scorecardresearch

চার মাসেই উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী পদ ছাড়লেন তিরথ, মমতাকে বার্তা বিজেপির?

১০ মার্চ ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াতের পরিবর্তে উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে বসেছিলেন তিরথ সিং রাওয়াত।

চার মাসেই উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী পদ ছাড়লেন তিরথ, মমতাকে বার্তা বিজেপির?
পদত্যাগ করে রাজভবন থেকে বেরিয়ে আসছেন তিরথ সিং রাওয়াত। ছবি- প্রবীন খান্না

১০ মার্চ ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াতের পরিবর্তে উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে বসেছিলেন তিরথ সিং রাওয়াত। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রিত্বের মেয়াদ চার মাসও পূর্ণ হল না। মুখ্যমন্ত্রীত্ব পদ থেকে ইস্তফা দিলেন তিরথ। শুক্রবার রাতেই রাজভবনে গিয়ে বেবি রানি মৌর্যের হাতে পদত্যাগপত্র তুলে দিয়েছেন তিনি। তার আগে দিল্লিতে গিয়ে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতচি জেপি নাড্ডার সঙ্গেও আলোচনা সারেন তিরথ সিং রাওয়াত। বিজেপি সূত্রে খবর, শনিবার দুপুরে বিজেপির সদর দফতরে পরিষদীয় দলের বৈঠক হবে, সেখানেই পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রীর নাম চূড়ান্ত হতে পারে।

কেন এই ইস্তফা? তা নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই জোর জল্পনা চলছিল। নেপথ্যে বিজেপির অভ্যন্তরীণ বিবাদ, তিরথের একাধিক বিতর্কিত মন্তব্যের জেরই প্রকট হয়ে উঠছিল। কিন্তু এক্ষেত্রে সংবিধানের নিয়মাবলীকেই দায়ী করেছে গেরুয়া শিবির। শর্ত অনুয়ায়ী, যদি কেউ বিধায়ক না হন, তাহলে তাঁকে মন্ত্রীত্বের দায়িত্ব গ্রহণের ছয় মাসের মধ্যে উপ নির্বাচনে জয়ী হতে হবে। সেই অনুযায়ী ১০ সেপ্টেম্বর তিরথ সিং রাওয়াতের মুখ্যমন্ত্রীত্বের ছয় মাসের মেয়াদ শেষ হবে। কিন্তু তিরথ বিধায়ক নন। তাই তাঁকে উপনির্বাচনে লড়াই করে জয় পেতে হবে। এদিকে করোনা পরিস্থিতির জন্য উপ-নির্বাচনও অনিশ্চিত। তাই মেয়াদ শেষের আগেই মুখ্যমন্ত্রী পদ ছাড়তে হল তিরথ সিং রাওয়াতকে।

আরও পড়ুন- Jagdeep Dhankhar: চার মিনিটে বাজেট বক্তৃতা শেষ! নেপথ্যে কোন কৌশল অবলম্বন রাজ্যপালের?

পদত্যাগের পর তিরথ বলেছেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে আমার উপর আস্থা রাখার জন্য প্রধানমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও সর্বভারতীয় বিজেপি সভাপতি জেপি নাড্ডাকে ধন্যবাদ। সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার দরুন ইস্তফাই একমাত্র পথ বলে আমি মনে করেছি।’

আগামী বছর উত্তরাখণ্ডে বিধানসভা নির্বাচন রয়েছে। তার আগে ঘনঘন মুখ্যমন্ত্রী বদল বিজেপির কাছে মাথা ব্যথার কারণ হয়ে উঠছে বলে মত পর্যবেক্ষকদের। এখন প্রশ্ন, তিরথের পর এই অল্প সময়ের জন্য উত্তরাখণ্ডের দায়িত্ব কার হাতে দেবেন মোদী-শাহ-নাড্ডারা? আজ দেরাদুনে রয়েছে বিজেপির পরিষদীয় দলের বৈঠক। সেখানেই মুখ্যমন্ত্রীত্বের নাম চূড়ান্ত হতে পারে। বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, আপাতত সতপাল মহারাজ ও ধন সিং রাওয়াত দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন।

গঙ্গোত্রী ও হাল্দওয়ানি, এই দুটি বিধানসভায় উপনির্বাচন হওয়ার কথা। তাহলে কেন এই দু’টির একটি থেকে তিরথকে প্রার্থী করতে চাইলো না বিজেপি। সূত্রের খবর, এই দুই কেন্দ্রে তিরথ সিং রাওয়াতের জয় নিয়ে নিশ্চিত নয় গেরুয়া শিবির। ফলে, ভোটের আগে ঝুঁকি নিতে চায়নি দল। অন্যদিকে পর্যবেক্ষকদের একাংশের মতে, উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী বদলে নৈতিকতার নিরিখে বাংলার তৃণমূলকে বার্তা দিতে চেয়েছে বিজেপি।

আরও পড়ুন- তুষার মেহেতার অপসারণ দাবি, তৃণমূল গর্জে উঠতেই জবাব শুভেন্দুর

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে বসলেও এখন তিনি বিধায়ক নন। ছয় মাসের মধ্যে তাঁকে উপনির্বাচনে জিতে বিধায়ক হতে হবে। কিন্তু করোনা আবহে কবে উপনির্বাচন হবে তা বলা যাচ্ছে না। এক্ষেত্রে মমতার ছয় মাসের মেয়াদ শেষ হবে নভেম্বরের শুরুতেই। তার মধ্যে ভোট না হলে মুখ্যমন্ত্রী পদে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পদত্যাগ চেয়ে সরব হতে পারবে বিজেপি।

যদিও তৃণমূলের দাবি, উত্তরাখণ্ডে আগামী বছরই বিধানসভা ভোট রয়েছে। ফলে সেখানে উপনির্বাচন না হলে অবস্থার বিপুল বদল হবে না। কিন্তু বাংলায় সদ্য ভোট হয়েছে। জনমত তৃণমূলের পক্ষে। তাই কমিশন উপনির্বাচন সময়ই করবে বলে আশা করা যায়।

Read in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Tirath singh rawat resigns from cm post of uttarakhand in four months