scorecardresearch

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাসের পর বাংলায় বিশেষ পদক্ষেপ বিজেপির

“পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিবিদদের যে কাজ করা উচিত ছিল। সেটা করেছেন আমাদের দলের দুই জন(নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহ) সর্বভারতীয় নেতা। তাঁদের কাছে কৃতজ্ঞতা থাকা উচিত।”

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাসের পর বাংলায় বিশেষ পদক্ষেপ বিজেপির
ক্য়াব নিয়ে হেল্প লাইন চালু করবে বিজেপির রিফিউজি সেল।

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে প্রচারে ঝড় তুলতে চাইছে তৃণমূল কংগ্রেস। শুক্রবার দিঘা থেকে রাজ্যব্যাপী কর্মসূচির কথা ঘোষণাও করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্যদিকে, বসে নেই গেরুয়া শিবিরও। এই আইনের সমর্থনে প্রচারের জন্য বঙ্গ বিজেপি কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে। পাশাপাশি, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে এ রাজ্যে সংবর্ধনা দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে জোর কদমে। শুধু তাই নয়, বিজেপির ‘রিফিউজি সেল’ সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিষেয় তথ্য দিয়ে সাহায্য করতে হেল্প লাইন নম্বরও চালু করছে তারা।

বুধবার রাজ্যসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল বা ক্যাব পাশ হতেই রাজ্য বিজেপি উদযাপন শুরু করে। দলের কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় সাধারণের মধ্যে মিষ্টি বিতরণ করেন। উল্লাসে ফেটে পড়ে দলের রিফিউজি সেলও। বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু বলেন, “মণ্ডলে মণ্ডলে অভিনন্দন মিছিল চলছে। জেলায় জেলায় সেমিনার, অন্যান্য কার্যক্রমও শুরু হয়ে যাবে। দলের উদ্বাস্তু সংগঠনগুলো প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে সম্বর্ধনা দেবে। যদিও এখনও পর্যন্ত কোনও তারিখ নির্দিষ্ট হয়নি।”

আরও পড়ুন: ক্যাব-এনআরসি নিয়ে গণ আন্দোলনের ডাক মমতার, রবিবার থেকে রাজ্যজুড়ে পথে তৃণমূল

এদিকে বাংলায় ক্যাব বা এনআরসি লাগু করা হবে না বলে স্পষ্ট ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্য জুড়ে প্রচার শুরু করেছে তৃণমূল। সায়ন্তনের দাবি, “হিন্দু বাঙালি শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেওয়ার বিরুদ্ধে তৃণমূল। এ বিষয়টা প্রত্যেক দিন প্রমানিত হচ্ছে। ইমরান খান যে ভাষায় কথা বলছেন, মুখ্যমন্ত্রীও সেই ভাষাতেই কথা বলছেন। আমরা সেটা প্রচারে রাখব। মানুষকে বোঝানো হবে। আমরাও পুরোদমে ময়দানে নামব।”

সংসদের উভয় কক্ষে ক্যাব পাশ হওয়ায় বঙ্গ বিজেপির সঙ্গে তাল মিলিয়ে দলের রিফিউজি সেলও এ মুহূর্তে উদযাপনে মেতেছে। কীভাবে নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করা যাবে, সে বিষয়ে সহযোগিতা করবে এই সেল। দলের রাজ্য রিফিউজি সেলের আহ্বায়ক মোহিত রায় বলেন, “ক্যাব নিয়ে যে অপপ্রচার হচ্ছে সেগুলিকে নিয়ে মানুষের কাছে যাব। বাড়ি বাড়ি যাব, সেমিনার করব। সাহায্য করার জন্য় হেল্প লাইন চালু করা হবে। কয়েক দিনের মধ্যে তৃণমূলের প্রচারের ঝাঁঝ আর থাকবে না।” মোহিতবাবুর বক্তব্য, “আমাদের পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিবিদদের যে কাজ করা উচিত ছিল, সেটাই করেছেন আমাদের দলের দুই (নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ) সর্বভারতীয় নেতা। তাঁদের কাছে কৃতজ্ঞ থাকা উচিত।”

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Citizenship amendment bill 2019 in west bengal bjp tmc narendra modi amit shah