বড় খবর

প্রথম টেস্ট প্রিভিউ: প্রতিপক্ষের পাশাপাশি কোহলির চ্যালেঞ্জ কম্বিনেশন ঠিক করা

বোলিং বিভাগ নয়, কোহলির মাথাব্যথা ঠিক মতো ব্যাটিং অর্ডার পছন্দ করা। এমনি স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে হার্দিক পাণ্ডিয়া খেলেন, তাহলে কোহলিকে অজিঙ্কা রাহানে এবং রোহিত শর্মার মধ্যে একজনকে খেলাতে হবে।

TEAM INDIA
ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সেরা একাদশ খেলানোই চ্যালেঞ্জ কোহলির (ফেসবুক)

টি টোয়েন্টি এবং ওয়ান ডে ক্রিকেটে ভারত নিজেদের জয়ের ধারা অক্ষুণ্ণ রেখেছে। এবার পাঁচ দিনের ক্রিকেটের চ্যালেঞ্জ। বৃহস্পতিবার থেকেই আবার টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের বৃত্তে ঢুকে পড়ছে। এমন পরিস্থিতিতে একাধিক রেকর্ডের হাতছানি স্বয়ং ক্যাপ্টেন কোহলির কাছে। অ্যান্টিগা-র টেস্ট জিতলেই মহেন্দ্র সিং ধোনির অধিনায়ক হিসেবে টেস্ট জয়ের পরিসংখ্যানকে ছুঁয়ে ফেলবে কোহলি। আবার একটা শতরান করলেই রিকি পণ্টিংকে স্পর্শ করার হাতছানি রয়েছে তাঁর কাছে। ক্যাপ্টেন হিসেবে ১৯টি শতরান করেছিলেন বিখ্যাত অস্ট্রেলীয়। কোহলি আপাতত ১৮।

এমনিতে শক্তি সামর্থ্য বিচার করলে কোহলি ব্রিগেড প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজের থেকে কয়েক যোজন এগিয়ে। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ চমকে দিতেই পারে। বলছে বিশেষজ্ঞরা। সেক্ষেত্রে কোহলিরা কয়েকমাস আগেই ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের দিকে তাকাতে পারেন। শক্তিশালী ইংল্যান্ডকে পর্যুদস্থ করেছিল উইন্ডিজরা। ১-২ এ হেরে সিরিজ খোয়াতে হয়েছিল ইংরেজদের। তাই কোনও আত্মতুষ্টি নয়, কোহলিরা নিজেদের সামর্থ্য মতো খেলারই চেষ্টা করবেন।

অ্যান্টিগার স্যর ভিভিয়ান রিডার্ডস স্টেডিয়ামের পিচ পেস সহায়ক। পেস অস্ত্রেই ভারতকে বাজিমাত করতে চাইছে জেসন হোল্ডারের নেতৃত্বাধীন ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কোহলি যেমন সাংবাদিক সম্মেলনে বলেই দিলেন, “অনেকেই বলছেন টেস্ট ক্রিকেট তার গরিমা হারাচ্ছে। তবে আমার মতে, টেস্টে প্রতিযোগিতা আগের থেকে আরও দুগুন বেড়ে গিয়েছে। ক্রিকেটাররা জেতার চ্যালেঞ্জ নিয়েই খেলতে নামবে। চরম প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে ক্রিকেটারদের কাছে আলাদা আলাদা চ্যালেঞ্জ থাকে।”

আরও পড়ুন ভিভ রিচার্ডসকে অ্য়ান্টিগার রাজা বললেন রবি শাস্ত্রী

আরও চার বছর ভারতীয় দলের টাইটেল স্পনসর পেটিএম

শেষ টেস্টে এখানে ইংল্যান্ড দুই ইনিংসে তুলতে পেরেছিল যথাক্রমে ১৮৭ এবং ১৩২। কোহলিরা সেই ম্যাচ থেকে শিক্ষা নিচ্ছেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেস আক্রমণ এমনিতে যথেষ্ট সম্ভ্রম জাগানো। নতুন বল হাতে দেখা যাবে কেমার রোচ এবং শ্যানন গ্যাব্রিয়েলকে। তারপরে অধিনায়ক জেসন হোল্ডার তো রয়েইছেন। পিচে যদি পেস বোলারদের জন্য যথেষ্ট রসদ থাকে, তাহলে কোহলি চার পেসারই নামিয়ে দিতে পারেন। সেক্ষেত্রে একমাত্র স্পিনার হিসেবে প্রথম একাদশে ঢোকার লড়াই হবে রবিচন্দ্রন অশ্বিন এবং কুলদীপ যাদব। পেস বোলারদের কোটায় জসপ্রীত বুমরা, মহম্মদ শামি এবং ইশান্ত শর্মা অটোমেটিক চয়েস।

তবে বোলিং বিভাগ নয়, কোহলির মাথাব্যথা ঠিক মতো ব্যাটিং অর্ডার পছন্দ করা। এমনি স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে হার্দিক পাণ্ডিয়া খেলেন, তাহলে কোহলিকে অজিঙ্কা রাহানে এবং রোহিত শর্মার মধ্যে একজনকে খেলাতে হবে। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পিচে সাম্প্রতিক ফলাফল মাথায় রাখলে কোহলি অতিরিক্ত ব্যাটসম্যান খেলাতে পারেন। সেক্ষেত্রে রোহিত, রাহানে দুজনকেই প্রথম একাদশে রাখার সম্ভবনা প্রবল। যদি গ্রিন টপ থাকে, তাহলে কোহলি পাঁচ স্পেশালিস্ট বোলার খেলাবেন। সেক্ষেত্রে রবীন্দ্র জাদেজাকে অলরাউন্ডারের কোটায় খেলিয়ে রাহানে-রোহিতের মধ্যে একজনকে বাছতে হবে ক্যাপ্টেনকে।

অন্যদিকে, ওপেনিংয়েও সমস্যা রয়েছে। মায়াঙ্ক আগারওয়ালের সঙ্গে ক্রিজে কে থাকবেন, তা এখনও ঠিক করে উঠতে পারেননি কোহলি। সাধারন যুক্তি অনুযায়ী, মায়াঙ্কের সঙ্গে লোকেশ রাহুলকে ওপেনিংয়ে দেখা যেতে পারে। তবে হনুমা বিহারীকে আরও একবার সুযোগ না দিলে, তা ক্রিকেটারের প্রতি অন্যায় হবে।

সবমিলিয়ে দল গঠন থেকে পিচ- কোহলির সঠিক কম্বিনেশন ঠিক করাই আপাতত আসল চ্যালেঞ্জ।

Read the full article in ENGLISH

Web Title: Captain kohlis challenge is to arrange the best team combination ahead of the first test against west indies

Next Story
উবেইদের হাতে থেমে গেল ইস্টবেঙ্গলের ডুরান্ড জয়ের স্বপ্নeast bengal and ubaid
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com