scorecardresearch

বড় খবর

‘লাভ জিহাদ’-র অভিযোগে দলিতকে বিয়েতে বাধা, কাঠগড়ায় কর্ণাটকের বজরং দলের কর্মীরা

শুক্রবার রেজিস্ট্রি করলেও ওই দম্পতি ভয়ে অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে পারছেন না। কারণ, অভিযুক্তরা জামিনে ছাড়া পেয়ে গিয়েছেন।

‘লাভ জিহাদ’-র অভিযোগে দলিতকে বিয়েতে বাধা, কাঠগড়ায় কর্ণাটকের বজরং দলের কর্মীরা
প্রতীকী ছবি

সপ্তাহখানেক আগে কর্ণাটকের এক ম্যারেজ রেজিস্ট্রার অফিসে বিয়ে নথিবদ্ধ করতে আসা যুগলের ওপর হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছিল বজরং দলের কর্মীদের বিরুদ্ধে। হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের ওই সদস্যরা বিয়ে করতে আসা পুরুষের বিরুদ্ধে লাভ জিহাদের অভিযোগ করেছিলেন। ওই যুগল হিন্দু সংগঠনের কর্মীদের নানাভাবে বোঝানোর চেষ্টা করেন, যে তিনি লাভ জিহাদ করছেন না। যে মেয়েটিকে তিনি বিয়ে করতে নিয়ে এসেছেন, সে তাঁর প্রতিবেশী। ছোট থেকেই তাঁদের মধ্যে প্রেম। কিন্তু, এসব যুক্তি শুনতে রাজি হননি বজরং দলের কর্মীরা। শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ডাকতে হয়। পুলিশ এসে ওই যুগলকে উদ্ধার করে।

অবশেষে ওই যুগল শুক্রবার তাঁদের বিয়ে নথিভুক্ত করেছেন। নবদম্পতি জাফর (২৪) ও চৈত্রা চিক্কামাগালুরের বাসিন্দা। চৈত্রা দলিত সম্প্রদায়ের। তিনি জানিয়েছেন এখন সাবালিকা। তাই স্বেচ্ছায় বিয়ে করার অধিকার তাঁর রয়েছে। এমনিতেই চিক্কামাগালুর বেশ সংবেদনশীল অঞ্চল। তার ওপর এই ঘটনাকে বজরং দলের কর্মীদের ‘লাভ জিহাদ’-এর নাম দিয়ে দাগিয়ে দেওয়া। ফলে, পুলিশও বেশ সতর্ক।

দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে জাফর বলেন, ‘চৈত্রা এবং আমি প্রতিবেশী এবং ছোটবেলা থেকেই বন্ধু। আমরা একে অপরকে খুব ভাল করে চিনি। তিন বছর আগে আমরা প্রেমে পড়েছিলাম। কিন্তু, এর মানে এই নয় যে সে তার ধর্ম পরিবর্তন করতে যাচ্ছে। আমরা একসঙ্গে থাকতে চাই। প্রত্যেকে নিজেদের ধর্ম অনুশীলন করব। আমরা আশা করিনি, সেদিন আমাদের ওপর হামলা হবে। আমাদের বিয়েতে দুই পরিবারই খুশি ছিল। যদিও এখন বিয়ে নথিভুক্ত হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে আমরা জানি না যে কখন এবং কোথায় বন্ধুবান্ধব ও পরিবারের সদস্যদেরকে আমন্ত্রণ জানানোর অনুষ্ঠান করতে পারব।’

আরও পড়ুন- শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল তাইওয়ান, সুনামি সতর্কতার রটনা

জাফর, অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করেছেন। পেশায় একজন গাড়িচালক। পাশাপাশি, বাবাকে তাঁর কাঠের ব্যবসায় সাহায্য করেন। আর চৈত্রা, দশম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করেছেন। তপশিলি জাতি (SC) সম্প্রদায়ের। থাকেন মায়ের সঙ্গে। তাঁকে এবং জাফরকে কেন আক্রমণ করা হল, তার কারণ বুঝতে না-পেরে চৈত্রা বলেন, ‘আমাদের নির্দেশ দেওয়ার তারা কারা? আমরা নিজেদের ইচ্ছায় বিয়ে করছি। আমরা খেটে রোজগার করি। তারা কে প্রশ্ন করার? আমাদের কী করা উচিত বা করা উচিত নয়, তা বলার তাঁরা কে? জাফরকে আক্রমণ করার সময় ওরা এসে জিজ্ঞেস করল, তুমি কি SC মেয়েকে বিয়ে করতে চাও? এটা জিজ্ঞেস করার তারা কে? এসসি মেয়েরা কি তাঁদের ইচ্ছা অনুযায়ী বিয়ে করতে পারে না?’

ঘটনার পরে, জাফর চিক্কামাগালুরুর বাসাভানাহাল্লি থানায় একটি এফআইআর দায়ের করেছিলেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ চার জনকে গ্রেফতার করেছে। ধৃতরা হলেন শামা, গুরু, প্রসাদ ও পার্থিবান। পরে অবশ্য তাঁদের জামিনে মুক্তি দেওয়া হয়। এই ঘটনায় তাঁদের জীবনের ওপর হুমকির অভিযোগ করে চৈত্রা হামলাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Karnataka interfaith couple attacked by right wing activists get married