scorecardresearch

বড় খবর

খুনের হোলি নয়, দিলসে হোলি খেলি: মমতা

নির্বাচন এলেই রামমন্দির তৈরির জিগির তোলে গেরুয়া বাহিনী, দীর্ঘকালের অভিযোগ বিরোধী দলগুলির। কিন্তু নজরুল মঞ্চে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কণ্ঠে এদিন অচেনা সুর। তিনি কটাক্ষের সুরে বলেন, ”একটা রাম মন্দির বানাতে পারছে না…”।

খুনের হোলি নয়, দিলসে হোলি খেলি: মমতা
লোকসভা নির্বাচনের মুখে মারোয়াড়ি সামজের হোলি উতসবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতি প্রসঙ্গে অনেকেই 'রাজনীতি করার' অভিযোগ তুলেছেন।

“সারা দেশে কত মন্দির হচ্ছে। একটা রাম মন্দির বানাতে পারছে না।” ইন্টারন্যাশনাল মারোয়াড়ি ফেডারেশনের হোলি উৎসবে এভাবেই গেরুয়া শিবিরকে কটাক্ষ করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূল কংগ্রেস যে মারোয়াড়ি সমাজের পাশেই রয়েছে, তা-ও জানিয়ে দিলেন তৃণমূল নেত্রী। এদিন আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে মোদী-অমিত শাহকে পরাজিত করার আবেদনও করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। মমতার কথায়, “পরিবর্তন আনুন”। তবে মারোয়াড়ি ফেডারেশনের অনুষ্ঠানে এমন মন্তব্য করেও তাঁর দাবি, এই উৎসবে অংশগ্রহণের মধ্যে কোনও রাজনীতি নেই। অন্য সংগঠন ডাকলেও তিনি যেতেন।

নির্বাচন এলেই রামমন্দির তৈরির জিগির তোলে গেরুয়া বাহিনী, দীর্ঘকালের অভিযোগ বিরোধী দলগুলির। কিন্তু, নজরুল মঞ্চে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কণ্ঠে এদিন অচেনা সুর। তিনি কটাক্ষের সুরে বলেন, ”একটা রামমন্দির বানাতে পারছে না…”। একইসঙ্গে তিনি বলেন, ”আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ, মমতা বাংলায় পুজো করতে দেয় না। অথচ বাংলায় দুর্গাপুজো, লক্ষ্মীপুজো, ছটপুজো, গনেশ পুজো সব ধর্মীয় অনুষ্ঠানই শান্তিতে হয়। মোদীবাবু-অমিতবাবু আমার সঙ্গে মন্ত্রোচ্চারণের প্রতিযোগিতা করবেন?”

আরও পড়ুন: “মোদী ফের জিতলে আগামী দিনে দেশে ভোট বন্ধ হতে পারে”

লোকসভা নির্বাচনের মুখে মারোয়াড়ি সামজের হোলি উৎসবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতি প্রসঙ্গে অনেকেই ‘রাজনীতি করার’ অভিযোগ তুলেছেন। অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম, মন্ত্রী সুজিত বসু, তৃণমূলের শীর্ষ নেতা সুব্রত বক্সী, দক্ষিণ কলকাতার তৃণমূল প্রার্থী মালা রায়। তবে এদিনের অনুষ্ঠানে এক তৃতীয়াংশ আসনও ভর্তি হয়নি। মমতার দাবি, ”এখানে আসার সঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই। এর আগেও এসেছিলাম। আমি জানি, কাদের অনুষ্ঠানে যাব, আর কোন অনুষ্ঠানে যাব না। অন্যরা বলেন নি, এঁরা বলেছেন, তাই এসেছি। খুনের হোলি না, আমি দিলসে হোলি খেলি।”

এদিনের অনুষ্ঠানেও সিবিআই, ইডির প্রসঙ্গ তুলেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। তিনি বলেন, ”আপনাদের সঙ্গে কথা বলতে ভয় হয়। ব্যবসায়ীদের ভয় বেশি। আয়কর, সিবিআই, ইডি বা যে কোনও এজেন্সি আপনাদের বাড়ি চলে যাবে। তাই এখন পরিবর্তন দরকার। পরিবর্তন হলে বাণিজ্য জগতও ভরসা পাবে।”

এদিনের অনুষ্ঠানে মমতার উপস্থিতির সঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই বলে মন্তব্য করেন সংগঠনের চেয়ারম্যান দীনেশ বাজাজ। তাঁর বক্তব্য, ”মুখ্যমন্ত্রীর আসার সঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই। এর আগেও উনি আমাদের অনুষ্ঠানে এসেছেন।”

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Mamata banerjee on ram mandir at international marwari federation