scorecardresearch

বড় খবর

আর মুখ্যমন্ত্রী থাকতে চাইছেন না, আরও বড় লক্ষ্য নীতীশের, নেপথ্যে পিকে?

বিহারের মুখ্যমন্ত্রী এনিয়ে মুখই খোলেননি।

nitish

আগামী ১৮ জুলাই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন। কে কাদের পদপ্রার্থী তা, নিয়ে জল্পনা ইতিমধ্যেই তুঙ্গে উঠেছে। তার মধ্যেই একটা নাম বেশ বড় করে ভেসে আসছে। তিনি নীতীশ কুমার, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী। বিভিন্ন মহলের দাবি, গত চার মাস ধরেই রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হিসেবে বিহারের মুখ্যমন্ত্রীর নাম বাতাসে ভাসছে। ফেব্রুয়ারিতে দিল্লিতে বৈঠক হয়েছিল ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর আর নীতীশের।

অনেকে বলছেন, বৈঠকটা নাকি নীতীশকে রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী করা নিয়েই ছিল। ভারতীয় জনতা পার্টি বা বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটে আছে নীতীশের সংযুক্ত জনতা দল বা জেডিইউ। সেই এনডিএর প্রার্থী হতে পারেন নীতীশ। এমনটাই শোনা যাচ্ছে বিভিন্ন মহলের সূত্রে।

স্বভাবত উল্লসিত নীতীশের দল জেডিইউ। দলে নীতীশের ঘনিষ্ঠ প্রবীণ নেতা কেসি ত্যাগী বলেন, ‘যদি এটা হয়, তবে সেটা জেডিইউ তো বটেই, বিহারের কাছেই একটা বড় সম্মানের ব্যাপার। দেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি বাবু রাজেন্দ্রপ্রসাদের পর ফের একজন রাষ্ট্রপতি পাবে বিহার।’

এনিয়ে নীতীশের প্রতিক্রিয়া কী, অনেকে সেকথা জানতে চাইছিলেন। তিনি রাষ্ট্রপতি হওয়ার ব্যাপারে আগ্রহী নন, নীতীশ এমনটা বলতে পারেন বলেই অনেকে মনে করেছিলেন। কিন্তু, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী এনিয়ে মুখই খোলেননি। যাকে, মৌনং সম্মতিং লক্ষণম বলে মনে করছেন অনেকেই। আর, জল্পনাটা যে নেহাতই ফেলনা নয়, তা কার্যত স্পষ্ট বুঝিয়েছেন জেডিইউ নেতৃত্বই।

বিহারের মন্ত্রী তথা জেডিইউ নেতা শ্রবণ কুমার ৯ জুন এক সাক্ষাত্কারে বলেন, ‘বিধায়ক আর সাংসদ হিসেবে নীতীশ কুমারের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স। রাষ্ট্রপতি পদে তিনি অবশ্যই একজন যোগ্য প্রার্থী। যদি এটা হয়, আমরা সত্যিই গর্বিত হব। এটা বিহারের জন্যও একটা গর্বের ব্যাপার হবে।’ জেডিইউয়ের অন্যতম মন্ত্রী সঞ্জয়কুমার ঝা বলেন, ‘২০২৫ পর্যন্ত নীতীশ কুমার মুখ্যমন্ত্রী থাকতেই পারবেন। বিহারবাসীর কাছ থেকে তিনি সেই রায় পেয়ে গেছেন। তাঁর আবার রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হওয়ার দরকারটা কি?’

আরও পড়ুন- হাসপাতালে ভর্তি সনিয়া, সুস্থতার কামনা মমতার, দেখভালের দায়িত্বে বাঙালি চিকিত্সক

জেডিইউয়ের সর্বভারতীয় সভাপতি রাজীবরঞ্জন সিং ওরফে লালন সিং আবার জোর দিয়ে বলেন, ‘না না, নীতীশ কুমার মোটেও রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হচ্ছেন না।’ যদিও, রাজনৈতিক মহলের একাংশের দাবি, এই ধন্দ তৈরি করাটাও নীতীশ ঘনিষ্ঠদের কৌশল। তাঁরা নীতীশের নাম ভাসিয়েও বিষয়টা নিয়ে বাড়াবাড়ি করতে চান না। অপেক্ষায় থেকে দেখতে চান কী হচ্ছে, না-হচ্ছে। এই জল্পনায় শেষ পর্যন্ত কোনটা ঠিক আর কোনটা ভুল, তার ফয়সালা এখন কেবল করতে পারে আগামীই।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Jdu sends nitish name as proposal for presidential candidate