scorecardresearch

বড় চমক, NDA-র উপরাষ্ট্রপতি প্রার্থী বাংলার রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়

এ দিন প্রধানমন্ত্রী মোদী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও জে পি নাড্ডারা গেরুয়া শিবিরের উপরাষ্ট্রপতি প্রার্থী বাছতে বৈঠক করেন। সেখানেই ধনকড়ের নামে সিলমোহর পড়ে।

jagdeep dhankhar deputy president nda

এনডিএ-র তরফে উপরাষ্ট্রপতি পদের প্রার্থী বাংলার রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। শনিবার ঘোষণা করলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা। এ দিন প্রধানমন্ত্রী মোদী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও জে পি নাড্ডারা গেরুয়া শিবিরের উপরাষ্ট্রপতি প্রার্থী বাছতে বৈঠক করেন। সেখানেই ধনকড়ের নামে সিলমোহর পড়ে। এ দিন দুপুরে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালকে প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে দিল্লিতে বৈঠক করেন। তারপরই ধনকড়ের নাম এনডিএ-র উপরাষ্ট্রপতি প্রার্থী হিসাবে ঘোষণা করা হল।

সাংবাদিক বৈঠকে নাড্ডা বলেছেন, ‘উপরাষ্ট্রপতি পদের জন্য বেশ কয়েকটি নাম নিয়ে চর্চা হয়েছে। আর্ত, সামাজিক, রাজনৈতিক অবস্থার প্রেক্ষিতে পুরোটাই বিবেচনা করা হয়েছে। তারপরই প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে বিজেপির সংসদীয় বোর্ডের বৈঠকে কৃষক-পুত্র জগদীপ ধনকড়কে এনডিএ-র উপরাষ্ট্রপতি পদের প্রার্থী হিসাবে বেছে নেওয়া হয়েছে।’

টুইটে জগদীপ ধনকড়কে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রদানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি লিখেছেন, ‘শ্রী জগদীপ ধনকড় জি আমাদের সংবিধান সম্পর্কে চমৎকার জ্ঞান রাখেন। তিনি আইন প্রণয়নের বিষয়েও সুপণ্ডিত। আমি নিশ্চিত যে তিনি রাজ্যসভার একজন অসামান্য চেয়ারম্যান হবেন এবং জাতীয় অগ্রগতিকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে সভার কার্যক্রম পরিচালনা করবেন।’

https://platform.twitter.com/widgets.js

রাষ্ট্রপতি প্রার্থী নিয়ে শাসক-বিরোধী ঐক্যমত হয়নি। এনডিএর আদিবাসী প্রার্থী দ্রৌপদী মুর্মুর বিপক্ষে বিরোধীরা লড়াইয়ের জন্য এগিয়ে দিয়েছেন যশবন্ত সিনহাকে। সেবার পরে প্রার্থী ঘোষণা করেছিল গেরুয়া শিবির। উপরাষ্ট্রপতি পদের প্রার্থী ঘোষণার ক্ষেত্রে অবশ্য ব্যতিক্রম হল। এবার আগে প্রার্থী ঘোষণা করে দিল জে পি নাড্ডা। সাংবাদিক বৈঠকে জে পি নাড্ডা বলেছেন, ‘আশা করব জগদীপ ধনকড় দলমত নির্বিশেষ সকলের সমর্থন পাবেন।’

আরও পড়ুন- বড় লড়াইয়ে ধনকড়, তৃণমূলের স্বস্তি নাকি অস্বস্তি? নজরে মমতার অবস্থান

২০১৯ সালের জুলাই মাসে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল হিসাবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছিলেন জগদীপ ধনকড়। এরপর গত তিন বছর বিভিন্ন ইস্যুতে মমতা সরকারকে নিশানা করেছেন রাজ্যপাল। বাংলার আইন-শৃঙ্খলা ইস্যুতে সরব থেকেছেন তিনি। রাজভবন-নবান্ন তিক্ত সম্পর্ক নিয়ম করে সংবাদ শিরোনামে এসেছে। এবার সেই জগদীপ ধনকড়ই উপরাষ্ট্রপতির লড়াইতে এনডিএ-র বাজি। অঙ্কের হিসাবে জগদীপ ধনকড়ের জয় প্রায় নিশ্চিৎ।

কেন জগদীপ ধনকড়কেই উপরাষ্ট্রপতি পদে বেছে নিল বিজেপি? রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, প্রথমত, ২০২৩ সালে রাজস্থানে ভোট রয়েছে। আপাতত ওই রাজ্য কংগ্রেসের দখলে। কুর্সি ছিনিয়ে নিয়ে মরিয়া বিজেপি। জাঠ ভোটে থাবা বসিয়ে বাজি মাতের চেষ্টায় গেরুয়া দল। জগদীপ ধনকড় ওই রাজ্য থেকেই দিল্লির রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠা পেয়েছেন। তাই ধনকড়কে উপরাষ্ট্রপতির মতো পদে বসিয়ে রাজস্থানবাসীকে বার্তা দিল বিজেপি। দ্বিতীয়ত, জগদীপ ধনকড় আইনজ্ঞ। সংবিধান ভালো জানেন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, রাজ্যপাল থাকায় প্রসানিক কাজেও অভিজ্ঞ ও দক্ষ তিনি। ফলে উপরাষ্ট্রপতি পদে তাঁর দক্ষতাকে কাজে লাগাতে চাইছে শাসক শিবির। তৃতীয়ত, রাজ্যপালের বিরুদ্ধে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী থেকে শাসক দলরে জনপ্রতিনিধিরা ভুরিভুরি অভিযোগ করেছেন। রাষ্ট্রপতির কাছেও ধনকড়কে অপসারণের দাবি পৌঁছে দিয়েছেন। ফলে সুযোগ পেয়েই বাংলার রাজ্যপালকে উপরাষ্ট্রপতি প্রার্থী করে কৌশলে সরানো হল। কেন্দ্র যে বাংলাকে গুরুত্ব দেন, তৃণমূল সরকাররের কাছে সেই বার্তাই তুলে ধরল বিজেপি সরকার।

আরও পড়ুন- আইনজীবী থেকে বিধায়ক-মন্ত্রী-রাজ্যপাল, এবার গন্তব্য দিল্লি, একনজরে জগদীপ ধনখড়

উপরাষ্ট্রপতি ভোটে তৃণমূলের অবস্থান কী হবে? সংবাদ মাধ্যমের কাছে তা স্পষ্ট করতে চাননি তৃণমূলের রাজ্যস্তরের মুখপাত্র তথা সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষ।

আগামী ৬-ই অগাস্ট দেশের চতুর্দশ উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচন হবে।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest National news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Jagdeep dhankhar deputy president nda