবার সে তালিকায় উঠে এল কলকাতার আর এক নামজাদা বেসরকারি হাসপাতাল। কলাম্বিয়া এশিয়া হাসপাতালের বিরুদ্ধে এক রোগিনীর শরীরে ভুল গ্রুপের রক্ত দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এর ফলে ওই রোগিনীর শারীরিক অবস্থা সংকটজনক হয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে বিধাননগর দক্ষিণ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। হাসপাতালের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, জটিল গর্ভাবস্থা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন ওই রোগিনী। রক্ত দেওয়ার পর তাঁর শরীরে বেশ কিছু জটিলতা সৃষ্টি হয়। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা সারাক্ষণ তাঁর ওপর নজর রাখছেন। ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই তাঁকে ভেন্টিলেটর থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে ওই রোগিনীর স্বামী অভিজিৎ সিনহা জানিয়েছেন, ‘‘জুন মাসে পেটের যন্ত্রণার জন্য আমার স্ত্রী বৈশাখীকে কলম্বিয়া এশিয়ার ওপিডি তে ডাক্তার সুজয় মৈত্রর কাছে দেখাতে নিয়ে আসি। তিনি আমার স্ত্রীকে ডাক্তার জয়িতা রায় মৈত্রের কাছে রেফার করেন। আমার স্ত্রীর এক্টোপিক প্রেগন্যান্সি ছিল, ডাক্তার বলেন যত তাড়াতাড়ি সম্ভব অপারেশন করাতে হবে। অপারেশনে কোনও সমস্যা হয়নি, আমাদের জানানো হয়, যত দু দিনের মধ্যেই হাসপাতাল থেকে বৈশাখীকে ছেড়ে দেওয়া হবে।’’

আরও পড়ুন, ভাগাড় কাণ্ডের শেষ এখনও দেখে নি কলকাতা, দাবি মন্ত্রীর

চিকিৎসক জানিয়েছিলেন, অপারেশনে কোনও জটিলতা না থাকলেও যেহেতু অনেকটা রক্ত বেরিয়ে গেছে, সেজন্য দু বোতল রক্ত দিতে হবে বৈশাখীকে। অভিজিৎ যখন জানতে চান, কোন গ্রুপের রক্ত দেওয়া হচ্ছে, তখন নার্স তাঁকে এবি পজিটিভ গ্রুপের রক্ত দেওয়া হচ্ছে বলে জানান। ‘‘আমি খুবই অবাক হয়ে জানাই যে আমার স্ত্রীর ব্লাড গ্রুপ এ পজিটিভ। কিন্তু ওঁরা আমার সঙ্গে তর্ক করতে থাকেন এবং জানান যে, সেরোলজি রিপোর্ট অনুযায়ীই রক্ত দেওয়া হচ্ছে। এরপরেও রক্ত দেওয়া চলতে থাকে এবং কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই বৈশাখীর শরীরে সমস্যা তৈরি হয়। ইউরিন ব্যাগ রক্তে ভরে ওঠে। আমি বারবার বলা সত্ত্বেও কেউ দেখতে আসেনি। পরে ডাক্তার এসে জানান, অবস্থা ভাল নয়, আইসিইউ তে ভর্তি করতে হবে। এখন আমার স্ত্রী ভেন্টিলেশনে আছে। চিকিৎসার বদলে আমাকে বারবার হাসপাতাল থেকে বিলের ব্যাপারে তাগাদা দেওয়া হচ্ছে। ’’

বর্তমানে ওই রোগিনী যাঁর অধীনে রয়েছে, সেই চিকিৎসক দীপঙ্কর সরকার ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে জানিয়েছেন, ‘‘আমার কাছে ওনাকে যখন পাঠানো হয়েছিল, তখন উনি রক্ত সংক্রমণজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। এখন উনি ভালো হয়ে উঠছেন।’’ রোগিনীর পরিবারের তরফ থেকে মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিককে এ বিষয়ে পদক্ষেপ করার জন্য বিষয়টি জানানো হয়েছে।

হাসপাতালের তরফ থেকেও এ ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে।

সংবাদসংস্থা এএনআইকে কলম্বিয়া এশিয়া হাসপাতালের তরফে ডাক্তার তীর্থঙ্কর বাগচি জানিয়েছেন, রোগীকে ভুল গ্রুপের রক্ত দেওয়া হয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখার জন্য একটি টিম গঠন করা হয়েছে। রোগী সম্পূর্ণ সুস্থ না হয়ে ওঠা পর্যন্ত হাসপাতালের তরফ থেকে সমস্তরকম চিকিৎসা করা হবে। এ জন্য অর্থকরী বিষয় কোনও বাধা হয়ে দাঁড়াবে না বলে জানানো হয়েছে।