scorecardresearch

বড় খবর

‘রাহুলের শূন্যস্থান পূরণ প্রয়োজন’

লোকসভা ভোটের পর থেকেই প্রায় দেড়শ বছরের প্রাচীন দল কংগ্রেস চলছে দিশাহীন ভাবে। পরাজয়ের দায় ঘাড়ে নিয়ে সভাপতির পদ ছেড়েছেন রাহুল গান্ধী।

রাহুল গান্ধী
লোকসভা ভোটের পর থেকেই প্রায় দেড়শ বছরের প্রাচীন দল কংগ্রেস চলছে দিশাহীন ভাবে। পরাজয়ের দায় ঘাড়ে নিয়ে সভাপতির পদ ছেড়েছেন রাহুল গান্ধী। সনিয়া গান্ধী অন্তর্বর্তী সভানেত্রী হিসেবে কাজ চালাচ্ছেন। এই অবস্থায় দিল্লি বিধানসভা ভোটের পর কংগ্রেসের মধ্যে খেয়োখেয়ি আরও বেড়েছে। এক এক নেতা এক এক রকম কথা বলছেন। একে অন্যের ঘাড়ে হারের দায় ঠেলতে ব্যস্ত। দলের হাল ধরা নিয়ে নানান সমীকরণ উঠে আসছে। তারই ফাঁকে কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুর নির্বাচনের মাধ্যমে নেতা নিয়োগের দাবি তুলেছেন।

নানান চ্যালেঞ্জের সামনে কংগ্রেসের সংগঠন। এই প্রসঙ্গেই শশী থারুরের সঙ্গে কথা বলেছেন মনোজ সি জি।

প্রশ্ন: আরও একটি নির্বাচনে (দিল্লি বিধানসভা ভোট) কংগ্রেসের ভরাডুবি হল। দলের সংগঠন নিয়ে রাজ্য নেতৃত্ব আতঙ্কিত। দলের ভবিষ্যত নিয়ে আপনার কী প্রতিক্রিয়া।

উত্তর: বিজেপি সরকারের বিভাজনমূলক নীতির মোকাবিলায় কংগ্রেসই ভারতের পক্ষে অনিবার্য বিকল্প। তবে, ভোটারদের চোখে আমাদের প্রতি আস্থা ফিরিয়ে আনতে হবে। যা না করতে পারলে ভোটাররা অন্য বিকল্পের দিকে আকৃষ্ট হবেন। যেমনটা হয়েছে দিল্লি ভোটে। একই সঙ্গে আমাদের দলের সাংগঠনিক ও গঠনগত বদলেরও প্রয়োজন রয়েছে। সেটাই আমাদের সামনে বড় চ্যালেঞ্জ। দ্রুত এই সমস্যার সমাধান করতে হবে। যেটা করতে পারলে ভোটারদের কাছে একটা বার্তা পৌঁছে দেওয়া যাবে। সদর্থক দিকও রয়েছে, যেমন- ঝাড়খণ্ড ও মহারাষ্ট্রে আমরা জোটে লড়ে সফলতা পেয়েছি। হরিয়ানাতে বিজেপি কড়া চ্যালেঞ্জর মুখোমুখি ফেলা গিয়েছিল। মধ্যপ্রদেশ, পাঞ্জাব, ছত্তিশগড় ও রাজস্থানে আমাদের সরকার ভালই প্রশাসন চালাচ্ছে।

কংগ্রেস ফুরিয়ে গিয়েছে। এই ধারনা থেকে আমরা বহু দূরে রয়েছি। তবে অবশ্যই কংগ্রেস সভাপতির দীর্ঘমেয়াদী ভবিষ্যতের পাশাপাশি কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যপদ থেকে শুরু করে দলীয় অভ্যন্তরীণ নেতৃত্বের বিষয়গুলির সমাধান করা প্রয়োজন। দলের নেতা, কর্মীদের মনোবল বাড়াতে ও আস্থা ফেরাতে তাই দলের বিভিন্ন পদে আমি নির্বাচনের পক্ষে সওয়াল করেছি।

শশী থারুর

প্রশ্ন: কংগ্রেস দল দুটি লোকসভা ভোটে হেরেছে। এর দায় কার? ফলাফল নিয়ে অন্তদর্শনই বা কী? তা নির্ধারিত হয়নি কিন্তু…

উত্তর: একটা পর্যায় পর্যন্ত আমরা সরকলেই দায়বদ্ধ। হারের দায় মেনে নিয়ে সভাপতি পদ থেকে সভাপতি পদত্যাগ করেছেন। কিন্তু অতীতকে আমরা ঝেড়ে ফেলতে পারি না। তাই লক্ষ্যে পৌঁছাতে আমাদের সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে।

আরও পড়ুন: প্রধানমন্ত্রীকে যথাযোগ্য সম্মান প্রদর্শন করতে বললেন শশী থারুর

প্রশ্ন: ২০১৯ লোকসভা ভোটে হারের নৈতিক দায়িত্ব মাথায় নিয়ে সভাপতি পদ থেকে পদত্যাগ করেছিলেন রাহুল গান্ধী। তারপর এতদিনেও কংগ্রেস কেন নেতা নির্বাচন বা মনোনয়ন করতে পারল না?

উত্তর: একটা সময় পর্যন্ত এই দেরি বোধগম্য। প্রায় বছর দুয়েক দলের সভাপতি ছিলেন রাহুল গান্ধী। তাঁর প্রতি দুর্বলতা রয়েছে নেতা, কর্মীদের। তাঁর জুতোয় পা গলানোর লোক খুঁজে পায়াই এখন চ্যালেঞ্জ। তাই কর্মসমিতি সোনিয়াজিকেই দায়িত্ব ফিরিয়ে দিয়েছেন। তিনি তাঁর সাধ্যমত করছেন। কংগ্রেস যে ভারতের জন্য অপরিহার্য সেই আস্থা পুনরুদ্ধারের কাজটা তিনি করতে পেরেছেন। কংগ্রেসই একমাত্র দল যারা নীতি ও আদর্শের ভিত্তিতে বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ জানাতে পারে। তবে এই কাজটা আমাদের দায়িত্ব নিয়ে করতে হবে। রাহুলের সভাপতি পদ ছাড়ায় যে ফাঁক সৃষ্টি হয়েছে তা দ্রুত পূরণ করতে হবে। আমি চাই রাহুল গান্ধী আবার সভাপতি পদে ফিরে আসুক। তবে তিনি রাজি না হলে পূর্ণ সময়ের জন্য সক্রিয় এমন নেতা চাই যে দেশের চাহিদা মেনে যে দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবেন।

Read the full story in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Congress mp shashi tharoor sayes we need to find new president to fill vacuum after rahul resignation