বড় খবর

দিল্লিতে গিয়ে শাহী সাক্ষাতের সম্ভাবনা? ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য শতাব্দীর

তাহলে কী এবার জোড়া-ফুল ছাড়ার পথে বীরভূমের তৃণমূল সাংসদ!

‘১৬ তারিখ দুপুরে যা বলার বলব।’ বৃহস্পতিবার শতাব্দী রায়ের ফ্যান পেজের এই পোস্টেই হৈচৈ পড়ে যায়। প্রশ্ন ওঠে তাহলে কী এবার জোড়া-ফুল ছাড়ার পথে বীরভূমের তৃণমূল সাংসদ! এই জল্পনার মাঝেই শুক্রবার শতাব্দী দিল্লি যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন। এমনকী কন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে সাক্ষাৎ নিয়েও ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করেছেন।

কেন দলের প্রতিক্ষোভ রয়েছে তাঁর? শুক্রবার একাধিক সংবাদ মাধ্যমে সাংসদ শতাব্দী রায় বলেন, ‘সাংসদ হওয়ার পর আমি অধিকাংশ সময় এলাকার মানুষের সঙ্গে কাটিয়েছি। কিন্তু গত ২ বছর ধরে মানুষের কাছে পৌঁছতে চাইলেও পারছি না। আমি প্রায় এলাকায় যাইনি। আমি কার জন্য যেতে পারছি না? মানুষ আমাকে ভোট দিয়েছে। তাই তাদের প্রশ্নের জবাব দেওয়া আমার দায়িত্ব। তারা আমাকে প্রশ্ন করছে, অপনি কি রাজনীতি ছেড়ে দিলেন?’

তাহলে আজ দিল্লি যাওয়ার প্রয়োজন হল কেন? জবাবে তৃণমূল সাংসদ বলেন, ‘সেখানে বন্ধু, আত্মীয়-পরিজনরা রয়েছেন। তাদের সঙ্গে দেখা হবে। স্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠক থাকে। তিন বারের সাংসদকে দিল্লি যেতে কারণ বলতে হবে? ওটাই তো এখন আমার ঘরবাড়ি।’

আজই পশ্চিমবঙ্গ নিয়ে দিল্লিতে বিজেপির বৈঠক রয়েছে। গিয়েছেন দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়। এই প্রেক্ষাপটে শতাব্দী রায়ের দিল্লি যাওয়া নিয়ে শোরগোল পড়েছে। জোর গুঞ্জন যে এবার দিল্লিতে অমিত শাহের সঙ্গে তৃণমূল সাংসদের সাক্ষাৎ হতে পারে। এ প্রসঙ্গে শতাব্দী বলেছেন, ‘পরিচিত মানুষদের সঙ্গে দেখা হতেই পারে। তবে সেটাকে বৈঠক বলাটা ভুল হবে। আমি বলছি না যে অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করবোই। তবে সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছি না। ওনার সঙ্গে মিটিং করতেই যাচ্ছি এমনটা নয়। দেখা হওয়াটা অস্বাভাবিক কিছু নয়।’

কেন ক্ষোভের কথা দলনেত্রীকে জানানো যাচ্ছে না? উত্তরে শতাব্দী রায়ের মন্তব্য, ‘দলনেত্রীকে ক্ষোভের কথা জানাইনি কারণ, অনেক সময় মনে হয় জানানো যায় না। অনেক সময় মনে হয় জানিয়ে লাভ নেই। অনেক সময় মনে হয় কাকে জানাবো।’ তারাপীঠ উন্নয়ন পর্যদ থেকেও তিনি দু’বার ইস্তফা দিলেও তা গ্রহন করা হয়নি বলে অভিযোগ সাংসদের।

কাজের ক্ষেত্রে দলের মধ্যে থেকেই অসুবিধা হচ্ছে বলে মনে করছেন সাংসদ শতাব্দী রায়। যদিও তিনি স্পষ্ট করেছেন যে, বিজেপিতে যোগদানের ব্যাপারে এখনই তিনি কোনও সিদ্ধান্ত নেননি। যদিও গতকালের ফেসবুক পোস্ট ও এ দিন দিল্লি যাওয়ার খবর, অমিত শাহের সঙ্গে সাক্ষাতের প্রসঙ্গে শতাব্দীর ইঙ্গিতবহ মন্তব্যে তাঁর দলবদল নিয়ে চর্চা তুঙ্গে।

এ প্রসঙ্গে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেছেন, ‘আগে থেকে সময় নিয়ে তবেই অমিত শাহের সঙ্গে শতাব্দীর সাক্ষাত সম্ভব নয়। ওকে বলব, দলের সঙ্গে কথা না বলে যেন কোনও সিদ্ধান্ত না নেয়।’ যদিও দলীয় সাংসদকে প্রথমেফোনে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না বলে দাবি করেন সৌগত রায়।

পরে শতাব্দী রায়ের বাড়িতে গিয়ে তাঁর সঙ্গে কথা বলেন তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। পরে তিনি সংবাদ মাধ্যমে বলেন, ‘শতাব্দী আমার পুরনো বন্ধু। ওঁর সঙ্গে কিছুক্ষণ গল্প করেছি। আমার সামনেই শতাব্দীর কাছে মুকুল রায়ের ফোন এসেছিল। দল শতাব্দীর সঙ্গে কথা বলবে।’

অর্থাৎ, শতাব্দী বেসুর হতেই বিজেপি যে তৃণমূল সাংসদকে দলে পেতে মরিয়া সেই ইঙ্গিতও স্পষ্ট করলেন শাসক দলের মুখপাত্র।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Satabdi roy will meet amit shah in delhi indicative comments by tmc mp

Next Story
জরুরি তলব পেয়েই দিল্লিতে মুকুল-দিলীপ, কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কড়া বার্তার ইঙ্গিত
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com