scorecardresearch

বড় খবর

‘জমি দিচ্ছে না রাজ্য, কলকাতায় নয়া এয়ারপোর্টের কাজ আটকে’, দাবি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

রাজ্য সরকারের অসহযোগিতার কারণে সেই প্রকল্প বিশ বাঁও জলে।

‘জমি দিচ্ছে না রাজ্য, কলকাতায় নয়া এয়ারপোর্টের কাজ আটকে’, দাবি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এক্সপ্রেস ফটো

দমদমে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উপর চাপ কমাতে কলকাতার কাছেই দ্বিতীয় বিমানবন্দরের জন্য জমি খুঁজছে রাজ্য সরকার। সম্প্রতি এমনই একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয় শাসকদল তৃণমূলের কংগ্রেসের মুখপত্রে। ভাঙড়ে জমি দেখার কাজও নাকি শুরু হয়েছে। কিন্তু এর মধ্যেই বোমা ফাটালেন কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রী জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। তাঁর দাবি, কলকাতায় দ্বিতীয় এয়ারপোর্টের জন্য জমি দিচ্ছে না রাজ্য।

রবিবার সিন্ধিয়া বলেছেন, কেন্দ্র সরকার কলকাতায় দ্বিতীয় এয়ারপোর্ট তৈরি করার জন্য আগ্রহী। এতে বাংলার সঙ্গে বিমান যোগাযোগ ব্যবস্থা আরও উন্নত হবে গোটা দেশের। কিন্তু রাজ্য সরকারের অসহযোগিতার কারণে সেই প্রকল্প বিশ বাঁও জলে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর দাবি, রাজ্য সরকারের সবুজ সংকেতের অপেক্ষায় কেন্দ্র। তিনি নিজে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে অনুরোধও করেছেন।

গতকাল কলকাতায় আইসিসিআর-এর দফতরে সিন্ধিয়া সাংবাদিকদের বলেন, “যে কোনও দেশে বিমান পরিবহণ উন্নয়নের মূল। বাংলার বিমান পরিবহণ শিল্পের জন্য আমাদের বড় পরিকল্পনা রয়েছে। কিন্তু আমি বলতে চাই, কলকাতায় আরও একটা এয়ারপোর্ট তৈরি করতে চাই আমরা। বর্তমান দমদম বিমানবন্দরে সর্বোচ্চ ক্ষমতায় চলছে। অনেক বছর ধরে রাজ্য সরকারকে আমরা নতুন জমির জন্য প্রস্তাব পাঠাচ্ছি। কিন্তু রাজ্য সরকার কোনও কংক্রিট পদক্ষেপ করছে না এই বিষয়ে। এয়ারপোর্ট অথরিটি কী ভাবে বিমানবন্দর তৈরি করবে যদি জমি না দেওয়া হয়?”

আরও পড়ুন ‘কলকাঠি নেড়েছেন অনুব্রত, তাই আমার নাম বাদ’, বিস্ফোরক তৃণমূলের বিদায়ী কাউন্সিলর

সিন্ধিয়া আরও বলেছেন, “আমরা অবশ্যই মনে করি কলকাতায় নয়া এয়ারপোর্ট হওয়া উচিত। অন্তত ২ লক্ষ বর্গমিটার এলাকাজুড়ে। বর্তমান এয়ারপোর্টে দৈনিক ৮,৬০০ যাত্রী বহন করার ক্ষমতা রয়েছে। আমরা মনে করি নয়া এয়ারপোর্ট টার্মিনালে দৈনিক ১০ থেকে ১১ হাজার যাত্রী বহনের ক্ষমতা হওয়া উচিত। তবে সেটা তখনই সম্ভব যখন রাজ্য সরকারের আমাদের সহযোগিতা করব। সেটা বাগডোগরা হোক বা হাসিমারা এয়ারফোর্স বেস স্টেশন বা কলাইকুন্ডা বেস স্টেশনই হোক, কোনও প্রকল্পে আমরা রাজ্য সরকার থেকে কোনও উত্তর বা সবুজ সংকেত পাচ্ছি না। আমি মুখ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ করব যাতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে উন্নয়ন প্রকল্পগুলি বাস্তবায়নে মদত করুন।”

আরও পড়ুন দলনেত্রীর নির্দেশই সার, পুরপ্রার্থী নিয়ে তৃণমূলে চরম কোন্দল, প্রশ্নের মুখে সংগঠনের রাশ

এর পর মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে সিন্ধিয়া বলেছেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যতদূর মনে পড়ছে, কেন্দ্রীয় বাজেটকে জিরো বাজেট বলেছেন। আমি আগেই বলেছি, দেড় লক্ষ কোটি টাকা আগামী তিন বছরের জন্য রাজ্যকে দেওয়া হচ্ছে। এবার তিনি বলতে পারবেন, সেই টাকার অঙ্কে ঠিক কতগুলো শূন্য রয়েছে।”

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Kolkata news download Indian Express Bengali App.

Web Title: 2nd kolkata airport plan stuck state not giving land scindia